পটুয়াখালীতে চাঁদা না পেয়ে ৫০ লাখ টাকার মাছ লুট

বাংলারজমিন

পটুয়াখালী প্রতিনিধি | ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার
দশ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে বিশ একর জমির ঘেরে চাষকৃত ৫০ লাখ টাকার মাছ লুট করে নিয়েছে চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী বাহিনী। এ ঘটনা ঘটেছে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ এলাকায়।
গতকাল ২৪শে এপ্রিল বুধবার সকালে পটুয়াখালী প্রেস ক্লাবে জনাকীর্ণ এক সংবাদ সম্মেলনে এক লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করেন ঘের মালিক মো. বশির খান। এ অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ জালাল খান ও শাহ আলম খান বাহিনী মাছচাষি বশির খানের কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। এ চাঁদার টাকা না দেয়ায়  ঘটনার দিন ১৮ই এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে পরের দিন শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বশির খানের ঘেরের প্রায়  ৫০ লাখ টাকা মূল্যের মাছ ধরে নিয়ে যায় চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী জালাল খান (৪৫), মো. শাহলাম খান (৪০), সোহাগ মাতব্বর (২৮), আবু তাহের (৪০), রফিক প্যাদা (৪৫), নেছার খান (২২), শহিদুল খান (৩৮), খলিল প্যাদা (৪৫), মাসুদ জোমাদ্দার, ইফরাজ, টিটু মুন্সী (২৬), মো. নাসির মুন্সি (৪৫), রানা (২২), রাজিব (২৫), শাহাবালী (৩৮), ছালাম সরদার (৪৫), জুলহাস দফাদার (৩৩), শাহজালাল  (৪৫), রিয়াজ (২৮), মোফাজ্জেল দালাল (৪৫), জলিল দালাল (৪৮) ও মো. মাসুদ প্যাদা (৩৮) সহ  অজ্ঞাত আরো ১৩০/১৫০ জন লোক তাণ্ডব চালিয়ে চাষকৃত ঘেরের মাছ ধরে নিয়ে যায়। সংবাদ সম্মেলনে বশির খান জানান, তার ছেলে রিফাত খান বাধা দিতে গেলে তাকে বেঁধে রেখে হত্যার হুমকি দেয়। এ সময় ছেলে রিফাত সন্ত্রাসীদের  হাতে-পায়ে ধরে এলাকা থেকে চলে আসে। সন্ত্রাসীরা ঘেরের মাছ ধরে নিয়ে যাওয়ার সময় ঘেরের বাঁধ কেটে দেয়।
এ ঘটনা পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ করলে, ফাঁড়ির  এস আই সুদেব ঘটনাস্থলে গিয়ে বাধা নিষেধ করে চলে আসে। পুলিশ চলে আসার পর সন্ত্রাসীরা পুনরায় উক্ত ঘেরের মাছ ধরে নিয়ে যায়। মাছচাষি বশির খান কোনো প্রতিকার না পেয়ে জীবনের নিরাপত্তার জন্য পটুয়াখালী  চলে আসে এবং উল্লিখিত চাঁদাবাজ, মাছ লুটকারী সন্ত্রাসীদের বিচার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে তার সঙ্গে ছিলেন তারই  শ্বশুর  জাহাঙ্গীর হাওলাদার।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন