পাঁচ জেলায় সড়কে ঝরলো ৭ প্রাণ

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৪ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, ১১:২২
ঈদ মুহূর্তে দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে নরসিংদীতে ২, গাইবান্ধায় ২, কুমিল্লা, নাটোর ও টাঙ্গাইলে ১জন করে নিহত হয়েছেন।  আজ বুধবার ও গতকাল রাতে এসব দুর্ঘটনা ঘটে।
নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোরের বড়াইগ্রামে পুলিশের পিকআপ ও প্রাইভেটকারের সঙ্গে সংঘর্ষে প্রাইভেটকার চালক শাহজাহান আলী নিহত হয়েছে। এসময় আহত হয়েছেন বড়াইগ্রাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ, সার্কেল এএসপির বড়ি গার্ড ইব্রাহিম হোসেন এবং গাড়ী চালক মোবারক হোসেন। আহতদের স্থানীয় আমেনা ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়ার পর নাটোর সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। বুধবার সকালে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের মহিষভাঙ্গা রোড় এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমার জানান, বুধবার সকালে বনপাড়া থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বড়াইগ্রাম থেকে বনপাড়া যাওয়ার সময় সার্কেল এএসপির গাড়ীর সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে দুমড়ে মুচরে যায় প্রাইভেটকারটি। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাইভেটকার চালক শাহজাহান আলীর মৃত্যু হয়। পরে পুলিশের গাড়িতে থাকা বড়াইগ্রাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ সহ ৩জন আহত হয়। দীর্ঘ সময় গাড়ী চালানোর কারনে প্রাইভেটকার চালক ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। যার কারনে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ ছিলনা বলে জানান ওসি দিলীপ কুমার। নিহত প্রাইভেটকার চালক শাহজাহান আলী মুন্সিগঞ্জ জেলার কাচারিঘাট এলাকার মৃত ইমান আলীর ছেলে। এদিকে, খবর পাওয়ার পেয়ে ঘটনাস্থলে যান পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা সহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা।
নরসিংদীর শিবপুরে যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার চান্দারটেক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- শিবপুরের ধানুয়া গ্রামের হারুন মিয়ার মেয়ে লামিয়া আক্তার (২৪) ও একই উপজেলার বৈলাব গ্রামের সিএনজি চালক রিপন মিয়া (৩৫)। নিহত লামিয়া আক্তার পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন লামিয়ার মা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা আসমউল হুসনা, মজিবুর রহমান (২৬) ও রহিম (৩৮)। নিহত ও আহতরা সবাই সিএনজির যাত্রী। শিবপুর থানা পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে উপজেলার চান্দারটেক এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা মঠখলাগামী রয়েল পরিবহনের সঙ্গে ইটাখলাগামী একটি সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সিএনজিচালক রিপনের মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর চিকিৎসকরা লামিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে বাকিদের অবস্থার অবনতি হলে তাদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য আহত দুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।
ঈদ উদযাপন শেষে গ্রামের বাড়ি থেকে ঢাকায় ফেরার পথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মুন্সিগঞ্জের ভবেরচর এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও আয়কর আইনজীবী ফরিদ উদ্দিন আহমেদ (৬৫) । একই দুর্ঘটনায় তার ছেলের মেয়ে মাসরুকা (২) ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে।
মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুর্ঘটনায় আহত এড. ফরিদের মৃত্যু হয়। ওই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত ফরিদের স্ত্রী ও ছেলেকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে দেবিদ্বার উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন জানান, দেবিদ্বারের মোহাম্মদপুর গ্রামে ঈদুল আজহা উদযাপন শেষে এড.ফরিদ পরিবারের ৫ সদস্য নিয়ে একটি মাইক্রোবাসযোগে ঢাকায় ফিরছিলেন। ভবেরচর এলাকায় পৌঁছালে ট্রাক চাপায় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ঢাকায় নেওয়ার পর রাত সোয়া ৮টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান এড. ফরিদ। নিহতের স্ত্রী ও ছেলেকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়েছে। তাদেরও অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
গাইবান্ধায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন আরো দুই ব্যক্তি। মঙ্গলবার  রাত ১০টার দিকে গাইবান্ধা-দাঁড়িয়াপুর সড়কের ঠাকুরের দীঘি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহত দুই হলেন, সিএনজিচালক গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটি ইউনিয়নের মাঠের বাজারের মজনু মিয়ার ছেলে খোরশেদ আলম (৩৩) ও সিএনজির যাত্রী সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ল্যাংরার বাজারের আবুল হোসেনের ছেলে রোমান মিয়া (২২)। আহতদের মধ্যে গাইবান্ধা সদরের খোর্দ্দমালিবাড়ি গ্রামের লোকমান হোসেন (২৭) ও মাঠের পাড়ার আরিফ মিয়ার (৩০) নাম জানা গেছে। তারা দু’জন সিএনজির যাত্রী। স্থানীয়রা জানায়, রাতে যাত্রীবাহী একটি সিএনজি গাইবান্ধা থেকে দাঁড়িয়াপুর বাজারের দিকে যাচ্ছিল। পথে ঠাকুরের দীঘি এলাকায় বিপরীতমুখী বিয়ের যাত্রীবাহী একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে সিএনজিটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সিএনজিচালক খোরশেদ নিহত হয়। এসময় আহত হয় চার সিএনজি যাত্রী। আহতদের উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিএনজি যাত্রী রোমানের মৃত্যু হয়।
টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় এক মানসিক প্রতিবন্ধী নিহত হয়েছেন। নিহত ওই ব্যক্তির নাম নিশ্চিত হওয়া যায়নি।  বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের মধুপুর উপজেলার বিমান ঘাঁটি এলাকার টেলকিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মধুপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হান্নান জানান, সকালে মানসিক প্রতিবন্ধী ওই ব্যক্তি রাস্তার পাশ দিয়ে হাঁটছিলেন। তখন কোনো একটি গাড়ি তাকে চাপা দেয়। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন