আলাপন

‘আমি বহুবার সরাসরি তাদের আবেগ দেখেছি’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ১৫ এপ্রিল ২০১৯, সোমবার
নিজের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে অনেক জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন রিজিয়া পারভীন। চলচ্চিত্রে ও প্লেব্যাকে তার করা গান ধারাবাহিকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। তবে এতটা দীর্ঘ পথ পাড়ি দেওয়ার পরও ক্লান্ত নন রিজিয়া। বর্তমানে গান নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন এ সংগীত তারকা। তবে দেশে নয়, এখন তিনি আমেরিকায় রয়েছেন। সেখানে গত কয়েক দিনে বেশ কিছু শোতে অংশ নিয়েছেন। এর বাইরে নিজের একক অ্যালবাম নিয়েও ব্যস্ত রয়েছেন রিজিয়া। আমেরিকা থেকেই এ শিল্পী মুঠোফোনে কথা বলেন মানবজমিনের সঙ্গে। নিজের বিভিন্ন কাজকর্ম নিয়ে আলাপ করেন তিনি। তার কাছে প্রথমেই জানতে চাওয়া হয়, সব মিলিয়ে কেমন আছেন? দিনকাল কেমন কাটছে? রিজিয়া উত্তরে বলেন, বেশ ভালো। আমেরিকায় চলতি সময়টা উপভোগ করছি। কারণ এখানে গান নিয়েই আমার ব্যস্ততা চলছে। বিভিন্ন শোতে অংশ নিচ্ছি। এইতো। আমেরিকায় প্রবাসীদের আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশ নিতে কেমন লাগে? রিজিয়া বলেন, আমি অনেক দেশ ঘুরেছি। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ধরনের অভিজ্ঞতা হয়েছে। সেই অভিজ্ঞতা থেকে বলছি প্রবাসীরা বাংলা গানের প্রতি সবচেয়ে বেশি দূর্বল। কারণ দেশের বাইরে থাকেন বলে তারা বাংলাদেশের শিল্পী ও গানের প্রতি বেশি আবেগপ্রবণ। আমি বহুবার সরাসরি তাদের আবেগ দেখেছি। আর সে কারণেই বিদেশের মাটিতে দেশীয় শ্রোতাদের সামনে গাওয়াটা আমি খুব সম্মান ও আনন্দের মনে করি। এবারো আমেরিকায় যে সব জায়গায় শো করছি খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি শ্রোতাদের। তাদের কারণেই বার বার ফিরে আসি। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসা যাক। নতুন গানের কি খবর? রিজিয়া বলেন, নতুন গান করছি। তবে আগের মতো করে করছি না। এরমধ্যে আমার একক অ্যালবামের কাজ শুরু করেছি। এ অ্যালবামের সব গানের কথা ও সুর রচনা করছেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় শিল্পী-সুরকার নচিকেতা দাদা।

তিনি আমার অত্যন্ত প্রিয় একজন শিল্পী। তার সুরে এবারের অ্যালবামটি করছি। এটি আমার জন্য দারুণ ভালোলাগার। অ্যালবামের কাজ কতদূর? রিজিয়া বলেন, অ্যালবামের কাজ নিয়ে তাড়াহুড়ো নেই আমার। দাদা আমার জন্য গান তৈরি করছেন। আস্তে ধীরে এ গানগুলোর কাজ শেষ করতে চাই। তবে ইচ্ছে আছে এ বছরই অ্যালবামটি শ্রোতাদের হাতে তুলে দেওয়ার। বর্তমানে গানের অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? রিজিয়া বলেন, গানের সার্বিক অবস্থা এখন ভালো নয়। তারপরও যারা গানকে হৃদয়ে ধারণ করে এ জগতে আসছেন তাদের সাধুবাদ জানাই। কারণ এখন এ জগতে বেশিরভাগই আসছেন তারকাখ্যাতি পাওয়া কিংবা অর্থ আয়ের আশায়। কিন্তু এসব কারণে আসলে গানে বেশি দিন টিকে থাকা যাবে না। তাড়াতাড়ি উঠলে তাড়াতাড়িই পড়ে যেতে হয়। এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু মানি কজন! আর এখনতো ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। যে যার মতো করে যেভাবে পারছে গান করছে। আবার দেখা যাচ্ছে সেই মানহীন গানের প্রচারণাই বেশি হচ্ছে। যার ফলে ভালো মানের গানগুলো চাপা পড়ে যাচ্ছে। এটা অত্যন্ত অনাকাঙ্খিত বিষয়। ভালো গানগুলোর প্রচারণাই বেশি দরকার। ভালো শিল্পীদের প্রাচরণাই করতে হবে। তাহলেই ইন্ডাস্টির সার্বিক অবস্থাও ভালোর দিকে যাবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভিপি নুরের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

কাজের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

ইইউ নির্বাচনে হেরে আগাম নির্বাচনের ডাক দিলেন গ্রিক প্রধানমন্ত্রী

মৌলভীবাজারে নারী আইনজীবী খুন

কাঠমান্ডুতে তিন বিস্ফোরণে ৪ নিহত

ক্ষমতাসীনরা খালেদা জিয়ার জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে: রিজভী

ভারতে মুসলিম তরুণের টুপি খুলে ‘জয় শ্রী রাম’ গাইতে বাধ্য করার অভিযোগ

ডায়ানাকে নিয়ে রগরগে মন্তব্যকারী ট্রাম্পের সঙ্গে হাত মিলাতে হবে উইলিয়াম, হ্যারিকে

বিশ্বকাপে ভারতকে হারাবে পাকিস্তান: ইনজামাম

মালিবাগ বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

মালিবাগে বিস্ফোরিত বোমাটি শক্তিশালী: ডিএমপি কমিশনার

প্রথম বিদেশি প্রেসিডেন্ট হিসেবে জাপানি সম্রাটের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন ট্রাম্প

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতার বোন ইয়াবাসহ আটক

এ যেন কোনো প্লাস্টিক গ্রহ!

সেই সেনাদের জেল থেকে ছেড়ে দিয়েছে মিয়ানমার

দিনাজপুরে ট্রাকের ধাক্কায় দুই লিচু ব্যবসায়ী নিহত