তুমুল সমালোচনা

শমী কায়সারের ব্যাখ্যা

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৩৭
মোবাইল ফোন চুরির ঘটনায় সাংবাদিকদের আটকে রেখে হেনস্থা করায় অভিনেত্রী শমী কায়সারের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সাংবাদিক সমাজ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা ওই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করে তাকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানাচ্ছেন। পৃথক বিবৃতিতে শমী কায়সারের আচরণের নিন্দা জানিয়েছে সাংবাদিক সংগঠনগুলো।

বুধবার জতীয় প্রেস ক্লাবে দুটি স্মার্টফোন চুরি যাওয়ায় প্রায় অর্ধশত সংবাদকর্মীকে আধঘণ্টারও বেশি সময় আটকে রাখেন শমী কায়সার। এমনকি তার নিরাপত্তাকর্মীরা সংবাদকর্মীদের দেহ তল্লাশির সময় ‘চোর’ বলে মন্তব্য করেন। এতে অনুষ্ঠানস্থলেই প্রতিবাদ জানান উপস্থিত সংবাদকর্মীরা। পরে সাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, অনুষ্ঠানে কেক নিয়ে আসা লাইটিংয়ের এক কর্মী স্মার্টফোন দুটি নিয়ে গেছেন। এরপর সাংবাদিকদের প্রতি ‘দুঃখ প্রকাশ’ করেন শমী কায়সার। ঘটনায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়া শমী কায়সার গতকাল সকালে তার ফেসবুক ফ্যান পেজে সবার উদ্দেশ্যে একটি পোস্ট শেয়ার করেন। তাতে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। একইসঙ্গে শমী কায়সার ওই ঘটনাকে ‘অনাকাঙ্খিত’ বলে উল্লেখ করেন। শমী বলেন, আমি স্বাভাবিক ভাবেই খুব আপসেট ছিলাম, কিন্তু আমি এমন কোন অসম্মানজনক বক্তব্য দেইনি এবং আমি একজন দেশবরেণ্য সাংবাদিক এর সন্তান হিসেবে তাৎক্ষণিক দাঁড়িয়ে পুরো ঘটনাটির জন্য সকল উপস্থিত সাংবাদিক ভাইদের প্রতি ‘দুঃখ প্রকাশ’ করি। এটা আসলেই অনিচ্ছাকৃত এবং অনাকাঙ্খিত।

এদিকে শমী কায়সারের ‘নিকৃষ্ট দুর্ব্যবহারের’ নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)। বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল, মহাসচিব শাবান মাহমুদ, ডিইউজে সভাপতি আবু জাফর সূর্য ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, একজন শহীদ সাংবাদিকের মেয়ে হয়ে পিতার পেশার উত্তরসূরিদের ‘চোর’ বলে সম্বোধন করে শমী কায়সার প্রকারান্তরে তার পিতাকেই নিকৃষ্টভাবে অসম্মান করেছেন। শুধু তাই নয়, একজন সেলিব্রেটি হিসেবে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে ‘মোবাইল ফোন হারানোর’ সূত্র ধরে যে আচরণ করেছেন তা সেলিব্রেটিদের প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। তার মতো একজন অভিনেত্রী ও ব্যবসায়ীর কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ অত্যন্ত গর্হিত ও নিন্দনীয়। বিবৃতিতে বিএফইউজে ও ডিইউজে নেতারা এ ধরনের নিকৃষ্টতম দুর্ব্যহারের জন্য সাংবাদিক সমাজের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জানিয়ে বলেন, নতুবা যত বড় সেলিব্রেটিই হোন না কেন তার সংবাদ বর্জন করা হবে।

প্রয়োজন হলে তার সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ-খবর নিয়ে সাংবাদিক সমাজ নিয়মিত সংবাদ পরিবেশন করে জাতিকে বিস্তারিত জানাতে বাধ্য হবে। অন্যদিকে শমী কায়সারের অসৌজন্যমূলক আচরণের তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি ৪৮ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি। ডিআরইউর কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে সভাপতি ইলিয়াস হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান গতকাল এক বিবৃতিতে বলেন, একজন শহীদ সাংবাদিকের মেয়ে হয়ে পিতার পেশার উত্তরসূরিদের ‘চোর’ বলে সম্বোধন করে শমী কায়সার প্রকারান্তরে তার পিতাকেই অসম্মান করেছেন। তার মতো একজন অভিনেত্রী ও ব্যবসায়ীর কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ অত্যন্ত গর্হিত ও নিন্দনীয়। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ এ ধরনের ব্যবহারের জন্য সাংবাদিক সমাজের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার আহ্‌বান জানিয়ে বলেন, অন্যথায় শমী কায়সারকে সাংবাদিক সমাজ বয়কট করবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জাহিদ

২০১৯-০৪-২৫ ২২:৪৯:৪০

সাংবাদিক সমাজের শিক্ষা নেয়া উচিত তারা যা করছে বা করেছে এক যুগ ধরে তার প্রাপ্তি হলো তারা চোর বা চোরের সঙ্গী সাথী। শমি জানে এই সাংবাদিক সমাজ চুরিও করতে পারে কেননা তারা এতদিন চুরির সাফাই গেয়ে এসেছে। বলা যায়, গায়েবি রিভেঞ্জ।

imran

২০১৯-০৪-২৬ ০১:৫৫:৩৩

ক্ষমতার জোরে মানুষকে তারা এখন আর মানুষ মনে করেনা

তুফান সরকার

২০১৯-০৪-২৫ ১২:১৩:৫১

এইতান এর খুব বেশী বাড় বাড়ছে,এখনই দমানো না গেলে আস্তে আস্তে করে দুঃসাহস বাড়বে।অতএব ভালো একটা ধোলাই দেন সাংবাদিক ভাই বোনেরা মিলে। তাড়াতাড়ি ....... দেরী কইরেন না!

শাওন

২০১৯-০৪-২৬ ০০:৫৭:৪০

গরু মেরে জুতো দান! সকল সাংবাদিকদের উচিত এসব খারাপ মানসিকতার মানুষ গুলোকে বর্জন করা। তাদের অপকর্ম গুলো সকলের সামনে তুলে ধরা।

আপনার মতামত দিন

তেরেসা মে’র চোখে তখন পানি

২৮শে মে শপথ নিতে পারেন নরেন্দ্র মোদি

সরকার এত অমানবিক নয়

খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে সরকার

ধারণা পাল্টে দিতে চায় অভিজ্ঞ বাংলাদেশ

গান্ধী পরিবারের রাজনীতির সমাপ্তি?

দোহার-নবাবগঞ্জকে আধুনিক উপজেলায় পরিণত করবো

তৃতীয় দিনেও ট্রেনের টিকিট পেতে ভোগান্তি

মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এলাম

চট্টগ্রামে মাদক নিয়ন্ত্রণে ‘কিশোর গ্যাং’

বাংলাদেশে মানব পাচার রোধে কাজ করছে আইওএম

মোদির সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ

জৈন্তাপুরে এখন নয়া ‘ধান্ধা’ চোরাকারবার

ড্যাবের নির্বাচনে ডা. হারুন-সালাম প্যানেলের নিরঙ্কুশ জয়

ছয় শতাধিক কারখানায় বেতন বোনাস নিয়ে সমস্যা

এক সপ্তাহ আগে মোটরসাইকেলটি কিনেছিলেন মেহেদী