নায়িকা বানানোর কথা বলে ৩ মাস আটকে রেখে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ

অনলাইন

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি | ১৬ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:৩৩
টাঙ্গাইলের গোপালপুরে সিনেমার নায়িকা বানানোর প্রলোভন দিয়ে এক কলেজছাত্রীকে (১৯) আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আকাশ ওরফে ফারুক শিকদারকে আটক করেছে পুলিশ। ধর্ষক আকাশ ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানার মাইটকুমরা গ্রামের কাইয়ুম শিকদারের ছেলে।

রোববার রাতে গোপালপুর উপজেলার ভোলারপাড়া গ্রামবাসী ছাত্রীকে উদ্ধার করে অভিযুক্ত ধর্ষককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দেয়। পরে রোববার গভীররাতে মেয়ের বাবা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আকাশকে প্রধান আসামী করে তার সহযোগী অজ্ঞাত আরো দু’জনের বিরুদ্ধে গোপালপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত আসামী আকাশকে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গোপালপুর সরকারি কলেজের অর্নাস প্রথমবর্ষের ওই ছাত্রী গত ২১শে জানুয়ারি সকালে কলেজে স্থানীয় এমপি’র সংবর্ধনা ও নবীন বরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। অনুষ্ঠান শেষে থেকে বাড়ি ফেরার পথে ওই ছাত্রীকে রাস্তা থেকে মাইক্রোবাসযোগে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে নিয়ে যায় আকাশ। সেখানে একটি বাসায় রেখে সিনেমার নায়িকা বানানোর কথা বলে প্রায় তিনমাস টানা ধর্ষণ করে। এদিকে ধর্ষিতার সঙ্গে সুকৌশলে মোবাইলে যোগাযোগ করে তার বড় বোন। বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে রোববার বিকালে তাদেরকে টাঙ্গাইলের গোপালপুরের উপজেলার ভোলারপাড়া গ্রামে নিয়ে আসা হয়। এই সুযোগে স্থানীয়রা ধর্ষক আকাশ ওরফে ফারুক শিকদারকে গণধোলাই দিয়ে ওইর ছাত্রীসহ দু’জনকেই পুলিশে দেয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত হাসান আল মামুন বলেন, এ ঘটনায় মেয়ের বাবা রোববার রাতে আকাশকে প্রধান আসামী করে তার সহযোগী অজ্ঞাত আরো দু’জনের বিরুদ্ধে গোপালপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত আসামী আকাশকে টাঙ্গাইল আদালতে প্রেরণ করা হলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এছাড়াও ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

dr. m. islam medic

২০১৯-০৪-১৬ ১৭:০৬:১৭

hang all rappist in the same place of occurrence,keep in hanging for 15 days,live telecast in all me dia, then burn them with kerosine. for godshake this the only way to stop this sunami. i will request our prime minister ,please take urgent action,rescue our culture,save the nation of bhangabhundu.

citizen

২০১৯-০৪-১৬ ১৫:২৯:৫৯

Whats problem in giving these elements to cross firing.

Kazi

২০১৯-০৪-১৬ ০১:৫৮:৫৭

ধর্ষণ চলছে চলবে যতদিন আইন করে ধর্ষককে খোঁজা না বানানো হচ্ছে। আজকেই পত্রিকায় দুটি ধর্ষণের খবর ছাপা হল।

আপনার মতামত দিন

জ্বলছে পৃথিবীর ফুসফুস আমাজন অভিযোগের তীর সরকারের দিকে

সিরিজ খোয়ালো ইমার্জিং দল

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ সম্মাননা পেলেন মোদি

মিয়ানমারেরও শক্তিশালী বন্ধু আছে: কাদের

রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরত পাঠাতে যুক্তরাষ্ট্র চাপ অব্যাহত রাখবে: মিলার

শায়েস্তাগঞ্জে ট্রাকচাপায় শ্রমিক নিহত

ময়মনসিংহে ডেঙ্গুতে শিশুর মৃত্যু

বঙ্গবন্ধু-প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুরের দায়ে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার

ফরিদপুরে ব্রিজের রেলিং ভেঙে বাস খাদে, নিহত ৮

ধনাঞ্জয়া ১০৯, শ্রীলঙ্কা ২৪৪

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাইফের সেঞ্চুরি

নাটোরে স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা

বঙ্গবন্ধুর কথা ষোলআনা অমান্য করা হচ্ছে: ড. কামাল

বিকেলে জরুরি বৈঠকে বসছে বিএনপির স্থায়ী কমিটি

প্রয়াত ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি

ইট-পাটকেল ছোড়ার খেলায় চীন-যুক্তরাষ্ট্র, পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপ