জীবন্ত মাটিচাপা দেয়া শিশুকে উদ্ধার করল কুকুর (ভিডিও)

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৯ মে ২০১৯, রোববার
থাইল্যান্ডে এক মাঠের মধ্যে জীবিত পুঁতে রাখা হয়েছিল একটি শিশুকে। ওই শিশুটিকে উদ্ধার করেছে একটি কুকুর। অভিযোগ আগে, এক টিনেজ মা (১৫) ওই পুত্র সন্তানকে প্রসব করেছিলেন। কিন্তু বিষয়টি তিনি নিজের পিতামাতার নজর এড়াতে চাইছিলেন। তাই জীবিত অবস্থায় মাটির মধ্যে পুঁতে ফেলেন শিশুটিকে। কিন্তু তা নজরে পড়ে যায় গ্রামের একটি কুকুর পিং পং-এর। সে বান নং খাম গ্রামের এক মাঠের ভিতর গিয়ে ঘেউ ঘেউ করতে করতে সেখানকার মাটি খুঁড়তে থাকে।  তার ঘেউ ঘেউ শব্দে মালিক ছুটে যান। তিনি দেখতে পান ঘটনাস্থলে মাটির ভিতর থেকে বেরিয়ে আছে একটি শিশুর পা। সঙ্গে সঙ্গে শিশুটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসকরা তাকে পরিষ্কার করে বলেন, বাচ্চাটি সুস্থ আছে।

কুকুর পিং পংয়ের মালিক উসা নিসাইখা। তিনি বলেছেন, তার পিং পংকে একটি গাড়ি আঘাত করেছিল। তারপর থেকে তার একটি পায়ে সমস্যা রয়েছে। তবু সে তার অনুগত। তিনি যা বলেন, তাই শোনে। খাউসোদ পত্রিকাকে তিনি বলেন, গবাদিপশুকে যখন মাঠে নিয়ে যাই তখন আমাকে অনেক সাহায্য করে পিং পং। তাকে পুরো গ্রামের মানুষ পছন্দ করে। সে এক বিস্ময়কর প্রাণি।
ওদিকে যে শিশুকে মাটিতে পুঁতে রাখা হয়েছিল, তার মার বিরুদ্ধে বাচ্চাকে ফেলে দেয়া এবং হত্যা চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। চুম ফুং পুলিশ স্টেশনের একজন কর্মকতা পানুওয়াত পুত্তাকাম ব্যাংকক পোস্টকে বলেছেন, ওই টিনেজ মা এখন তার পিতামাতা ও একজন মনোবিজ্ঞানীর তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। বাচ্চাটিকে এভাবে হত্যা চেষ্টার জন্য তিনি এখন অনুতপ্ত। তার পিতামাতাই এখন শিশুটিকে বড় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বদলে গেল ক্লাবপাড়ার দৃশ্যপট, তবে

তদন্তের জালে ছাত্রলীগের শতাধিক নেতা

কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে র‌্যাবের অভিযান সভাপতি গ্রেপ্তার

পিয়াজের দাম কমছেই না

ছাত্র রাজনীতির ইতিবাচক পরিবর্তন দেখছি না

দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ১০ জনের

‘খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের আরো অবনতি’

৪ খুঁটির মূল্য দেড় লক্ষাধিক টাকা

নজরদারিতে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা

যুবলীগ কইরা মাতব্বরি করবেন ওই দিন শেষ

ভুটানের জালে তিন গোল বাংলাদেশের

সিলেট চেম্বার নির্বাচন নিয়ে মর্যাদার লড়াই

২৪ ঘণ্টায় নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি ৫০৮ জন

কমিশন কেলেঙ্কারিতে একা হয়ে পড়েছেন জাবি ভিসি

খালেদ মাহমুদকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার

মিন্নির আলোচিত সেই জবানবন্দি