কার্যকর ওয়ান স্টপ সার্ভিস দেখতে চায় ডিসিসিআই

দেশ বিদেশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩৭
ব্যবসার পরিবেশ উন্নয়ন সূচকের (ইজ অব ডুয়িং বিজনেস) উন্নয়নে দ্রুত সময়ে কার্যকর ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেবা চালুর দাবি জানিয়েছে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)। বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে কর্পোরেট কর হার কমানো, ব্যাংকিং খাতকে শৃঙ্খলে আনতে ঋণ খেলাপিদের শাস্তি ও স্বাধীন ব্যাংকিং কমিশন গঠনের দাবিও জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের এই সংগঠন। গতকাল মতিঝিলের ডিসিসিআই ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির পক্ষে এসব দাবি জানানো হয়। ব্যবসার বিভিন্ন সূচকে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি, ডিসিসিআইয়ের প্রত্যাশা ও সরকারের করণীয় বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন সংগঠনটির সভাপতি ওসামা তাসীর। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি ওয়াকার আহমেদ চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত সচিব জয়নাল আবদীনসহ সংগঠনের বিভিন্ন নেতারা। ডিসিসিআই সভাপতি ওসামা তাসীর বলেন, ২০০৬ সালে ডুয়িং বিজনেসে আমাদের অবস্থান ছিল ৬৫তম, ভিয়েতনামের অবস্থান ৯৯তম। আর ২০১৯ সালে এসে আমাদের অবস্থান ১৭৬তম এবং ভিয়েতনামের অবস্থান ৬৯তম। সূচকটির উন্নয়নে আমরা দ্রুত সময়ে বিডা, বেজা, ও হাইটেক পার্কের সমন্বয় ওয়ান স্টপ সার্ভিস দেখতে চাই।
এক্ষেত্রে, ডিসিসিআই ভবনেও একটি ইউনিট খোলা যেতে পারে, যেখান থেকে ব্যবসায়ীরা এসে বিভিন্ন সেবা পাবেন। বিনিয়োগ বাড়াতে বন্ড মার্কেট চালুর দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, কর্পোরেট কর এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি। এর প্রভাবে বিদেশি বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। আমরা চাই আগামী তিন বছরে ধাপে ধাপে ৫, ৭ ও ১০ শতাংশ করে কর্পোরেট কর কমানো হোক। পোশাক খাতের কর্পোরেট কর কমানোর পক্ষেও দাবি জানান তিনি।
এক প্রশ্নের উত্তরে ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, বর্তমানে ৮ লাখ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট নিবন্ধন রয়েছে। তবে, নিয়মিত ভ্যাট দেয় মাত্র ৩৭ হাজার। আমরা মনে করি, ভ্যাটের ক্ষেত্রে বিভিন্ন হার হওয়া উচিত। আমরা ৭ শতাংশ হারে ভ্যাটের সুপারিশ করেছি। নতুন ব্যাংক প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, নতুন ব্যাংক ভালো হবে না খারাপ হবে এটি এখনো বলার সময় আসেনি। অন্যান্য সংগঠনের মতো ঋণ খেলাপিদের শাস্তি দাবি করে আসছে ডিসিসিআই। তবে এই সংগঠনটির কেউ যদি ঋণ খেলাপি হয়ে থাকে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা কী হবে জানতে চাইলে ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, খেলাপি ঋণ আমাদের জাতিগত সমস্যা। আমরা তাদের (সংগঠনের সদস্য) নীতিগতভাবে চাপ দিতে পারি। কিন্তু অনেকেই পরিস্থিতির কারণেও খেলাপি হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, যানজট নিরসনে ঢাকাকে বিকেন্দ্রীকরণ করতে নীতিগত সহযোগিতা করতে চায় ডিসিসিআই। এক্ষেত্রে ঢাকার অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে ব্যবসায়িক সংগঠনের সঙ্গ রাজউকের আলোচনাও চায় তারা। রপ্তানি বহুমুখীকরণের ক্ষেত্রে পোশাক খাতের সফলতার মডেলকে অন্যান্য খাতেও কাজে লাগানো যেতে পারে বলে মত এই ব্যবসায়ী সংগঠনের। ব্যাংকের ঋণ দক্ষতা বৃদ্ধি, সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে কার্যকর, স্বাধীন ব্যাংকিং কমিশন গঠনসহ সরকারি বেসকারি ব্যাংকে সুশাসন প্রতিষ্ঠার কথা জানান এই সংগঠনের নেতারা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মুফতি তাকি উসমানীর গাড়িবহরে গুলিবর্ষণ, নিহত ২

লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর

বিয়ে করলেন মোস্তাফিজ

ছেলে-মেয়ের সংবর্ধনা একসঙ্গে আয়োজন করায় শিক্ষক খুন

আশার বীজে জল সঞ্চার করেছে তাদের রক্ত, আবেগময়ী ভাষণে ক্রাইস্টচার্চের ইমাম

পশ্চিমবঙ্গে দলছুট সবাইকে প্রার্থী করলো বিজেপি

বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সুলতান মনসুরের শ্রদ্ধা

অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন মেনন

ইতালিতে স্কুলবাস ছিনতাই করে আগুন, চালক গ্রেপ্তার

ফরিদপুরে অপহরনের তিনদিন পর ক্লিনিক ম্যানেজারের লাশ উদ্ধার

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে বিক্ষোভ

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি

বাস-মাহিন্দ্রা মুখোমুখি সংঘর্ষে শিক্ষার্থীসহ নিহত ৬

আজ থেকে মাঠে নামছে বিজিবি

ফেরি ডুবে ইরাকে শতাধিক মানুষের মৃত্যু

‘হৃদয় ভেঙ্গেছে তবুও ভেঙ্গে পড়িনি’