এ দৃশ্য চোখে পড়ে না কারও

বাংলারজমিন

মো. মতিউর রহমান, সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) থেকে | ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
সাটুরিয়ার প্রধান নদী গাজীখালী এখন পানায় অবরুদ্ধ। প্রায় ১০ বছর ধরে গাজীখালী নদীর ১০ কিলোমিটার ঢাকা পড়েছে পানায়। গাজীখালী নদীর ব্রিজ থেকে যতদূর চোখ যায় ততদূর পানা আর পানা। ফলে গাজীখালী হারিয়ে ফেলেছে তার যৌবনের সেই স্রোতধারা। সাটুরিয়া উপজেলায় একটি নদী রক্ষা কমিটি থাকলেও তাদের চোখে এ দৃশ্য পড়ে না। জানা গেছে, সাটুরিয়া উপজেলার ধলেশ্বরী নদী থেকে গাজীখালী নদীতে পানি ঢোকানোর জন্য ১৯৯৬ সালে মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয়। ধলেশ্বরী নদী থেকে ছোট খালের মতো ড্রেন বের করে গাজীখালী নদীতে মিশে দেন পানি নিষ্কাশনের জন্য। কিন্তু ওই ধলেশ্বরী নদীর মুখ থেকে এক ফোটা পানিও আসেনি গাজীখালী নদীতে।
নামমাত্র খাল কেটে পুরো অর্থই অপচয় করা হয়েছে। ধলেশ্বরী নদীর মুখ বন্ধ ও ভরে যাওয়ায় এখন আর পানি আসে না গাজীখালী নদীতে। ফলে প্রায় ১০ বছর ধরে গাজীখালী নদীর পানির কী রং সাটুরিয়াবাসী তা দেখতে পায় না। দেখতে পান পানা আর পানা। গাজীখালীর নদীর দুকূলে বসবাসরত বাসিন্দারা অভিযোগ করে বলেন, এক সময় গাজীখালীর স্রোত ও কলকল শব্দে মানুষ ঘুমাতে পারতো না। এখন সেই নদী নিশ্চুপ ঘুমিয়ে থাকে। নেই কোনো স্রোতের কলকল শব্দ। গাজীখালীর তলানি থেকে আসে এখন পর্চা দুর্গন্ধ। সাটুরিয়া উপজেলার গাজীখালী নদীর দু’পাশে আবাদি ফসলের চাষাবাদ হতো এ নদীর পানি দিয়ে। কৃষকরা এখন গাজীখালী নদীর পানি না পেয়ে সেচের ব্যবস্থা করে চাষাবাদ করছেন। কয়েকজন কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এ নদীর পানি দিয়ে যখন চাষাবাদ করেছি তখন আমাদের খরচ কম হয়েছে। এখন চাষাবাদ করতে খরচ বেড়েছে।
গাজীখালী নদীর পাড়ে বসবাসরত ৮০ বছরের বৃদ্ধ মো. সামছুল আলম বলেন, হায়রে গাজীখালী তোকে কী দেখেছি আর এখন কী দেখছি। তোর বুকজুড়ে ছিল পানি আর পানির স্রোত। এখন শুধু পানা আর পানা। যে নদী দিয়ে বড় বড় জাহাজ চলাচল করতো। ভেসে উঠতো শিশু যা দেখতে সকাল বিকাল নদীর ধারে মানুষ জড়ো হতো। এখন তোর পচা দুর্গন্ধে কেউ আসে না তোর কাছে। এভাবেই মনের কষ্টে বললেন আলম।
এদিকে, সাটুরিয়াবাসীর প্রাণের দাবি নদীরক্ষা কমিটি গাজীখালী নদীকে পানা অবমুক্ত করে এর সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনা হোক। নইলে অচিরেই গাজীখালী নদী হারিয়ে যাবে সাটুরিয়ার মানচিত্র থেকে।      



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘এখনো অভিনয়ের ক্ষুধা মরে যায়নি’

জনবান্ধব-আওয়ামী লীগ

প্রত্যাখ্যান-গণফোরাম

সহায়ক -এফবিসিসিআই

মুশফিককে নিয়ে শঙ্কা

হঠাৎ ডেঙ্গু, ১৫ দিনে আক্রান্ত দুই শতাধিক

সীমান্ত হত্যা অনাকাঙ্ক্ষিত

জাতিসংঘের মর্যাদাপূর্ণ ইকোসকের সদস্য নির্বাচিত হলো বাংলাদেশ

হয়রানিতে সতর্ক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে বিএনপি স্থায়ী কমিটির জরুরি বৈঠক

ঝুঁকিপূর্ণ ওয়াহেদ ম্যানশনে রাতের আঁধারে চলছে নির্মাণ কাজ

বগুড়ায় ব্যবসায়ীকে থানায় নির্যাতন চার পুলিশ বরখাস্ত

নিম্নমানের কাগজে ছাপা হচ্ছে পাঠ্যবই

বাসায় আটকে দেহব্যবসা, কান্না শুনে দুই নারীকে উদ্ধার

জগন্নাথপুরে অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীকে নিয়ে ‘তোলপাড়’

তিস্তা, সীমান্ত হত্যা ও রোহিঙ্গায় জোর ঢাকার, ফের আশ্বাস দিল্লির