সরফরাজকে ‘মস্তিষ্কহীন’ বললেন শোয়েব আক্তার

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:২২
ইতিহাস গড়া হলো না পাকিস্তানের। বিশ্বকপে ভারতের কাছে ৭ বার পরাজয়ের তিক্ত অভিজ্ঞতা হলো ৯২’য়ের চ্যাম্পিয়নদের। রোববার ওল্ড ট্রাফোর্ডে ভারতের বিপক্ষে ৮৯ রানে হার দেখে পাকিস্তান। হারের পর পাকিস্তান অধিনায়কের ওপর চোটেছে ক্রিকেট সমর্থকরা। ম্যাচ হারের পর সরফরাজকে ‘মস্তিষ্কহীন’ বলে মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের সাবেক গতিতারকা শোয়েব আক্তার। আর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে ‘অপদার্থ’ বলে মন্তব্য করেন শোয়েব। ভারতের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ায় সরফরাজকে ‘মস্তিষ্কহীন’ বললেন শোয়েব আক্তার। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির কথা মনে করিয়ে দিয়ে শোয়েব আক্তার বলেন, ‘দুই বছর আগে (চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি) ফাইনালে টস জিতে যে ভুলটা করেছিল ভারত অধিনায়ক কোহলি, সেই একই ভুলটা এদিন করে বসল সরফরাজ।’

ম্যাচ হার নিয়ে বোলারদের ওপর চোটেছেন পাকিস্তান এই গতিতারকা।
তিনি বলেন, ‘পরিকল্পনাহীন বোলিং সেই সঙ্গে অনিয়ন্ত্রিত লাইন-লেংথে দলকে ডুবিয়েছে বোলাররা। হাসান আলি বলে গতিও যথেষ্ট নেই সেইসঙ্গে লেংথের অভাব।’
ভারতের বিপক্ষের ম্যাচে তিন উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ আমির। ততেও শোয়েব আক্তারের সামালোচনা থেকে পার পাননি আমির। তিনি বলেন, ‘তিন উইকেট নিলেও আমির কখনোই ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ভয়ের কারণ হয়ে উঠতে পারেনি। ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা খুব সহজেই আমিরের মোকাবিলা করেছেন। গ্রুপ পর্বে আর চারটি ম্যাচ বাকি রয়েছে পাকিস্তানের। এখান থেকে একটি ম্যাচ হারলেই বিদায় নিশ্চিত পাকিস্তানের।’
আগামী ২৩শে জুন লর্ডসে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে পাকিস্তান।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ওয়াশিংটনে ইমরান খান যা বললেন

ট্যাংকার জব্দ: ইরান-বৃটেন উত্তেজনা অব্যাহত

‘টিভি চ্যানেলগুলো নাচের শিল্পীদের যথাযথ মূল্যায়ন করে না’

বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে

নৈরাজ্য

১৯ জনকে গণপিটুনি নিহত ৩

মার্কিন দূতাবাসের দুরভিসন্ধি

মিন্নির জামিন মেলেনি

পুঁজিবাজারে একদিনেই ৫ হাজার কোটি টাকার মূলধন হাওয়া

মশায় অতিষ্ঠ মানুষ ঘরে ঘরে ডেঙ্গু আতঙ্ক

অর্থনৈতিক কূটনীতির ওপর গুরুত্ব দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে অচল ঢাবি

যে কারণে সিলেটে মহিলা কাউন্সিলর লাকীর ওপর হামলা

৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ ও পানিবিহীন শাহজালাল বিমানবন্দর

সাত দিনের মধ্যে প্রথম কিস্তি পরিশোধের নির্দেশ

এ যেন খোঁড়াখুঁড়ির নগরী