ডেঙ্গুতে মৃত্যু থামছে না

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ১৮ আগস্ট ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৫৫

স্বজনের আহাজারি
ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। সরকারি হিসাবে গত দুইদিন ধরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা কিছুটা কমলেও প্রতিদিনই পাওয়া যাচ্ছে মৃত্যুর খবর। গতকাল ঢাকা ও ফরিদপুরে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪০ বলা হলেও বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা একশ’ ছাড়িয়েছে কয়েকদিন আগেই। আর সরকারি হিসাবেই আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা কয়েক গুণ। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১ হাজার ৪৬০ জন নতুন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা শহরে ভর্তি হয়েছেন ৬২১ জন।
আর ঢাকার বাইরের শহরগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ৮৩৯ জন। ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আয়োজিত এক ব্রিফিংয়ে রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক সানিয়া তহমিনা বলেন, ‘আগামী সাতটা দিন আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। আবহাওয়া আমাদের অনুকূলে নয়। আমরা যদি এডিসের দুর্গে আঘাত হানতে না পারি, তাহলে পরিস্থিতি কী হবে বলা মুশকিল। এ ছাড়া স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদও বলেছেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি কোন দিকে যাবে তা বুঝতে সপ্তাহ খানিক সময় লাগবে। ব্রিফিংয়ে অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমাদের এখন উচিত নিজেদের এডিস মশা থেকে দূরে রাখার সমস্ত পন্থা অবলম্বন করা।

এদিকে, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মনোয়ারা বেগম (৪৫) নামের এক নারী মারা গেছেন। গতকাল সকাল পৌনে ১১টায় তার মৃত্যু হয়। মনোয়ারা বেগমের বাড়ি কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে। তাঁর স্বামীর নাম সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই মনোয়ারার জ্বর ছিল। স্থানীয় ভাগলপুর হাসপাতালে তাঁর ডেঙ্গু ধরা পড়ে। সেখানে চিকিৎসা নেয়ার সময় অবস্থার অবনতি হলে গত মঙ্গলবার তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়। পরে তাঁকে আইসিইউতে নেয়া হয়। এদিকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি মাগুরায়। হাসপাতালটির সহকারী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান বুলু জানান, শনিবার সকালে সুমন মোল্লা (১৭) নামের এই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। সুমন মাগুরা সদর উপজেলার ধলহরা চাঁদপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে। সে স্থানীয় শত্রুজিৎপুর কলেজের উচ্চমাধ্যমিক প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিল। সুমনকে ১২ই আগস্ট বিকালে এই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার মস্তিস্কে সংক্রমণ দেখা দিয়েছিল। এর আগে তাকে মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জাফর আহমেদ

২০১৯-০৮-১৭ ১১:৩৭:০৯

কিছু দিন লেখালেখি। তোড়জোড়ও চোখে পড়লো । কিন্তু এখন সবাই নিরব । অন্য সব কিছুর মতো সবাই ভুলে গেছেন। আর নিরবেই ঝরে যাচ্ছে একের পর এক প্রান । কখনো কি এদেশের মানুষকে মানুষ ভাবা যায় না। আল্লাহ তাআলা অবশ্যই ক্ষমতাধরদের ও বিচার করবেন।

আপনার মতামত দিন



প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

করোনায় মৃত্যু ২০০০ ছাড়ালো

সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত বাংলাদেশি সংকটাপন্ন

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

করোনা নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে কারা?

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

৩০ টাকার মাস্ক ১২০

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ফাইলবন্দি সুপারিশ

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ঢাকা সিটি নির্বাচন

রিটার্নিং কর্মকর্তার গেজেট প্রকাশ নিয়ে বিতর্ক

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার উন্মুক্তকরণ

জেডব্লিউজি’র বৈঠক হচ্ছে মন্ত্রীর সফর অনিশ্চিত

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রাজনৈতিক বাহাস

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী

মোদি আসছেন, ঢাকা ঘুরে গেল অগ্রবর্তী দল

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত