পঞ্চগড়ে ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতায় মানুষের ঢল

বাংলারজমিন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি | ২০ জানুয়ারি ২০১৯, রোববার
গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার পামুলি ইউনিয়নের খোচাবাড়ি স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতা উপভোগ করতে খেলার মাঠ এলাকায় হাজার হাজার মানুষের ঢল নামে। গত শুক্রবার বিকালে খোচাবাড়ি সমন্বয় কমিটি এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রতিযোগিতায় পঞ্চগড়, রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী ও ঠাকুরগাঁওসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ২৪ জন প্রতিযোগী তাদের ঘোড়া নিয়ে তিনটি গ্রুপে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। আয়োজকরা জানায়, গ্রামবাংলার প্রত্যন্ত এলাকার সাধারণ মানুষকে নির্মল আনন্দ প্রদানে আয়োজন করা হয় ঐতিহ্যবাহী এই ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা। ঘোড়ার দৌড় দেখতে প্রতিযোগিতার আগের দিনই স্থানীয়দের বাড়ি ভরে যায় আত্মীয়-স্বজনে। সকাল থেকে হাজার হাজার নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন বয়সী শিশুরা মাঠে জড়ো হতে থাকেন। জেলার বিভিন্ন এলাকাসহ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলা থেকেও কয়েক হাজার দর্শক দেখতে ঘোড়দৌড় আসে।
হাজার হাজার দর্শকে কানায় কানায় ভরে যায় খোচাবাড়ি স্কুল মাঠ। ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন দেবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাসনাৎ জামান চৌধুরী জর্জ। খেলা শুরু হলে মাঠের চারদিকে হাজারো দর্শকের উচ্ছ্বসিত আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে। দর্শকের মুহুর্মুহু করতালি আর চিৎকারে অন্যরকম আনন্দ বয়ে যায়। শিশু যুবক বৃদ্ধসহ খেলা উপভোগ করেন সকল বয়সী নারীরাও। এ যেন চিরায়ত বাঙালির চিরচেনা মিলনমেলা। খোলা আকাশের নিচে এমন নির্মল আনন্দ বারবার পেতে চান স্থানীয়রা। ঐতিহ্যবাহী এই খেলাটি ধরে রাখার জন্য সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার অনুরোধ জানান আয়োজকরা। প্রতিযোগিতায় ৪০০ মিটার ব্যাসার্ধের গোলাকার বৃত্তে দ্রুত গতিতে ১০ পাক দিয়ে এ-গ্রুপে প্রথম হন নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার আবদুল কাফি, বি-গ্রুপে একই এলাকার জাহিদুল ইসলাম ও সি-গ্রুপে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী মমিনুল ইসলাম প্রথম স্থান অধিকার করে। পরে প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাসনাৎ জামান চৌধুরী জর্জ বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। প্রথমবারের মত এই ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতায় ঘোড়া নিয়ে শিশু প্রতিযোগীরাও অংশ নেয়। প্রতিযোগিতা দেখতে আসা পার্শ্ববর্তী বোদা উপজেলার মাড়েয়া এলাকার মরিয়ম বেগম বলেন, টেলিভিশন আর ছবিতে ঘোড়ার দৌড় দেখেছি। এমন খেলা আগে দেখিনি। খুব ভালো লাগছে এমন একটি প্রতিযোগিতা উপভোগ করতে পেরে। প্রতি বছর একটা নির্ধারিত সময়ে এই খেলা অনুষ্ঠিত হলে দর্শক প্রতি বছরই বৃদ্ধি পাবে। নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার আবদুল কাফি বলেন, ‘সারা বছর ঘোড়ার পেছনে অনেক ব্যয় করতে হয়। ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নিলে যাতায়াত আর পুরস্কার ছাড়া লাভ হয় না। প্রতিযোগিতাটি গ্রামগঞ্জে হয় বলে পুরস্কারের মানও তেমন ভালো হয় না। মানুষ আনন্দ পায় বলেই ঘোড়দৌড় খেলায় অংশ নেই। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী মমিনুল ইসলাম জানায়, ‘অন্য এক জনের ঘোড়া নিয়ে বাবাসহ খেলতে এসেছি। সি-গ্রুপের প্রতিযোগিতায় চাম্পিয়ন হতে পেরে খুব ভালো লাগছে। ঘোড়া আমার খুব পছন্দ। কিন্তু নিজের কোনো ঘোড়া নেই। নিজের ঘোড়া থাকলে আরো ভালো করতো বলে দাবি করে মমিনুল। দেবীগঞ্জ উপজেলার পামুলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলে হায়দার বলেন, ‘খোলা আকাশের নিচে এমন নির্মল বিনোদন গ্রাম বাংলার একটা ঐতিহ্য। এই ঐতিহ্য ধরে রাখতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন।’ সহযোগিতা পেলে আগামীতে আরো বড় পরিসরে আয়োজনটি করা যাবে। নিয়োমিত ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা আয়োজনে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে দেবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাসনাৎ জামান চৌধুরী জর্জ বলেন, ‘ইতিপূর্বে অন্য কোনো খেলায় এতো দর্শক দেখিনি। গ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় এমন একটি আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ দিতে হয়। আগামীতে আরো বড় পরিসরে আয়োজনটি করার জন্য সব রকম সহযোগিতা করা হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রক্তাক্ত লঙ্কা পেছনে কারা?

দেশে সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকি নেই

পাসপোর্ট বইয়ের সংকটে দুর্ভোগ চরমে

দগ্ধ তরুণীকে বাঁচানো গেল না

শেয়ারবাজারে উত্থান পতনের পেছনে কেউ জড়িত

ব্রুনাইয়ের সঙ্গে ৬ সমঝোতা সই

রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার

ঘুমের ইনজেকশন দিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, চিকিৎসক আটক

ব্যারিস্টার আমিনুল হকের দাফন আজ

কালা মিয়ার কাটা পা এখনো উদ্ধার হয়নি

সঞ্চয়পত্রে ঝোঁক সবার নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা সরকারের

শবেবরাত পালিত

অমিত শাহ বললেন বাংলাদেশি হলেই নাগরিকত্ব!

পশ্চিমবঙ্গে ৯২ শতাংশ বুথে আধা সামরিক বাহিনী

গণআন্দোলনের প্রস্তুতি নিন: মোশাররফ

ঋণখেলাপিদের আরো বড় ছাড় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের