ছাত্রলীগ করবো না, মার খাওয়ার পর নেতার আহাজারি

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ২০ মে ২০১৯, সোমবার, ১০:৫৫ | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫৮
ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা না পেয়ে শনিবার মধ্যরাতে টিএসসিতে অবস্থান নেয় পদবঞ্চিত নেতারা। এ সময় বর্তমান কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তাদের আলোচনাও হয়। কিন্তু আলোচনার একপর্যায়ে হামলা চালানো হয় পদবঞ্চিত নেতাদের ওপর। মারধরের শিকার ছাত্রলীগ নেতাদের দাবি, সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে এ হামলা হয়।  

এদিকে এ হামলার শিকার এক নেতার আহাজারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

ওই ভিডিও দেখা যায়, তিনি বলছেন- সারা শরীরে কোথাও বাদ রাখে নাই। আমারে যে যেমনে পারছে, তেমনে মারছে। আমার অপরাধ কি? আমার মা কই? আমি ছাত্রলীগ করবো না।
আমি শোভন ভাই আর রাব্বানী ভাইয়ের মাঝখানে বসা ছিলাম। আমি কিচ্ছু করি নাই, কিচ্ছু করি...। আমারে সবাই মারছে। এ সময় তার কান্নায় চারপাশের পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Md Kamrul

২০১৯-০৫-২০ ১০:১৬:০৯

গুটিকয়েক সুবিধাবাদী নেতা আর কর্মীর জন্য স্বনামধন্য এই সংগঠনের বদনাম কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতা যুদ্ধ ও গনতন্ত্র পুনরুদ্ধার এই সব কয়টি গুরুত্বপূর্ণ সময় এই ছাত্র সংগঠনটি বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছে। জাতির সব সংকটে ছাত্রলীগ সবার আগে এগিয়ে এসে, সবসময় প্রশংসা কুড়িয়েছে। এখন কে কমিটিতে জায়গা পেল আর কে পেল না, তা নিয়ে যদি প্রতিদিন মধুর ক্যান্টিনে আর টিএসসিতে নিজেরা নিজেরা মারামারি করে তবে প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য সংগঠনগুলো ছাত্রলীগের দুর্বলতা তুলে ধরবে আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি এতে ক্ষুণ্ন হবে। সবচেয়ে ভালো হয়, আগামী ১ বছরের জন্য ছাত্রলীগের সমস্ত কর্মকান্ড স্থগিত ঘোষণা করা হোক !!!

M A Hoque

২০১৯-০৫-২০ ০৮:১২:৫৩

এইউদ্যোগ কে স্বাগতম। অনেক চোর আছে , যে চুরি কাজ ছেড়ে তওবা করে মাসজিদে গিয়ে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে ঠিক তাই হবে। ভালো, চরিত্র বানদের ছাত্রগীগে জায়গা নেই। আর বাকীটা বললা্ম না....... ।

shishir

২০১৯-০৫-২০ ০১:৩৬:৫৮

এই ছাএলিগ দিয়ে আওয়ামীগের কোন লাভ হবে না।সাধারন মানুষের আস্থালাভ তো দুরের কথা একটা ভোট ও দলের বারবে না,বরং দূড়নাম কূরাছে।তাই বিলুপ্ত করে নতুনভাবে সাজানো হোক।

আপনার মতামত দিন

কবি সুফিয়া কামাল যখন গুগল ডুডল!

উন্নয়নের সঙ্গে পরিবেশ রক্ষায় গুরুত্ব দেয়াও জরুরি: প্রধানমন্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি ইরানের

যে রক্ষিতার এক রাতের উপার্জন ২০০০ পাউন্ড

সোনাগাজীতে অটোরিকশা চালককে গলা কেটে হত্যা

শিংনগর সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে বাংলাদেশী নিহত

৬৪ বাংলাদেশী সহ অভিবাসীদের বোট নোঙরের অনুমতি দিয়েছে তিউনিশিয়া

দেশে ফিরেছেন প্রেসিডেন্ট

রাজধানীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সেভেন স্টার গ্রুপ লিডার নিহত

‘ঈদের দিন থেকে দর্শকরা এতেই ডুবে আছেন’

১১ দিন পর সোহেল তাজের ভাগ্নে সৌরভকে উদ্ধার

সাইফউদ্দিনকে ছাড়াই কী খেলতে হবে?

রবিন হুডের শহরে বড় আশায় মাশরাফি

আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ

হঠাৎ বদলে গেল আয়াজের জীবন

পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রে সংঘর্ষ চীনা শ্রমিক নিহত