চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন

আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত প্যানেল সমান পদে জয়ী

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার
চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত প্যানেল সমান পদে জয়ী হয়েছে। এরমধ্যে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত আইনজীবী ঐক্য পরিষদ সভাপতি ও সিনিয়র সহসভাপতিসহ ৪টি সম্পাদকীয় পদ এবং ৫টি নির্বাহী সদস্য পদে জয়লাভ করেছে। আর সাধারণ সম্পাদক ও সহ-সম্পাদকসহ ৪টি সম্পাদকীয় পদ এবং ৫টি নির্বাহী সদস্য পদে জয়লাভ করেছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ। এরমধ্যে সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ থেকে বেরিয়ে আসা আইনজীবী সংসদ একটি পদে জয়লাভ করেছেন। সেটি হচ্ছে-পাঠাগার সম্পাদক। রোববার দিনগত রাত ২টায় এই ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এদিন সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৫টায় ভোটগ্রহণ শেষে ভোট গণনা শুরু হয়।
ভোটগ্রহণে নিয়োজিত নির্বাচন কমিশনার জিয়াউদ্দিন আহম্মদ জানান, এবারের নির্বাচনে তিন হাজার ৪৩৩ জন ভোটার ছিলেন। তন্মধ্যে দুই হাজার ৭৩৩ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ভোটগণনা শেষে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত আইনজীবী ঐক্য পরিষদের এএসএম বদরুল আনোয়ার ১২৩৫ ভোট পেয়ে সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সৈয়দ মোক্তার আহমেদ পেয়েছেন ৮০২ ভোট। সিনিয়র সহসভাপতি পদে আইনজীবী ঐক্য পরিষদের মো. ইসহাক ১৪৯৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয় পরিষদের তুষার কান্তি হাজারী পেয়েছেন ১২০৬ ভোট। সহসভাপতি পদে আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ রফিকুল আলম ১৩৪৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মো. আজিজুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ১৩৩৭ ভোট। সাধারণ সমপাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মো. আইয়ুব খান ১০৮৮ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমমনা আইনজীবী সংসদের তৌহিদুল মুনির চৌধুরী টিপু পেয়েছেন ৮৩৮ ভোট। সহ-সাধারণ সমপাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ রাশেদ ফারুকী ১৩৩৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ কবির হোসাইন পেয়েছেন ১০১০ ভোট। অর্থ সমপাদক পদে ঐক্য পরিষদের রফিকুল আলম ১০৬৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয় পরিষদের এসএম অহিদুল্লাহ পেয়েছেন ১০৫৭ ভোট।
পাঠাগার সমপাদক পদে সমমনা আইনজীবী সংসদের ভাস্কর রায় চৌধুরী ১০১৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মো. আলী আকবর সানজিক পেয়েছেন ৮৪৯ ভোট। সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে ১৪৬৪ ভোট পেয়ে ঐক্য পরিষদের জেবুন নাহার লীনা জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয় পরিষদের রুবেল পাল পেয়েছেন ১০৮৮ ভোট। তথ্য ও প্রযুক্তি সমপাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ হাসান মুরাদ ১৪৩৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মো. হেলাল উদ্দিন আবু পেয়েছেন ১৪৩৩ ভোট। এদিকে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের প্রগতিশীল চেতনার আরেক সংগঠন গণতান্ত্রিক আইনজীবী পরিষদ সাধারণ সমপাদক পদসহ ৪টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে একটি পদেও জয়লাভ করেনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে যুবককে কুপিয়ে হত্যা

রোহিঙ্গারা ফেরত না গেলে নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে- সংসদে প্রধানমন্ত্রী

রেমিটেন্স ১৬শ’ কোটি ডলার ছাড়ালো

টিকে রইলো পাকিস্তান

সংকট সমাধানে আশাবাদী বিএনপি

এ যেন আরেক আয়লান

মাহমুদুল্লাহর সুস্থতার দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ

মায়ের ভিডিওকলে অন্তঃসত্ত্বা মেয়ের সংসার ভাঙার উপক্রম!

যুক্তরাষ্ট্র-ইরান বাকযুদ্ধ

টেলিকম খাতে করের বোঝা চাপিয়ে প্রবৃদ্ধিকে আটকে দেয়া হয়েছে

ফেসবুক, ইউটিউব গুগলকে ভ্যাট এজেন্ট নিয়োগের নির্দেশনা

তিউনিশিয়া থেকে ফিরলো আরো ২৪ জন

মাঠের অভাবে ছুটিতে বাংলাদেশ

চুড়িহাট্টা ও এফ আর টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ড থেকে শিক্ষা নিতে চায় সরকার

মৌসুমের প্রথম বৃষ্টিতেই ডুবলো সিলেট নগর

সিলেট-আখাউড়া রেলপথে পদে পদে মৃত্যু ঝুঁকি