টিআইবির নির্বাচন পর্যালোচনা প্রতিবেদন-

৫০ আসনের ৪৭টিতেই অনিয়ম

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:১৬ | সর্বশেষ আপডেট: ৭:০৫
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংস্থাটির নির্বাচন পর্যালোচনা প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, যে ৫০ টি আসনে গবেষণা করা হয়েছে এর মধ্যে ৪৭টিতেই কোন না কোন অনিয়মের তথ্য পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৪২টি আসনের একাধিক কেন্দ্রে প্রশাসন  ও আইন প্রয়োগকারী বাহিনীর ভূমিকা ছিলো নীরব। ৪১ টি আসনে জাল ভোট দেয়া হয়েছে। নির্বাচনের আগের রাতে সিল মেরে রাখা হয় ৩৩ আসনে। বুথদখল ও জালভোট পড়ে ৩০ আসনে। পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্রে যেতে বাধা ও কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয় ২৯ আসনে। ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা ও জোর করে নির্দিষ্ট মার্কায় ভোট দিতে বাধ্য করা হয় ২৬ আসনের।
ভোট শেষ হওয়ার আগেই ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যায় ২২টি আসনের একাধিক কেন্দ্রে । এ সব অনিয়মের ব্যাপারে বিচারবিভাগীয় তদন্তের সুপারিশ করেছেন টিআইবি।

আজ ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যালোচনা’ শীর্ষক প্রাথমিক প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান জানান, দৈবচয়নের মাধ্যমে ৩০০ টি আসনের মধ্যে ৫০ টি আসনে এই পর্যালোচনা করা হয়। এর মধ্যে ৪৭ টি আসনেই কোন না কোন অনিয়ম হয়েছে। তিনি বলেন, এটাকে আংশিক অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বলা যেতে পারে, কারণ সবদলের  প্রার্থী অংশ নিলেও সবার সমান প্রচারণার সুযোগ ছিলো না। বিশেষ করে ভোটারদেরও তাদের অধিকার অনুযায়ী, পছন্দ অনুযায়ী ভোট দেয়ার সমান সুযোগ ছিলো না। কোন কোন কেন্দ্রে পোলিং এজেন্টদের ঢুকতে দেয়া হয়নি।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, নির্বাচনের আগের রাতে ব্যালটে সিল মারা, অনেক কেন্দ্রে ভোটারকে ভোট দিতে না দেয়া, বুধ দখল করে প্রকাশ্যে সিল মারা, জোর করে নির্দিষ্ট মার্কায় ভোট দিতে বাধ্য করা হয়েছে। অনিয়ম তুলে ধরে বলেন, ভোট শুরুর আগেই কোথাও কোথাও ব্যালট বাক্স্র ভর্তি হয়ে যায়, ভোট শেষ হওয়ার আগেই ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যায়। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা তুলে ধরে টিআইবর নির্বাহী পরিচালক বলেন, তাদের প্রত্যাশিত নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনে ব্যর্থতা দেখা গেছে। বিশেষ করে সমান প্রতিযোগিতার ক্ষেত্র তৈরী করতে নির্বাচন কমিশন যথাযথ ভূমিকা পালন করতে পারেনি। তার যথেষ্ঠ তথ্য রয়েছে বলেও উল্লেখ করে তিনি। বলেন, প্রতিপক্ষকে দমনে সরকারি দলের সহায়ক অবস্থানে দেখা গেছে কমিশনকে। সবদলের প্রার্থীদের সমান নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারেনি তারা। আচরণবিধি পালনের ক্ষেত্রে বৈষম্যমূলক আচরণ দেখা গেছে। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরীতে ব্যাপক ব্যর্থতা দেখা গেছে এবং এ ব্যাপারে কমিশনের ভেতরে মতদ্বৈততা লক্ষ্য করা গেছে- এটা অভূতপূর্ব বিষয়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

কাজী শফিক

২০১৯-০১-১৬ ২২:০৯:১৪

এত গুরুত্বপূর্ণ একটি খবর বেশীরভাগ জাতীয় দৈনিক গুলো গুরুত্বহীন ভাবে ছাপিয়েছে । রাজনীতিবিদ আর প্রশাসনের অপকর্মে দেশের জনগণ পিছিয়ে পড়বে ?

rezaul karim

২০১৯-০১-১৫ ০৮:৫৭:৩৩

নির্বাচনে ৯৯%আসনেই ২৯তারিখ প্রশাসন ও দলীয় লোকজন দিয়ে বাক্স ভর্তি করা হয়েছিল।আমার নিজের ভোট আমি দিতে গেলে বলা হয়েছিল আমারটা আরেকজন আগেই দিয়ে গেছে। মনে হয় জ্বিনে ও এবার ভোট দিয়েছে। আমি চ্যালেঞ্জ করলে একপ্রকার প্রশাসনিক হয়রানি বা গ্রেফতার করার মতো অবস্হার সৃষ্টি করে।ভয়-ভীতিতে গ্রেফতার এড়িয়ে মানে মানে সেখান থেকে কেটে পড়ি। বিচারপতি এই বিচার করবে কে???

jewel ahmed

২০১৯-০১-১৫ ০৭:৫১:১৮

রাজনীতিবিদরা দিন দিন নিরলজ্জ,বেহায়া,ইতর প্রাণীতে পরিনত হচ্ছে।

Siddique

২০১৯-০১-১৫ ০৭:৩৫:২৩

47 out of 50 ie 282 out of 300 seat,I have never seen such type of election for the last 50 years....

আবদুল মজিদ

২০১৯-০১-১৫ ০৪:৩৯:৩২

এই রকম ভোটের মাধ্যমে জয়ী হয়ে বড় বড় কথা বলা......লজ্জার একটা সীমা থাকা উচিত ।

মহিউদ্দীন

২০১৯-০১-১৫ ১৭:১৯:০৮

এটা নির্বাচন! ছিঃ

Md. Mofazzal Hossain

২০১৯-০১-১৫ ১৬:৫২:০৬

After publishing this report what they will say and how they will come in front of mass people?

Nazim Uddin

২০১৯-০১-১৫ ০৩:২৬:১১

এই রিপোর্ট অনেক ভালো। বাস্তবে আরো খারাপ ছিল। এটা কে নির্বাচন বলা যায় না। বলা যায়না একটি যুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন হওয়া দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা এই রকম। তামাশা ও স্বাধীনতার চেতনা বিরোধী নির্বাচন বললে মন্দ হবে না।

আপনার মতামত দিন

আইএস গার্ল শামিমাকে নিয়ে ঢাকায় চিঠি চালাচালি

অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ

ভারতের নাগরিকত্ব বিল কেন?

থাইল্যান্ডে বাংলাদেশি পরিবার নিখোঁজ

পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে যুদ্ধ, বাংলাদেশে ২০,০০০ সাইট বন্ধ

পদকজয়ীদের অনুসরণে আগামী প্রজন্ম নিজেদের গড়ে তুলবে: প্রধানমন্ত্রী

বিএনপির আলোচনা সভায় হট্টগোল

নাইকো মামলার শুনানি পেছালো

বইমেলায় কেনাকাটার ধুম

ইমরানের পর মোদিও

সৌদিকে পরমাণু প্রযুক্তি দিচ্ছেন ট্রাম্প!

ফকির আলমগীরের ৬৯তম জন্মদিন আজ

সাংবাদিকদের আদালত কক্ষে প্রবেশ নিশ্চিত করতে হবে- প্রধান বিচারপতি

চতুর্থ ধাপে ১২২ উপজেলায় ভোট ৩১শে মার্চ

প্রেমিকার ছেলের ছুরিকাঘাতে প্রেমিক নিহত

কার্যকর ওয়ান স্টপ সার্ভিস দেখতে চায় ডিসিসিআই