আলাপন

‘ঈদের নাটকের দর্শক সাড়ায় আমি মুগ্ধ’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৫৪
জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান খান। ক্যারিয়ারের শুরুতে নিজের অন্যরকম গায়কি দিয়ে শ্রোতামহলে একটি শক্ত অবস্থান তৈরি করেন। পরবর্তীতে গানের পাশাপাশি অভিনয়েও তিনি পেয়েছেন সফলতা। গত কয়েক বছর ধরেই তাহসানের নাটক ও টেলিছবি ঈদে ভিন্নমাত্রা যোগ করে আসছে। ছোট পর্দার পর এরইমধ্যে চলচ্চিত্রেও অভিষেক হয়েছে তার। কদিন আগেই মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ‘যদি একদিন’। এদিকে তাহসানের ঈদ ব্যস্ততাও ছিলো দারুণ। গানের পাশাপাশি টিভি পর্দায়ও উপস্থিত ছিলেন বরাবরের মতো।
সব মিলিয়ে কেমন আছেন? ঈদ কেমন করলেন? তাহসান বলেন, খুব ভালো আছি।

এবারের ঈদটিও খুব ভালো কেটেছে। ঈদের কাজের সাড়া কেমন পাচ্ছেন? তাহসান উত্তরে বলেন, ঈদে সিডি চয়েস থেকে আমার ‘বিশেষ কারণে’ শীর্ষক একটি গান প্রকাশ হয়েছে। এর সুর ও সংগীতায়োজন করেছে ইমরান। প্রকাশের পর ভালো সাড়া মিলছে। এর বাইরে কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেছি সেগুলোর সাড়া খুব ভালো। ‘আঙুলে আঙুল’, ‘লেডি কিলার’, ‘কবুল’, ‘ভালোবাসতে বারণ’, ‘ফিরে তাকাও’ শীর্ষক নাটকগুলোতে কাজ করেছি। এরমধ্যে প্রথম দুটিতে নুসরাত ইমরোজ তিশা ছিলো আমার বিপরীতে। পরের গুলোতে ছিলো যথাক্রমে সাফা কবির, শেহতাজ ও শবনম ফারিয়ার সঙ্গে। প্রত্যেকটি নাটকের গল্পই ছিলো ভিন্নধর্মী।

আমার অভিনয় করে ভালো লেগেছে। ঈদের নাটকের দর্শক সাড়ায় আমি মুগ্ধ। আর এখনতো টিভির পাশাপাশি দর্শক ইউটিউবেও নাটক উপভোগ করছেন। তাই সমানের দিনগুলোতে নাটকগুলোর অবস্থা আরো ভালোর দিকে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস। এখনকার ব্যস্ততা কি নিয়ে? তাহসান বলেন, এখন ঈদের পর সেভাবে কাজ শুরু করিনি। তবে কিছু নাটকের স্ক্রিপ্ট আমার হাতে রয়েছে। তাছাড়া গানের কাজও করবো। আপনার অভিনীত প্রথম ছবি ‘যদি একদিন’ এর সাড়া ভালো মিলেছে। এরপর কোন ছবিতে দেখা যাবে আপনাকে? তাহসান বলেন, এখনই বলতে পারছি না। ‘যদি একদিন’ আমার প্রথম ছবি।

সে হিসেবে খুব ভালো রেসপন্স পেয়েছি। এটি ভালোবাসা ও আবেগের ছবি। অনেক ধরনের প্রতিক্রিয়া পেয়েছি ও পাচ্ছি দর্শকদের। এর প্রায় সবটাই ইতিবাচক। তাই খুব ভেবে চিন্তে পরবর্তী ছবি করবো। কারণ আমার প্রতি প্রত্যাশা সেরকমই দর্শকদের। তাই মনের মতো স্ক্রিপ্ট ও চরিত্র পেলেই কেবল সিনেমায় অভিনয় করবো। এখন সংগীত জগতের অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে আপনার কাছে? তাহসান উত্তরে বলেন, সংগীতের বর্তমান অবস্থা ভালো। কারণ ভালো ভালো প্ল্যাটফর্ম রয়েছে এখন। তাছাড়া পৃষ্ঠপোষকরাও ভালো গানে বিনিয়োগ করছেন। ইউটিউবে যে কেউ তার কাজ দর্শকদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারছেন। এর যে নেতিবাচক দিক নেই তা বলবো না। তবে ইতিবাচক দিকটি গ্রহণ করা উচিত। আমি আশাবাদী সামনে আমাদের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিশেষ বরাদ্দের চাল-গমের জন্য তদবিরবাজদের ভিড়

বিজয়নগরে স্বতন্ত্র প্রার্থী নাছিমা বিজয়ী

ভাগ্নে অপহরণের ‘তদন্তে’ সোহেল তাজ

দুই মামলায় আটকে আছে খালেদার মুক্তি

ইফায় অচলাবস্থা, ডিজির পদত্যাগ দাবি কর্মকর্তাদের

কমিউনিটি ক্লিনিকে আরো ১২০০০ কর্মী নিয়োগ হচ্ছে

ক্রাইম পেট্রোল দেখে খুন, অতঃপর...

৫ স্কুলছাত্রীসহ ৭ নারী ধর্ষিত

ধর্ষণ মামলার প্রতিবেদন বিলম্বে দেয়ায় চিকিৎসককে তলব

অর্থমন্ত্রী বাসায় ফিরেছেন

বিচারাধীন মামলা ৩৫ লাখ ৮২ হাজার

মধ্যপ্রাচ্যে আরো ১০০০ সেনা মোতায়েন করছে যুক্তরাষ্ট্র

এক মাসের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সরাসরি যান চলাচল বন্ধ

রাষ্ট্র ও বিচার ব্যবস্থার ওপর জনগণের আস্থা হারিয়ে গেছে

রংপুরে জেলা পরিষদের প্রায় অর্ধকোটি টাকা লুটপাট