ভারত-পাকিস্তানে চোখ মাশরাফির

বাংলাদেশ কর্নার

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৬ জুন ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:২৭
আফগানিস্তানকে হারিয়ে এবার মিশন ভারত-পাকিস্তান। সোমবার নিজেদের সপ্তম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৬২ রানে হারায় টাইগাররা। তবে এবার সামনের ম্যাচগুলোর দিকে চোখ দিতে চান টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘আমি সমর্থকদের বলতে চাই। আমরা আমাদের সর্বোচ্চটা দেয়ার চেষ্টা করবো ভারত ও পাকিস্তান ম্যাচে।’
আগামী ২ই জুলাই ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। বার্মিংহামের এজবাস্টনে হবে ম্যাচটি। এর মাঝে এক সপ্তাহের মতো বিরতি পাবে টাইগাররা। সেমিফাইনালের লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে জয় পেতে হবে মাশরাফি বাহিনীকে।
সোমবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের নায়ক সাকিব আল হাসান।
ব্যাটে বলে সমান নৈপূর্ণ দেখিয়েছেন এই তারকা অলরাউন্ডার। ম্যাচ শেষে সাকিবকে প্রসংশায় ভাসান মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘সাকিব চমৎকার খেলেছে। সে ম্যাচে রান করেছে, বল হাতে উইকেট নিয়েছে।’ এবারের আসরে দুর্দান্ত সাকিব ব্যাট হাতে দুটি সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছে। আর তিনটি হাফসেঞ্চুরির ইনিংস খেলেছেন তিনি। বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ৪৭৬ রান সংগ্রহ করেছেন এই অলরাউন্ডার।
এদিন সবাই দলের জয়ে ছোট ছোট অবদান রাখে। শুরুতে তামিম ইকবালের সর্তক ব্যাটিং। তামিমের ব্যাটিং থেকে আসে ৩৬ রান। এছাড়াও ৮৩ রানের ইনিংস খেলেন মুশফিকুর রহিম। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ করেন ২৭ রান। ইনিংসের শেষের দিকে মোসাদ্দেকের ৩৫ রান করেন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে দলের পারফরমেন্সে খুশি টাইগার দলপতির। দলের পারফরমেন্স নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘দলের সবাই ভালো খেলেছে। সাকিব ও মুশফিকের দুর্দান্ত জুটি গড়েছিল সেটা গুরুত্বপূর্ণ। তামিম ভালো ব্যাটিং করেছে। এবং রিয়াদও  গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছে।’
মাহামুদুল্লাহ রিয়াদের চোট নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘ফিজিও তাকে (মাহামুদুল্লাহ) আবারো দেখবে। আমাদের পরের ম্যাচ এখনো এক সপ্তাহ বাকি আছে। বেশ কয়েকদিন সময় পাবে। আশা করি এর মধ্যেই সে সুস্থ হয়ে মাঠে ফিরবে।’ সাত ম্যাচে ৩ জয় ও ৩ হারের ৭ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার পঞ্চম স্থানে আছে বাংলাদেশ (১ ম্যাচ পরিত্যক্ত)।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওয়াশিংটনে ইমরান খান যা বললেন

ট্যাংকার জব্দ: ইরান-বৃটেন উত্তেজনা অব্যাহত

‘টিভি চ্যানেলগুলো নাচের শিল্পীদের যথাযথ মূল্যায়ন করে না’

বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে

নৈরাজ্য

১৯ জনকে গণপিটুনি নিহত ৩

মার্কিন দূতাবাসের দুরভিসন্ধি

মিন্নির জামিন মেলেনি

পুঁজিবাজারে একদিনেই ৫ হাজার কোটি টাকার মূলধন হাওয়া

মশায় অতিষ্ঠ মানুষ ঘরে ঘরে ডেঙ্গু আতঙ্ক

অর্থনৈতিক কূটনীতির ওপর গুরুত্ব দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে অচল ঢাবি

যে কারণে সিলেটে মহিলা কাউন্সিলর লাকীর ওপর হামলা

৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ ও পানিবিহীন শাহজালাল বিমানবন্দর

সাত দিনের মধ্যে প্রথম কিস্তি পরিশোধের নির্দেশ

এ যেন খোঁড়াখুঁড়ির নগরী