জাফলংয়ে নির্মিত হয়েছে দৃষ্টিনন্দন সিঁড়ি

চলতে ফিরতে

মিনহাজ উদ্দিন, গোয়াইনঘাট (সিলেট) থেকে | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার
সিলেটের প্রকৃতি কন্যা জাফলংয়ে পর্যটন ব্যবস্থাপনায় সরকার উদ্যোগ নিয়েছে। দেশ-বিদেশের ভ্রমণে আসা পর্যটকদের নিরাপদ ভ্রমণ এবং যাতায়াতে বর্তমান সরকারের ইতিবাচক উদ্যোগগুলো বাস্তবায়িত হচ্ছে। বাংলাদেশ টুরিজম বোর্ডের অর্থায়নে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পালের উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে একটি বিশাল দৃষ্টিনন্দন সিঁড়ি। ৪০ লাখ ৪২ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭১২ ফুট দৈর্ঘ্য স্থাপিত এই সিঁড়ি জাফলং সংগ্রাম বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড় থেকে নিচ পর্যন্ত বিস্তৃত। আধুনিক স্থাপত্যশৈলীর আঁচড় আর মজবুত ভিতে গড়ে ওঠা এ সিঁড়ি পর্যটকদের নিরাপদে পাহাড় বেয়ে উঠতে এবং নামতে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। পাহাড়ের পাথরময় ছোট-বড় গর্তযুক্ত পথ বেয়ে এতদিন জাফলং বেড়াতে আসা পর্যটকরা ওপর থেকে নিচে নামতেন। এতে করে পা পিছলে অনেক পর্যটক আহতের ঘটনা ঘটতো। সরকারের পর্যটন উন্নয়ন পরিক্রমার আওতায় গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উদ্যোগে স্থাপিত এ সিঁড়িনির্মাণ সফল বাস্তবায়নে সেই দুর্ভোগ এখন উধাও হয়ে গেছে।
এখন অনায়াসে জাফলং ভ্রমণে আসা নারী-পুরুষ-শিশুরা মুহূর্তেই ওপর থেকে সিঁড়ি বেয়ে নিচে নামেন। মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর থেকে আসা পর্যটক আবুল কালাম আজাদ জানান, আমরা স্বপরিবারে জাফলং বেড়াতে এসেছি। ইতিপূর্বেও আমরা এখানে ভ্রমণ করি। কিন্তু এবারকার জাফলং ভ্রমণ সত্যিই আনন্দদায়ক। আগে পাহাড় থেকে নামতে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হতো। কিন্তু প্রশাসনের উদ্যোগে জাফলং বিজিবি ক্যাম্পের কাছে স্থাপিত সিঁড়িটি পর্যটকদের জন্য একটি সহায়ক মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমি এই মহতি উদ্যোগে সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্ট সবাইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। সরকারের ইতিবাচক এবং দৃষ্টিনন্দন এরকম প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হলে সিলেটের পর্যটন আরও প্রসারিত হবে। এতে করে পর্যটক সমাগমও বৃদ্ধি পাবে। এ ব্যাপারে কথা হলে পর্যটকবান্ধব সিঁড়ির উদ্যোক্তা এবং গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল জানান, পর্যটকদের কষ্ট এবং দুর্ভোগ লাঘবে এটা আমাদের ক্ষুদ্র প্রয়াস। বাংলাদেশ টুরিজম বোর্ডের অর্থায়নে স্থাপিত এই সিঁড়ি পর্যটকদের যাতায়াত বিড়ম্বনায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। সৌন্দর্যবর্ধনের পাশাপাশি ওই সিঁড়িতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সৌর প্যানেলও সংযুক্ত করা হবে। জাফলংসহ সিলেটের বিভিন্ন স্থানে ঘুরতে আসা পর্যটক এবং এখানকার পর্যটন সম্ভাবনায় বর্তমান সরকার অত্যন্ত আন্তরিক। সরকারের এই আন্তরিক উদ্যোগের ধারাবাহিকতার অংশই ব্যয়বহুল এই পর্যটকবান্ধব সিঁড়ি গড়ে তোলা হয়েছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০১৯-১০-০৯ ১৫:৩১:৪৫

উদ্যোগ প্রশংসনীয় কিন্তু প্রতিফুট সিড়িঁর নির্বাণ ব্যয় ৫৫৯৮,৩৩ টাকা অকল্পনীয় । তাও কতদিন টিকবে ? সারা টিলা নগ্ন একটি গাছ মাত্র চোখে পড়ে। এখানে ঔষধি বৃক্ষ রোপণ করে সরকারী আয়ের উৎস, প্রাকৃতিক ঔষধ সরবরাহ নিশ্চিত করে টিলাটি আরও দৃষ্টিনন্দ করা যেতে পারে।

আপনার মতামত দিন

যানবাহনের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে

ক্রিকেটারদের ধর্মঘট ষড়যন্ত্রের অংশ

যেভাবে কোটিপতি ‘পলিথিন তবারক’

কীভাবে ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহার করতেন সম্রাট?

ক্রিকেটারদের আন্দোলনে ফিকা’র সমর্থন

দুদকের আট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু

ইডেন টেস্টে উপস্থিত থাকবেন শেখ হাসিনা

‘আমার মনে হয় বোর্ডের সবাই ব্যর্থ’

বিশ্বনাথে পংকি খান ও ফারুককে নিয়ে জল্পনা

পদ্মা সেতুর ১৫তম স্প্যান বসলো

ব্রেক্সিট চুক্তি পাস করাতে জনসনের শেষ প্রচেষ্টা

এনু-রূপণের ৩৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ

মাদক-দুর্নীতি-চাঁদাবাজি ও অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে জিরো টলারেন্স: যুবলীগ

সাদাতের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

বায়তুল মোকাররমে হেফাজতের বিক্ষোভ

বাংলাদেশ উন্নয়নের মডেল: আইনমন্ত্রী