সুষমা স্বরাজ আর নেই

ভারত

অনলাইন ডেস্ক | ৭ আগস্ট ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:০০
না ফেরার দেশে চলে গেলেন ভারতের সা‌বেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ।  মৃত্যুকালে  তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় মঙ্গলবার রাতে নয়া দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স (এআইআইএমএস) হাসপাতালে ভর্তির পরপরই তার মৃত্যু হয় বলে ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে। তিন বছর আগে তার কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। তার মৃত্যু‌তে গভীর শোক প্রকাশ ক‌রে‌ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মো‌দি, রাষ্ট্রপ‌তি রামনাথ কো‌বিন্দসহ দেশ‌টির বি‌ভিন্ন দ‌লের নেতারা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রিপন

২০১৯-০৮-০৭ ২০:১৮:৩৪

এরকম অনেকেই নাই হয়ে গেছে এবং হবে ও হওয়ার পথে আছে। মানুষকে নিয়ে সমস্যা হলো জীবদ্দশায় তারা একটিবারও ভাবতে চায় না কোথা থেকে এলাম, কেন এলাম, আর পল পল হরপল যাচ্ছিই বা কোথায়? বাজারে বম বম করে উদ্ভ্রান্ত হয়ে ঘুরে ফেরা পাগলের মতো তারা। কোথা থেকে এলো, কোথায়ই বা চলেছে এসবের কোন জবাবই উদ্ভ্রান্ত পাগল জানে না। মানবজীবনের উদ্দেশ্য কী সেটি জানা তো দূরের কথা। মানুষ বরং আরও বেশি উদ্ভ্রান্ত; - দর্শনের ওসব নিগূঢ় প্রশ্নকর্তাকে উল্টো জঙ্গী মৌলবাদী কত তকমাই না অবলীলায় সেঁটে দেয়। "মানুষ" বলতে এখানে মানুষরূপী ভোগসর্বস্ব জানোয়ারদের কথা বলা হয়েছে। জানোয়ার শুয়োরের মতো ওদের কাছে জীবন হলো কেবল উদরপূর্র্তি আর বংশবৃদ্ধি। এভাবেই শুয়োরের পালে এখন দুনিয়া বোঝাই, এই শুয়োরের ভীড়ে সেই আসল মানুষ নাই। এভাবে ধরাধামে পালে পালে শুয়োর আসছে, যাচ্ছেও চলে। যে গেল তার জীবনালেখ্য জানতে পেলে সহজ হতো নির্ণয় করা এটি শুয়োর গেল, না, মানুষ গেল। মিডিয়ার উচিত হবে তিরোধানের খবরটির সাথে সাথে বিদায়ীদের জীবনালেখ্য সংক্ষেপে উল্লেখ করে পাঠক পাঠিকাকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়া বিদায়ীজন এই এই সুকীর্তি করে গেছে বা ওই ওই বাঁশ দিয়ে গেছে এবং তার তিরোধানে মানবজাতির এই এই অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেছে কিংবা মানবজাতি হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে। মিডিয়া নিজেই জীবনালেখ্য জানে না, আমরা জানবো কী করে? আর, কিছু না জেনে আন্দাজে কী করে হাসবো অথবা আহা উহু করবো?

MizanurRahman

২০১৯-০৮-০৬ ১৬:৩০:০৪

মানুষ দুনিয়াতে আসবে এবং আল্লাহতাআলার বিধান অনুযায়ী চলে যাবে, এটাই স্বাভাবিক নিয়ম। অবাক হওয়ার কিছু নেই। যেহেতু বেচে থাকার কোন গ্যারান্টি নেই। মনে রাখতে হবে হায়াতের মালিক আল্লাহসুবহানুতাআলা। দুনিয়ার জন্য বেশি দৌড় ঝাপ না করাই উত্তম কাজ। কারণ দুনিয়া হচ্ছে সীমিত সময়ের জন্য। আখেরাত অনন্তকাল। এটার জন্য competition করা জায়েজ। মনে রাখতে হবে হারামে কোন আরাম নেই।

Emon

২০১৯-০৮-০৬ ১৫:১৪:২১

ওদের মৃত্যুর খবর দিয়ে আমরা কি করব। দেশের অনেক খবর আছে তার দিকে মনোযোগ দিন।

কুদ্দুস বাইয়াতি

২০১৯-০৮-০৭ ০২:২৪:৫৩

উনি এবং জ্যোতি বসু বাংলাদেশ, বাংলাদেশ গণতন্ত্র ও এ দেশের জনগণের এই সীমাহীন দুর্দশার ও যে ক্ষতি করে গেছেন, আগামীর ইতিহাস তা কোনোও দিন ক্ষমা করবে না।

জাফর আহমেদ

২০১৯-০৮-০৬ ১২:১০:২৮

বাংলাদেশের আজকের এই দুর‌অবস্তার জন্য দায়ী দের একজন ছিল এই মহিলা।

আপনার মতামত দিন

খালেদার মুক্তির বিষয়ে আন্তর্জাতিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে: ফখরুল

ডেঙ্গুতে মৃত্যু থামছে না

উফ! কী মর্মান্তিক

‘হাত-পা বেঁধে নাইমকে শ্বাসরোধ করে খুন করি’

চামড়া বিক্রি করছেন না আড়তদাররা

ঢাকায় সড়কে বাড়ছে মৃত্যু

কাশ্মীর সংকট গুরুতর, উদ্বেগজনক

জিএম কাদেরকে সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা হওয়ার প্রস্তাব

আয়কর বিতর্কে কলকাতার দুর্গাপূজো

ডেঙ্গু আক্রান্ত মেয়ে হাসপাতালে এদিকে ঘর পুড়ে ছাই

ওদের সব পুড়ে শেষ

‘কাজ চাই রিলিফ চাই না’

লণ্ডভণ্ড শিডিউল ঠিক হয়নি এখনো

৭ বছর পর পরিবারকে ফিরে পেয়ে আবেগাপ্লুত খাদিজা

ডেঙ্গু কেড়ে নিয়েছে কিশোরগঞ্জের ছয় প্রাণ

প্রশ্নকারী মডারেটর পরীক্ষক খুঁজছে পিএসসি