সীতাকুণ্ডে স্লুইস গেট ভরাট করে ইয়ার্ড নির্মাণ

বাংলারজমিন

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
সীতাকুণ্ডে স্লুইস গেট ভরাট করে শিপইয়ার্ড নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। পানি চলাচলের স্লুইস গেটসহ ছড়াটি পুনরুদ্ধারের দাবি জানান এলাকাবাসী। এর প্রতিকার ছেয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক ও পরিবেশ অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন। স্লুইস গেট দখলের কারণে ১০ গ্রামে জলবদ্ধতার শঙ্কা রয়েছে। উপজেলার কুমিরা ঘাটঘর সংলগ্ন মেসার্স মোহরম ইস্পাত শিপ রিসাইক্লিং ইন্ড্রাস্ট্রিজ নামে শিপইয়ার্ড মালিক কিছুদিন আগে দখল করে নিয়েছে বলে স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছে। কিন্তু স্থানীয় ১০টি গ্রামের পানি এই ছড়া দিয়ে ১২ মাসই চলাচল করে থাকে। গতকাল সোমবার কুমিরা এলাকায় গিয়ে সরজমিনে দেখা গেছে, ছড়া দিয়ে বিভিন্ন গ্রাম থেকে পানি এসে সরকারিভাবে স্থাপিত এ স্লুইস গেট দিয়ে পানি নিষ্কাশন হচ্ছে না। ছড়াটি বন্ধ হয়ে গেলে কৃষিজমি ও রাস্তায় জলবদ্ধতা দেখা দিতে পারে। এ ব্যাপারে স্থানীয় নিতাই জলদাস বলেন, এই ছড়া দিয়ে এ গ্রামের পানি চলাচলের একমাত্র পথ। কিন্তু একটি শিপ ব্রেকার্স ছড়াটি দখল করে ইয়ার্ড নির্মাণ করছে। কুমিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোরশেদ চৌধুরী মানবজমিনকে বলেন বিষয়টি আমি শুনেছি। স্লুইস গেটটি বন্ধ হলে এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তোলা হবে। চাইলে তো আর কেউ সরকারি স্লুইস গেটটি বন্ধ করে দিতে পারেনা। এ বিষয়ে সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন রায় সাংবাদিকদের বলেন, স্লুইস গেট দখল করে শিপব্রেকিং ইয়ার্ড নির্মাণের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে মেসার্স মোহরম ইস্পাত শিপ রিসাইক্লিং ইন্ড্রাস্ট্রিজ নামে শিপইয়ার্ড স্বত্বাধিকারী কামাল পাশা বলেন, আমি স্লুইস গেট দখল করেনি। স্লুইস গেটটি দখলমুক্ত করতে আমি নিজেও প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছি। তবে পার্শ্ববর্তী ইয়ার্ডের মালিকরা দখল করে রেখেছে বলে তিনি দাবি করেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন