প্রিয়া সাহার বক্তব্যের সঙ্গে একমত নন আবুল বারকাত

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২২ জুলাই ২০১৯, সোমবার, ৬:৪৯ | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৫৬
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের যে তথ্য উপস্থাপন করেছেন প্রিয়া সাহা তার সঙ্গে একমত নন অর্থনীতিবিদ ড. আবুল বারকাত। ড. বারকাতের গবেষণার বরাত দিয়ে ওই তথ্য দিয়েছেন বলে প্রিয়া সাহা এক ভিডিও বার্তায় দাবি করেন। প্রিয়া সাহা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দেশত্যাগ ও সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কিছু তথ্য-উপাত্ত বিকৃতভাবে উপস্থাপন করেছেন উল্লেখ করে গণমাধ্যমে একটি ব্যাখ্যা পাঠিয়েছেন আবুল বারকাত।

এতে তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে সাক্ষাতকালে তিনি (প্রিয়া সাহা) বলেছেন যে, বাংলাদেশে ৩৭ মিলিয়ন (৩ কোটি ৭০ লাখ) হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান নিখোঁজ রয়েছেন। এর পরে ভিডিও-সাক্ষাতকারে তিনি আমরা নাম উল্লেখ করে বলেছেন যে, উল্লেখিত পরিসংখ্যান আমার গবেষণা উদ্ভূত তথ্য-উপাত্তের সঙ্গে মিলে যায় (অথবা একই)। তিনি এও বলেছেন যে, বাংলাদেশ থেকে প্রতিদিন ৬৩২ জন লোক হারিয়ে যাচ্ছে।

আবুল বারকাত তার গবেষণার উদ্বৃতি দিয়ে বলেন, আমার হিসেবে প্রায় পাঁচ দশকে (১৯৬৪ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত) আনুমানিক ১ কোটি ১৩ লক্ষ হিন্দুধর্মাবলম্বী মানুষ নিরুদ্দিষ্ট হয়েছেন (উৎস: আবুল বারকাত, ২০১৬, বাংলাদেশে কৃষি-ভূমি-জলা সংস্কারের রাজনৈতিক অর্থনীতি, পৃ:৭১)। অর্থাৎ আমি কোথাও ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান নিখোঁজ রয়েছেন-এ কথা বলিনি। উপরন্তু‘ তিনি কোথাও বললেন না যে আমার গবেষণা তথ্যটির সময়কাল ৫০ বছর-১৯৬৪ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত।

বারকাত বলেন, প্রিয়া সাহা কখনও আমার সহ-গবেষক, গবেষণা সহযোগী অথবা গবেষণা সহকারী ছিলেন না। ২০১১ সালে সরকারি আদমশুমারির তথ্যের ভিত্তিতে ১৯০১ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত মোট জনসংখ্যায় বিভিন্ন ধর্মগোষ্ঠির আনুপাতিক হার উল্লেখ করেছি মাত্র। একজন সমাজ গবেষক হিসেবে আমি নিশ্চিত হতে চাই যে প্রিয়া সাহা আমার নাম উল্লেখপূর্বক যেসব বিভ্রান্তিমূলক ও নীতি গর্হিত বক্তব্য দিয়েছেন তিনি অতি দ্রুত তা প্রত্যাহার করবেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mustafa Ahsan

২০১৯-০৭-২৩ ২২:২৮:৫৬

ঘুমের ওষুধ খেয়ে জাতি ঘুমাচ্ছে।মন্তব্য করলেই বিপদ ছাপানো হচ্ছে না........

শহীদ

২০১৯-০৭-২২ ১৯:৫৯:৫২

হিন্দুদের অনেকে তাদের পবিত্র তীর্থ ভুমিতে সমাহিত হওয়ার জন্য বাংলাদেশ ছাড়ে। ভুমি দস্যু কর্তৃক রাজনৈতিক আশ্রয়ে নিম্মবিত্ত কিছু হিন্দুদের উপর অত্যাচার চল্লেও সেটা মৌলবাদি বলা যায় না। কোন ইসলামিক হিন্দুদের উপর আক্রমণ করেনি। বরং সহায়তা করেছে। হিন্দুদের অনেকে বাংলাদেশে চাকরি করে এবং কী পেনশন বিক্রি করেও ভারতে চলে যায়। তাদের কে বাধ্য করছে? আবার অনেকে ফিরে আসে খাপ খাওয়াতে পারে না বলে। দীর্ঘ পরিচয়ের সামাজিক সম্পর্ককে বাদ দিয়ে শান্তি পায় না বলে।

Siddique

২০১৯-০৭-২২ ০৬:২০:১০

Development of conspiracy against our homeland....

আপনার মতামত দিন

তিন বিচারপতির বিরুদ্ধে তদন্ত

ইতিহাস গড়তে চান পাপন-ডালিয়া

যারা প্ররোচনা দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী (অডিও)

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর ডানা মেললো ‘গাঙচিল’

শামীমের লাশ মিললো কুমিল্লায়, নানা নাটকীয়তা

২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ১৫৯৭ জন হাসপাতালে ভর্তি

এডিসের লার্ভা নিয়ে হার্ডলাইনে সিসিক

বাসাবাড়িতে অভিযানে সুফল মিলবে কি?

দক্ষিণে যেভাবে চলছে অভিযান

ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদের ইন্দোনেশিয়া সেনা সদর পরিদর্শন

২১শে আগস্ট নিয়ে রাজনীতি করছে আওয়ামী লীগ: রিজভী

ওঝার কাণ্ড

অনিশ্চয়তায় প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া

সিলেটে আলোচিত যুবলীগ নেতা জাকির আটক

প্রমাদ গুনছে ভারতের অন্য রাজ্যগুলোও