ফুলবাড়ীয়ায় ৬ দিন ধরে একঘরে একটি পরিবার

বাংলারজমিন

ফুলবাড়ীয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি | ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার
ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ভাবানীপুর গ্রামের ৯০ বছরের বৃদ্ধ জয়নাল আবেদীন। লাঠি ছাড়া চলতে পারেন না। বাড়ি থেকে ৫০ গজ দূরে সামাজিক মসজিদে তিনিসহ তার পরিবারের নামাজ পড়া নিষেধ। ওই পরিবারের সঙ্গে কেউ কথা বললে এক হাজার টাকা জরিমানার ঘোষণা দিয়ে মসজিদ কমিটি সামাজিকভাবে একঘরে করে রেখেছে গত শুক্রবার থেকে। একঘরে রাখার বিষয়টি শুধু মুখে নয় মসজিদ কমিটির প্রভাবশালীরা রেজুলেশন করে সবার স্বাক্ষরও নিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন। বৃদ্ধ জয়নাল আবেদীনের ৫ ওয়াক্ত নামাজ বাড়িতেই আদায় করতে হচ্ছে এখন। ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ভাবানীপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামে।
উপজেলার ভবানীপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, সমাজের সকলেই মসজিদে নামাজ আদায় করছেন। আর বাড়ি মসজিদ দেখা বৃদ্ধ জয়নাল আবেদীন তার বাড়িতে জোহরের নামাজ আদায় করছেন। নামাজ শেষে কথা হয় জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে। তিনি জানান, আমাদের সামাজিক মসজিদ বাড়ি থেকে ৫০ গজ দূরে। মসজিদের প্রস্র্রাবখানা ও ল্যাট্রিন আমার জমিতে। আমার কাছে থাকা মসজিদের প্রস্রাব ও ল্যাট্রিনের চাবি ১০-১২ দিন আগে নিয়ে নেন মসজিদ কমিটির ক্যাশিয়ার হোসেন আলী। এ নিয়ে হোসেন আলীর সঙ্গে আমার কথাকাটাকাটি হয়। গত ১৬ই আগস্ট শুক্রবার আমি মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুছ ছালামসহ কমিটির লোকজন আমাকে গালমন্দ করে মসজিদ থেকে বের করে দেন। আমি সে দিন জুমার নামাজ আদায় করতে পারিনি। জুমার নামাজ শেষে আমার পুরো পরিবারকে সামাজিকভাবে একঘরেসহ সমাজের কেউ কথা বললে তাকে এক হাজার টাকা জরিমানার কথা উল্লেখ করে সকলের সই-স্বাক্ষর নিয়ে রেজুলেশন করা হয়। সামাজিকভাবে একঘরে করে রাখার পর থেকে আমাকে মসজিদে নামাজ পড়তে দেয়া হচ্ছে না। ভয়ে সমাজের লোকজন কথা পর্যন্ত বলছেন না। বৃদ্ধ জয়নাল আবেদীনের পুত্র শফিক জানান, আমরা ৫ ভাই। আমার আব্বা বুড়া মানুষ। তাকে এভাবে প্রকাশ্যে সামাজিকভাবে একঘরে রাখা কি ঠিক হইছে? আমার বৃদ্ধ পিতা ভুলত্রুটি করে থাকলে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ আছে সেখানে বিচার দিতে পারত। এতে করে আমাদের পরিবারের সকল শিশুর উপর বিরূপ প্রভাব পড়বে।
মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান কাঞ্চন একঘরে করে রাখার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, আসলে ভয় দেখানোর জন্য একঘরে করা হয়েছে।
মসজিদ কমিটির সভাপতি আবদুস ছালাম বলেন, বৃদ্ধ লোকটি আসলে ভালো না। তাকে সঠিক পথে আনার জন্য একঘরে করে রাখা হয়েছে। ভয় দেখানোর জন্য রেজুলেশন ও সকলের স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে।
ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুর মল্লিক জীবন বলেন, সামাজিকভাবে একঘরে করে রাখার বিষয়টি তার জানা নেই। তবে তিনি খোঁজ নেয়ার কথা বলেন।
ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ তালুকদার বলেন, সামাজিকভাবে একঘরে করে রাখার বিষয়ে থানায় কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মাহমুদুল্লাহ ৪১ বলে ৬২, বাংলাদেশ ১৭৫

নিহত চালকের চিকিৎসায় দুই পরিচালকের ব্যাখ্যা জানতে চান হাইকোর্ট

ফকিরাপুলে নিষিদ্ধ ক্যাসিনোতে অভিযান, ১৪২ আটক

চবিতে ছাত্রলীগ নেতার অনশন

ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষ ফওজিয়ার নিয়োগ স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন

থানায় বিয়ে দেয়া সেই ওসি বরখাস্ত

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, আমিনুল-শান্তর অভিষেক

জাবির সরকার ও রাজনীতি বিভাগের নতুন সভাপতি অধ্যাপক নাসরীন সুলতানা

৩১ বছর আগের ট্র্যাজেডি ছাপানোয় ক্ষুব্ধ স্টোকস

তারা টকশোর এ্যাংকর নাকি অনভিজ্ঞ বক্তা?

মাদারীপুরে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

৩৬ ঘন্টায় বিশ্বজুড়ে ছড়াতে পারে ফ্লু, মারা যেতে পারে ৮ কোটি মানুষ

নয়াপল্টনে জড়ো হচ্ছেন ছাত্রদলের কাউন্সিলররা

সরকারি চাল বাড়িতে, চেয়ারম্যান-ডিলার গ্রেপ্তার

বৃটিশ পার্লামেন্ট স্থগিত নিয়ে আজ আবার শুনানি

ঢাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, উত্তেজনা