সাত কলেজ বাতিলের দাবি

অচল ঢাবি, শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরার আহ্বান ডাকসুর

দেশ বিদেশ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:২১
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে গতকালও অচল ছিল বিশ্ববিদ্যালয়টি। সকাল থেকেই ভবনে ভবনে ঝুলে তালাবদ্ধ ছিল সব ধরনের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম। বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলে নিজেদের অনড় অবস্থানের কথা জানান দেয় শিক্ষার্থীরা। সহস্র শিক্ষার্থীর এ আন্দোলন দুপুর ২টার দিকে গতদিনের মতো শেষ হলেও দাবি আদায়ে আজ ফের মাঠে থাকার ঘোষণা দেন তারা। বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানায়। শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক ও ন্যায় সঙ্গত আন্দোলনে পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন করে ডাকসু সমস্যার সমাধানে সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের হয়ে আলোচনা করার কথাও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করে। তবে শিক্ষার্থীরা বলছেন প্রশাসনের কাছ থেকে সাত কলেজ বাতিলের লিখিত সিদ্ধান্ত পাওয়ার আগে আন্দোলন থেকে সরে আসবেন না তারা। জানা গেছে, পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকাল ৬টার দিকে প্রশাসনিক ভবন, কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ, মোকাররম ভবন, মোতাহার হোসেন ভবনসহ অন্যান্য একাডেমিক ভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় আন্দোলনকারীরা। তালা লাগানোর পর তা যাতে কেউ খুলতে না পারে সেজন্য চাবি প্রবেশের জায়গায় প্রথমে মাটি দিয়ে পরে সুপার গ্লু দিয়ে আটকিয়ে দেয়া হয়। কেউ যেন তালা না খুলে সেটা দেখার জন্য বিভিন্ন ভবনের সামনে আন্দোলনকারীদের বিভিন্ন গ্রুপ অবস্থান নেয়। তালাবদ্ধ এসব ভবনে লাগানো হয় ফেস্টুন। এতে লেখা ছিল ‘লাগাও তালা, বাঁচাও ঢাবি’, ‘ঝুলবে তালা ঝুলবে, আন্দোলন চলবে’। ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ থেকে অধিভুক্তি বাতিলসহ আন্দোলনকারীদের চার দফা দাবির মধ্যে আছে- বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসা, দুই মাসের মধ্যে সকল পরীক্ষার ফলাফল দেয়া, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সকল ধরনের বহিরাগত যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ ও রিকশা ভাড়া নির্ধারণ। এদিকে সকালে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কর্মীদের বাকবিতণ্ডার খবর পাওয়া গেছে। সকাল ১০টার দিকে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহ্বায়ক ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দিন ও ঢাবি শাখা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল তাদের কয়েকজন নেতাকর্মীসহ এসে সামাজিক বিজ্ঞান ভবনের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়ান। দুপুরে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সামনে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে ডাকসুর সদস্য রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য সমস্যার সমাধানে নিজেদের অবস্থানের কথা শিক্ষার্থীদের জানান। তিনি বলেন, ডাকসু সাত কলেজ নিয়ে উদ্বুদ্ধ সমস্যার সমাধানে রাষ্ট্রপতির শিডিউল চেয়েছে। যেহেতু ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে নেই আর শিক্ষামন্ত্রী অসুস্থ সেহেতু রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বসে বিষয়টির সমস্যার সমাধানে চেষ্টা করা হবে। এ ছাড়াও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সামনে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ডাকসু শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে সমর্থন দিচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা আপনাদের আন্দোলনের সঙ্গে আছি। আমরাও চাই এর একটি সমাধান হোক। কোন ধরনের পূর্ব পরিকল্পনা ছাড়া প্রশাসন এ সাতটি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি করার খেসারত দিতে হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের। নুর বলেন, আপনাদের আন্দোলন প্রশাসনের বিরুদ্ধে সাত কলেজের বিরুদ্ধে না। এটা সবাই মনে রাখবেন। তিনি বলেন, আমরা চাই আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে যেন অধিভুক্ত কলেজগুলোতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ভর্তি না করে। এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ায় বিকালে এক বিজ্ঞপ্তিতে ডাকসু শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানায়। ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর এবং জিএস গোলাম রাব্বানী স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র-সংসদ শিক্ষার্থীদের সব যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন করছে ডাকসু। কিন্তু ভিসি বর্তমানে দেশের বাইরে থাকায় কোনো ধরনের কার্যকর ও ফলপ্রসূ সিদ্ধান্ত নেয়া যাচ্ছে না। আগামীকাল ভিসি দেশে ফিরলে উদ্ভূত সমস্যা সমাধানে ডাকসু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এতে আরো বলা হয়, ডাকসু শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে সর্বদা সোচ্চার। গতকাল বিকাল ৫টায় ভিসির কার্যালয় সংলগ্ন লাউঞ্জে প্রো-ভিসি (প্রশাসন)’র নেতৃত্বে কোষাধ্যক্ষ, রেজিস্ট্রার, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও ডাকসু নেতাদের সঙ্গে আলোচনা হয়। শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে সব শিক্ষার্থীকে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে ডাকসু।’ তবে ডাকসুর পক্ষ থেকে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানানো হলেও আন্দোলনে অটল শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী মো. শাকিল মিয়া বলেন, যতদিন প্রশাসনের পক্ষ থেকে অধিভুক্তি বাতিলের লিখিত সিদ্ধান্ত না জানানো হবে ততোদিন পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। দাবি আদায় হওয়ার আগ পর্যন্ত আন্দোলন থেকে সরে আসার কোনো যৌক্তিকতা নাই।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সারাদেশে র‌্যালি করবে বিএনপি

হাইকোর্টের নতুন বেঞ্চে মিন্নির জামিন আবেদনের শুনানি

কোহলিদের প্রাণনাশের হুমকি!

তিন তালাক: গৃহবধুকে পুড়িয়ে হত্যা

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির অবস্থা অতিসঙ্কটজনক

ইরানের ১৩ কোটি ডলারের তেলবাহী সেই ট্যাংকার ছেড়ে দিয়েছে জিব্রাল্টার

এক বছর নিষিদ্ধ শেহজাদ

মেসিহীন আর্জেন্টিনা দলে নেই আগুয়েরো-ডি মারিয়াও

সড়ক মন্ত্রীর বিদায়ের পরই চলন্তিকায় ক্ষোভ, প্রতিবাদ

এফ আর টাওয়ারের মালিক ফারুক গ্রেপ্তার

ইতিহাসের প্রথম বদলি ব্যাটসম্যান ল্যাবুশান

বিশ্ববাসীকে জেগে উঠার আহ্বান ইমরানের

ফরিদপুরে ডেঙ্গুজ্বরে মসজিদের খাদেমের মৃত্যু

পদ্মায় গোসলে নেমে নিখোঁজ কিশোরের লাশ উদ্ধার

ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে বাবা খুন

জাকির নায়েকের জন্য ক্রমশ সংকুচিত হচ্ছে মালয়েশিয়া