জল্পনার জবাব দিলেন আরিফ

শেষের পাতা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে | ২১ জানুয়ারি ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৩
বিভ্রান্তি কাটালেন সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। দিলেন তাকে নিয়ে চলা জল্পনার সব জবাবও। বললেন- ‘আমি বিএনপির সৃষ্টি। জিয়াউর রহমান আমার আদর্শ। বিএনপিই আমার  একমাত্র ঠিকানা।’ সিলেটের মুহিত পরিবারের সঙ্গে মেয়রের নিবিড় সম্পর্ক। এজন্য চাউর করে দল-বদলের কাতারে তার নামও উচ্চারিত হচ্ছিল। জাতীয় নির্বাচনের আগে থেকেই আরিফকে নিয়ে ছিল এই আলোচনা। নির্বাচনের পর সেটি আরো জোরালো হয়।
এর কারণ- বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী ইনাম আহমদ চৌধুরী ছিল আরিফের ঘনিষ্ঠজন। ইনাম আহমদ চৌধুরীকে মনোনয়ন দিতে মেয়র আরিফ সহ ৫১ নেতা কেন্দ্রের কাছে লিখিত আহ্বান জানিয়েছিলেন। বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার পর ইনাম আহমদ চৌধুরী আওয়ামী লীগে যোগ দেন।

আর এই যোগদানের পর থেকেই আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়ে সিলেটের রাজনীতিতে কানাঘুষা শুরু হয়। এ নিয়ে দোলাচলে পড়েন নেতারা। মুখে শত কথা বলেও আরিফ তাদের সমালোচনার জবাব দিতে পারেননি। আর নির্বাচনের পর সেই গুঞ্জন আবারো প্রকট হয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়ে ড. একে আব্দুল মোমেন সিলেট আসার পর বাসায় গিয়ে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আরিফুল হক চৌধুরী। পাশাপাশি তিনি সিলেট সার্কিট হাউজে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন। দেখা করেছেন সদ্য সাবেক হওয়া অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গেও। এসব কারণে আরিফকে নিয়ে সিলেট বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ফের শঙ্কা শুরু হয়। তবে, আরিফুল হক চৌধুরী মন্ত্রীদের সঙ্গে দেখা করেন সিলেটের মেয়র হিসেবে। সিলেটের উন্নয়নে তাদের সহযোগিতাও কামনা করেন তিনি। মন্ত্রীরাও সিলেট নগরের উন্নয়নে আরিফুল হক চৌধুরীকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

এসব কর্মকাণ্ডে নানা প্রশ্নের মুখোমুখি আরিফুল হক চৌধুরী নিজের অবস্থান জানান দিলেন শক্ত ভাবেই। সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তিনি তার কুমারপাড়াস্থ বাসায় নিজের উদ্যোগেই মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন। মেয়র হওয়ার পর থেকে আরিফ তার উদ্যোগে এমন আয়োজন অতীতে কখনো করেননি। আর এতে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট বিএনপির সিনিয়র নেতারা। এ অনুষ্ঠানে সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘আমি আরিফুল হক চৌধুরী বিএনপির সৃষ্টি।

জিয়াউর রহমানের আদর্শই আমার রাজনীতির আদর্শ। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিএনপিই আমার একমাত্র ঠিকানা।’ অপপ্রচারে কান না দেয়ার অহ্বান জানিয়ে নেতাকর্মীদের প্রতি তিনি বলেন, ‘নিজেদের মধ্যে ইস্পাত-কঠিন ঐক্য গড়ে তোলার মাধ্যমে দলীয় কার্যক্রমকে সুসংহত করার কাজে সবাইকে আত্মনিয়োগ করতে হবে। সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করে  আমরা শহীদ জিয়ার স্বপ্নের স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়ে তুলবোই।’

বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-ক্ষুদ্র ও ঋণ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে আয়োজিত মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, বিশ্বাসঘাতকদের ঠাঁই জাতীয়তাবাদী দলে হবে না। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে আদর্শিত হয়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দলের জন্য কাজ করতে হবে।

মাহফিলে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য ও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সহসভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী, মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতা সিদ্দিকী, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক শামীম সিদ্দিকী, এমদাদ হোসেন চৌধুরী, দিনার খান হাসু, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ তৌফিকুল হাদী, জাসাস জেলা সভাপতি জসিম উদ্দিন, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদিক, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহসভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ প্রকাশনা সম্পাদক ছালিক আহমদ চৌধুরী, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক সুরমান আলী প্রমুখ।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রক্তাক্ত লঙ্কা পেছনে কারা?

দেশে সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকি নেই

পাসপোর্ট বইয়ের সংকটে দুর্ভোগ চরমে

দগ্ধ তরুণীকে বাঁচানো গেল না

শেয়ারবাজারে উত্থান পতনের পেছনে কেউ জড়িত

ব্রুনাইয়ের সঙ্গে ৬ সমঝোতা সই

রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার

ঘুমের ইনজেকশন দিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, চিকিৎসক আটক

ব্যারিস্টার আমিনুল হকের দাফন আজ

কালা মিয়ার কাটা পা এখনো উদ্ধার হয়নি

সঞ্চয়পত্রে ঝোঁক সবার নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা সরকারের

শবেবরাত পালিত

অমিত শাহ বললেন বাংলাদেশি হলেই নাগরিকত্ব!

পশ্চিমবঙ্গে ৯২ শতাংশ বুথে আধা সামরিক বাহিনী

গণআন্দোলনের প্রস্তুতি নিন: মোশাররফ

ঋণখেলাপিদের আরো বড় ছাড় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের