বদরগঞ্জে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে আপন বোনকে মারধর

বাংলারজমিন

বদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি | ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার
বদরগঞ্জে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে আপন বোন  জেন্নাতুন্নেছাকে মারধর করেছেন নূরুল আমিন সরকার। এরপর ওই বোনকে দিয়েই থানায় প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছেন। সেই মামলায় আসামি হয়ে নিরীহ লোকজন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। বর্তমানে সেই মারধরের ভিডিও ফাঁস হলেও পুলিশ বলছে- এসব ভিডিও সাংবাদিকের কাজে লাগলেও পুলিশের কোনো কাজে লাগে না। গত ১৫ই আগস্ট উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ মুকসুদপুর এলাকার ফাটকের ডাঙ্গায় এ ঘটনা ঘটে।
ভিডিওতে দেখা যায়, নূরুল আমিন সরকার বিরোধপূর্ণ জমিতে আপন বোন জেন্নাতুন্নেছাকে ধাক্কা মেরে কাদায় ফেলে দেন। এরপর তার কাপড় ধরে টানা-হ্যাঁচড়া করে কাদা মাখিয়ে দিয়ে তাকে থানায় যেতে বলছেন। কিন্তু জেন্নাতুন্নেছা ভাইয়ের কথার কোন প্রত্যুত্তর নাদিয়ে ওই জমি থেকে সরে যান। পরবর্তীতে নূরুল আমিন সরকার বোনের সতীন জাহানারার কাছে ছুটে যান এবং তাকে ধাক্কা মেরে পাওয়ার টিলারের নিচে ফেলে দেয়ার চেষ্টা করেন।
এ সময় সেখানে প্রতিপক্ষের কোনো লোকজনকেই দেখা যায়নি। তারপরও বদরগঞ্জ থানায় প্রতিপক্ষের লোকজনকে আসামি করে জেন্নাতুন্নেছা মামলা দিয়েছেন। বর্তমানে তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মমিনুর ইসলাম বলেন, এসব ভিডিও সাংবাদিকের কাজে লাগে পুলিশের কোনো কাজে লাগে না।
উল্লেখ্য, ফাটকের ডাঙ্গায় বসবাসকারী রফিকুল ইসলাম ও তার ভাই মজিবুল হকের সঙ্গে ১৮ একর জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে উত্তর রামনাথপুরের শামসুল হক সরকার ও তার ভাইবোনদের। তারা ওই জমি দখলে নিতে মরিয়া হয়ে কখনো ভাড়াটিয়া লাঠিয়ালদের সাহায্য নিচ্ছেন কখনোবা নারীত্বের দুর্বলতাকে কাজে লাগাচ্ছেন। ফলে আতঙ্কিত রফিকুল ইসলাম ১৭ই জুলাই রংপুর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে রামনাথপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন এবং এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বদরগঞ্জ থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। এছাড়া ২২শে জুলাই মজিবুল হক নিজেদের নিরাপত্তা চেয়ে রংপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করেন। বর্তমানে এ দু’টি মামলারই আদালতে শুনানি চলছে। অবশ্য এর আগে ১৫ই জুন  জেন্নাতুন্নেছার আবেদনের প্রেক্ষিতে বদরগঞ্জ থানা পুলিশে বিরোধপূর্ণ জমিতে ১৫৪ ধারা জারি করে।
এদিকে এলাকা ঘুরে জানা গেছে- আসামিরা আত্মগোপনে থাকায় জেন্নাতুন্নেছা ও তার সতীন জাহানারা দু’জনে মিলে রফিকুল ও মজিবুলের মালিকানাধীন ৭০ শতক জমির রোপা আমন চারা উপড়ে ফেলেছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেন্নাতুন্নেছার ভাই নূরুল আমিন সরকার বোনকে মারধরের বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, রফিকুল ও মজিবুল একত্রে মিলে আমাদের কবলাকৃত জমিও বেদখল দিয়েছে। এ কারণে সাংঘাতিক রকমের গণ্ডগোল হচ্ছে।
তবে বিষয়টি অস্বীকার করে রফিকুল ও মজিবুল বলেন, আমরা অশিক্ষিত মানুষ। ভূমি জরিপকালে চাচাতো ভাই আবদুল মজিদকে দায়িত্ব দিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি যে আমাদের জমি নিজের নামে করবেন এটা কখনোই বিশ্বাস করতে পারিনি। তার মৃত্যুর পর তার দু’স্ত্রীসহ শ্যালক শামসুল হক সরকার ও নূরুল আমিন সরকার যখন জমি দখল করার চেষ্টা করেন তখনই বিষয়টি জানতে পারি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সিলেটে বিএনপির সমাবেশ যথা সময়ে হবে : ডা. জাহিদ

ক্লাবগুলো কলঙ্কিত করলো যারা

আচমকা দৃশ্যপট বদলে গেল

প্রধানমন্ত্রী বলে গেছেন অভিযান অব্যাহত রাখতে

মোল্লা আবু কাওছার বিদেশে

ব্যাংক হিসাব জব্দ শামীমের অ্যাকাউন্টে ৩০০ কোটি টাকা

ক্যাসিনোপাড়ার শতাধিক বিদেশি লাপাত্তা

প্রতি রাতে উড়তো কোটি কোটি টাকা

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

নারায়ণগঞ্জে নব্য জেএমবি’র দুই সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৩

নেতাকর্মীদের আগ্রহ নেই

যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক নজরদারিতে

আফগানিস্তানে জঙ্গি ঘাঁটিতে সেনা অভিযানে বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

ফু ওয়াং ক্লাবে পুলিশের অভিযান

ভারতে দেহব্যবসায় বাধ্য করানো ৮ বাংলাদেশি যুবতীকে উদ্ধার

গোল্ডেন ড্রাগন বারে চলছে পুলিশের অভিযান