নিশাতকে নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অন্যরকম আলোচনা

বাংলারজমিন

মাহবুব খান বাবুল, সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) থেকে | ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার
স্বামীর অব্যাহত নির্যাতনে চার সন্তান নিয়ে দিশাহারা ছিলেন সুইটি আক্তার। খাবার জুটত না ঠিকমতো। জেলা সদর হাসপাতালে অস্থায়ী চাকরিতে তার জীবন বদলেছে। মানসিক ভারসাম্যহীন গর্ভবতী সাবিনাকে কেউ একজন হাসপাতালে এনে ফেলে রেখে যান। খবর পেয়ে একটি কম্বল নিয়ে হাসপাতালে ছুটে যান নিশাত। পরিচয়হীন ওই নারীকে সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্রে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। সেখানে তার একটি কন্যা সন্তান জন্ম হয় ক’দিন আগে। অসুস্থ বাবা-মা আর ছোট এক ভাই।
তাদের দেখাশুনার দায়িত্ব মেয়ে স্বপ্নার কাঁধে। সুহিলপুর ইউনিয়নের সীতানগর ঋষিপাড়ার অভাবের এই সংসারে ভাতের মার খেয়ে প্রায়ই দিন কাটতো তাদের। স্বপ্নাকে সেলাই প্রশিক্ষণে এনে রোজগারী হওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। এমন অনেক উদাহরণই তৈরি করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী নেতৃত্ব্বে অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত। জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিশাত বর্তমানে সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর নেতৃত্বে মডেল উপজেলা পরিষদ গঠন ও নারীদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন কর্মঠ এই নারী জনপ্রতিনিধি। মাঠের এই নেত্রীকে নিয়ে এবার আশান্বিত হয়ে উঠেছেন অসহায়-দরিদ্র নারী সমাজ এবং জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। তাকে একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য হিসেবে পাওয়ার দাবি তাদের। এর আগে নবম সংসদে সংরক্ষিত আসনের সদস্য হওয়ার জন্য দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন তিনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন