দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের শাস্তি দেয়া হবে: কাদের

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩১
স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বলেছেন, বিভিন্ন নির্বাচনে যারা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। দলের পরবর্তী কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। অক্টোবরে দলের জাতীয় কাউন্সিলের আগেই মেয়াদোত্তীর্ণ আওয়ামী লীগের সব ইউনিট এবং সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন শেষ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। গতকাল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। আগামী ২৩শে জুন দলের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সফল করতে এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রতিককালে শৃঙ্খলা বিচ্যুতি নিয়ে আমাদের নেত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছি। পরবর্তী দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে আমরা শৃঙ্খলার ব্যাপারে আরো কঠোর হবো।
যারা শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। নেত্রীও এমন আভাস দিয়েছেন। তিনি বলেন, দলের সহযোগী সংগঠনগুলো যাদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে, তাদের দলের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে সম্মেলন করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কেবল সহযোগী সংগঠন নয়, আওয়ামী লীগের জেলা, মহানগর, উপজেলা ও থানা শাখার যেসব কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে, তাদেরও  সম্মেলন শেষ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দলের জাতীয় সম্মেলনের আগেই তাদের সম্মেলন করার এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কমিটি করতে গিয়ে নিজের লোক না খোঁজার জন্য নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কমিটি করতে গিয়ে নিজের লোক না খুঁজে দলের লোক খুঁজবেন। কেউই নিজের থাকবে না। সবাই আওয়ামী লীগের, সবাই শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকবে। মনে রাখবেন, নিজের লোক কখনও চিরস্থায়ী থাকে না, দলে কারো দায়িত্ব চিরস্থায়ীও নয়। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দায়িত্বে থাকতে স্বচ্ছতার সঙ্গে ভাল কাজ ও সৎভাবে চলতে হবে। তাহলেই দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার পরও সবাই সম্মান করবেন, সালাম দেবেন। আর দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কোটারি করলে, দলের মধ্যে উপদল সৃষ্টি করলে এবং ঘরের মধ্যে ঘর করতে গেলে, দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার পর কেউ সালামও দেবে না। তাই দলের জন্য কাজ করুন। দলের দু:সময়ের নেতাকর্মীদের অবহেলা করবেন না। যারা অসহায় অসচ্ছল তাদের পাশে দঁাঁড়ান। সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু থেকে দলের অভ্যন্তরীণ কলহ ও কোন্দলের কারণগুলো দূর করার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দু’জন মানুষের দিকে তাকিয়ে রাজনীতি করুন। বঙ্গবন্ধু এবং শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পড়ুন। এটা পড়লে কারোরই বিপথে পরিচালিত হওয়ার সুযোগ থাকবে না। বঙ্গবন্ধু নেই, কিন্তু তার জীবনের ইতিহাস থেকে শিখতে হবে। আর শেখ হাসিনা কি অসম্ভব পরিশ্রম করেন, কল্পনাও করা যায় না। রাত দুইটায় ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়। বাংলাদেশের রাজনীতিতে তিনি বিরল দৃষ্টান্ত। সর্বক্ষণ তিনি এই দল নিয়েই আছেন, দলের সুখ-দুঃখের অংশীদার হিসেবে আছেন। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি সরকারের জন্য আটকে আছে- বিএনপির এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি কেবল আদালতই দিতে পারে। এখানে সরকারের কোন হস্তক্ষেপ নেই। আওয়ামী লীগ সরকার কখনওই আদালতের উপর হস্তক্ষেপ করে না। বিএনপির এই সকল অভিযোগ অবান্তর ও হাস্যকর।
ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতউল্লাহ এমপির সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, নগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান এমপি, নগর নেতা শেখ বজলুর রহমান, এস এম মান্নান কচি, কাদের খান, ওয়াকিল উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম আমিন, গোলাম মোস্তফা, ডেইজি সারোয়ার, আজিজুল হক রানা প্রমুখ।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শ্রীলঙ্কায় যাচ্ছেন না মাশরাফি

পানিবন্দি মানুষ মানবেতর জীবন

‘তুইতোকারিকে’ কেন্দ্র করে চার খুন

ঢাকায় বাড়ছে জীবনযাত্রার ব্যয় কাবু মধ্যবিত্ত

আদালতে মিন্নির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

ভয়ঙ্কর মাদক আইস ছড়িয়ে দিচ্ছে আন্তর্জাতিক চক্র

দুই মামলা, আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ পুলিশের

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসির সংশ্লিষ্ট বিভাগের ছুটি বাতিল

দুর্নীতিকে দুর্নীতি হিসেবেই দেখব- ওবায়দুল কাদের

সিলেটে ধর্ষিতার স্বামীর ফরিয়াদ

কাঁচাবাজারে বন্যার প্রভাব

কিশোর গ্যাংয়ের অন্তর্দ্বন্দ্বে খুন

পাকুন্দিয়ায় নিহত স্কুলছাত্রীর ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত

টিআইবি’র উদ্বেগ প্রত্যাহারের আহ্বান

ভূমিকম্পের তীব্রতা ছিল সিলেটে