বিয়ের ফাঁদে কিশোরীকে টানা ধর্ষণ

অনলাইন

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) প্রতিনিধি | ১৪ জুন ২০১৯, শুক্রবার, ১১:০৯
চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে এক কিশোরীকে বিয়ের ফাঁদে ফেলে আড়াই বছরের বেশি সময় ধর্ষণ করেছে এক যুবক। এ ঘটনায় কিশোরীর স্বজনরা অভিযুক্ত যুবককে সনাক্ত করে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ মামলার ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার সূচীপাড়া উত্তর ইউপি’র শোরসাক গ্রামের ইসমাইল মিজি বাড়ির মৃত আ. রশিদের পুত্র হুমায়ুন কবিরকে (১৯) আটক করে চাঁদপুর জেল হাজতে প্রেরণ করে।

ক্ষতিগ্রস্থ কিশোরী পরিবার ও মামলার সূত্র জানায়, ২০১৭ সাল হতে ওই বাড়ির এক শিশু শিক্ষার্থী স্থানীয় অক্সফোর্ড মডেল স্কুলে পড়ুয়া অবস্থায় একই বাড়ির হুমায়ুন কবিরের বড় বোনের নিকট প্রাইভেট পড়তো। ওই সুবাদে কিশোরীর ঘরে হুমায়ুন কবিরের অবাধ যাতায়াত ছিল। সে সুযোগে নানা সময় কিশোরীকে ফুঁসলিয়ে তার সঙ্গে একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন করে। পরে ২০১৮ সালে ওই শিক্ষার্থী (১৫) নারী গৃহ শিক্ষকের বিয়ে হয়ে যায়। এরপরে হুমায়ুন ওই কিশোরীকে প্রাইভেট পড়াতে শুরু করে। সে সুবাদে হুমায়ুন বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণের হলিখেলা শুরু করে।
এক সময় ওই অবাধ মেলামেশার দরুণ কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে। পরে হুমায়ুন বিষয়টি আচঁ করে তাকে বিয়ের আশ্বাসে আগত সন্তান(ভ্রুন) ঔষধ খাইয়ে নষ্ট করতে প্ররোচনা সহ বাধ্য করে।

পরবর্তীতে বিষয়টি ঘরোয়া ভাবে চাউর হতে কিশোরী তার স্বজনদের জানায়। প্রথমে তারা স্থানীয়দের অবগত করে এর উপযুক্ত বিচার দাবি করেন। তবে তারা সময় ক্ষেপণ করায় কিশোরির দাদি বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী-০৩) এর ৯ (১) ধারায় ধর্ষক হুমায়ুনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলার প্রেক্ষিতে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আবদুল আঊয়াল ফোর্স শোরসাক এলাকা হতে ধর্ষক হুমায়ুনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। ওইদিনই তাকে কোর্ট তুললে বিচারক জেল হাজতে প্রেরণ করার নির্দেশ দেয়। এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান, ধর্ষকে আটক করা হয়েছে, মামলার তদন্ত চলছে, বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

pompom

২০১৯-০৬-১৬ ১৪:৪৮:৩৬

উভয়েই অপরাধী

FOYEZ AHMED

২০১৯-০৬-১৪ ১০:২৫:৩৫

ইসলামী আইন মোতাবেক উনারা দুজনই সমান অপরাধী। মেয়েকে কিন্তু ছেলেটা জোর করে ধর্ষন করেনি দুজনের স্ব স্ব ইচ্ছায় কুকর্ম হয়েছে তাই শাস্থি দুজনেরই হোক

Masum

২০১৯-০৬-১৪ ০৬:২৫:৪৩

They both are guilty including both family

আহলাম শেখ

২০১৯-০৬-১৪ ১৪:৩৯:৪৫

না না হুজুর সাহেব, ছেলেটার কোনো দোষই নেই। সব দোষ মেয়েটারই। গিয়ে দোররা মেরে আসুন। অনেক সওয়াব হবে। আখেরাতের কাজ তো কিছু করা দরকার।

মোঃ ফোরকান উদ্দিন

২০১৯-০৬-১৩ ২২:১৮:৩২

দায় কি শুধু ছেলেরই??? মেয়েটি কি সাধু নাকি???

আপনার মতামত দিন

ওয়াশিংটনে ইমরান খান যা বললেন

ট্যাংকার জব্দ: ইরান-বৃটেন উত্তেজনা অব্যাহত

‘টিভি চ্যানেলগুলো নাচের শিল্পীদের যথাযথ মূল্যায়ন করে না’

বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে

নৈরাজ্য

১৯ জনকে গণপিটুনি নিহত ৩

মার্কিন দূতাবাসের দুরভিসন্ধি

মিন্নির জামিন মেলেনি

পুঁজিবাজারে একদিনেই ৫ হাজার কোটি টাকার মূলধন হাওয়া

মশায় অতিষ্ঠ মানুষ ঘরে ঘরে ডেঙ্গু আতঙ্ক

অর্থনৈতিক কূটনীতির ওপর গুরুত্ব দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে অচল ঢাবি

যে কারণে সিলেটে মহিলা কাউন্সিলর লাকীর ওপর হামলা

৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ ও পানিবিহীন শাহজালাল বিমানবন্দর

সাত দিনের মধ্যে প্রথম কিস্তি পরিশোধের নির্দেশ

এ যেন খোঁড়াখুঁড়ির নগরী