‘আইএস-বধূ’ শামিমার নাগরিকত্ব বাতিলের সমালোচনায় করবিন

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
‘আইএস বধূ’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বৃটিশ তরুণী শামিমা বেগমের নাগরিকত্ব রদ করার যেই সিদ্ধান্ত বৃটেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিয়েছে, তার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা ও লেবার পার্টির প্রধান জেরেমি করবিন। ৪ বছর আগে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের পক্ষে লড়াই করতে বৃটেন ছেড়ে সিরিয়ায় পাড়ি জমান ১৫ বছর বয়সী শামিমা বেগম। যদিও তার পাসপোর্ট রহিত করেছে সরকার, তবুও করবিন বলছেন, শামিমার দেশে ফেরার অধিকার রয়েছে। করবিন আরও বলেছেন, তার নাগরিকত্ব রদ করার সিদ্ধান্ত একটু কড়া হয়ে গেছে। তাকে দেশে ফেরানো উচিৎ ও প্রশ্নের মুখোমুখি করা উচিৎ। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
খবরে বলা হয়, বৃটিশ নাগরিকদের নাগরিকত্ব তখনই রদ করা যেতে পারে যখন তারা অন্য কোথাও নাগরিকত্ব লাভের উপযুক্ত বলে বিবেচিত হন। ধারণা করা হয় যে, তিনি বাংলাদেশি নাগরিক হতে পারেন, কারণ তার মা বাংলাদেশী। কিন্তু বাংলাদেশের পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয় বলেছে, শামিমা বেগম বাংলাদেশী নাগরিক নন। তাকে বাংলাদেশে আসতে দেওয়ার কোনো প্রশ্নই উঠে না।
এই মুহূর্তে ব্রাসেলসে ব্রেক্সিট প্রস্তাবনা নিয়ে আলোচনা করতে যাওয়া করবিন আইটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার মতে, তার অবশ্যই বৃটেনে ফেরত আসার অধিকার রয়েছে। ফেরত আসার পর তাকে অবশ্যই অনেক প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে। বিশেষ করে, তিনি যা করেছেন সেই সম্পর্কে। এরপর তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া বা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়। কিন্তু কোনো মানুষের নাগরিকত্ব রদ করার সিদ্ধান্ত, বিশেষ করে সেই ব্যক্তিটি যদি বৃটেনে জন্মগ্রহণ করে থাকেন, তাহলে সেটি নিশ্চয়ই খুবই চরম সিদ্ধান্ত।’ তিনি আরও বলেন, আমি অবশ্যই এই প্রশ্ন রাখি যে আমাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর এই ধরণের ক্ষমতা রয়েছে কিনা। তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী জাভিদ নাগরিকত্ব রদের সিদ্ধান্তেই অটল আছেন।
২০১৫ সালে পূর্ব লন্ডন ত্যাগ করেন শামিমা। তিনি বলেন, তিনি কখনই আইএস’র ‘পোস্টার গার্ল’ হতে চাননি। তার এখন একটাই আশা, নিজের সন্তানকে যাতে যুক্তরাজ্যে নীরবে বড় করে তোলা যায়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাভিদ বলছেন, কোনো ব্যক্তিবিশেষকে রাষ্ট্রহীন তিনি করবেন না। এমনটা করা আন্তর্জাতিক আইনেও অবৈধ। শামিমা বেগমের পারিবারিক আইনজীবী তাসনিম আকুনজি বলছেন, তিনি ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবেন। এক্ষেত্রে শামিমা এখন রাষ্ট্রহীন ব্যক্তি হয়ে গেলেন কিনা তা বিবেচনা করে দেখছেন তিনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Nixon pandit

২০১৯-০২-২৩ ০০:০৩:২৯

করবিন সাহেবকে বলছি , তুমি একজন মাথা মোটা । ঐ শামীমা বৃটিশে থাকলে তার পেছনে দু-চারটি গোয়েন্দা বৃটিশ সরকার কে লাগিয়ে রাখতে হবে এবং খরচও বেড়ে যাবে সরকারের । ও যে দেশে ফিরে ট্রেনিং সেন্টার খুলবে না তার কি কোনো নিশ্চয়তা করবিন দেবে কি ? বিপদে পড়লে সবাই কাঁচু-মাঁচু করে, বুঝলে কি করবিন সাহেব ? আই এস এর সব কিছুই ঐ নারী অবগত ।

Kazi

২০১৯-০২-২২ ২২:৩৫:৪৩

In my opinion she must be taken back for trial in UK and held in jail for life.

আপনার মতামত দিন

‘ঢাকায় ছিনতাইকারী নেই, সকলকে ধরে জেলে পাঠানো হয়েছে’

এফআর টাওয়ারে আগুন: নির্মাণে ত্রুটি, দায়ী ৬৭ জন

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ইন্দোনেশিয়ায় নিহত ৬

বালিশ কাণ্ডে নির্বাহী প্রকৌশলী প্রত্যাহার

ম্যাচমেকার শারদ পাওয়ার

ভারতে স্টোর রুমে ২৪ ঘন্টার নজরদারি

১০০ দিনের এজেন্ডা প্রস্তুতের নির্দেশ

খালেদা জিয়াসহ ৫ জনকে প্রাথমিক মনোনয়ন বিএনপির

আজও ক্ষতিপূরণ দেয়নি গ্রিনলাইন, তীব্র ক্ষোভ হাইকোর্টের

শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ-মুসলিম রক্তাক্ত পরিণতির আশঙ্কা ভারতের

ভারতে শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা, কে বসবেন দিল্লির মসনদে?

যৌনতা কমছে দেশে দেশে

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু, উপচেপড়া ভিড় কমলাপুরে

বাংলাদেশে আইএসের নেটওয়ার্কে ঘনিষ্ঠভাবে নজরদারি করছে ভারত

হুয়াওয়ে সংকটের আদ্যোপান্ত

‘চলচ্চিত্রের সময়টা এখন মোটেও ভালো যাচ্ছে না’