আলাপন

‘এখন আবার হিন্দি গান প্রভাব বিস্তার করছে’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ৮ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৯
সুকন্ঠি সংগীতশিল্পী মৌটুসী পার্থ। দীর্ঘ সময় ধরে দেশিয় গানের জগতে বিচরণ করছেন তিনি।  তার গাওয়া বেশ কিছু গানই শ্রোতারা পছন্দও করেছেন। এর বাইরে স্টেজ শোতেও বছর জুড়ে ব্যস্ত সময় পার করেন তিনি। বর্তমানে শো, নতুন গান, টিভি অনুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত এ শিল্পী। সব মিলিয়ে কেমন আছেন? চলতি সময়টা কেমন কাটছে? উত্তরে মৌটুসী পার্থ বলেন, বেশ ভালো আছি। গান নিয়ে থাকতেই আমি পছন্দ করি। গান নিয়ে থাকলে সময় ভালো কাটে আমার। আর গানের ব্যস্ততা আমি উপভোগও করি দারুণ ভাবে।
এখন মূলত কি নিয়ে ব্যস্ত? মৌটুসী বলেন, এখন শীত মৌসুম শুরু হয়েছে। অনেক শো-এর আয়োজন চলছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে শো করছি। শো নিয়েই এখনকার মূল ব্যস্ততা। শো করতে কেমন লাগে? উত্তরে এ সংগীতশিল্পী বলেন, আমি স্টেজে সব থেকে স্বাচ্ছ্বন্দ্যবোধ করি। কারণ স্টেজেই সরাসরি শ্রোতা-দর্শকের ভালোবাসা পাওয়া যায়। শ্রোতাদের সাড়া কেমন সেটাও জানা যায় স্টেজে। আমি শুরু থেকেই স্টেজ শো করে আসছি। আর তা খুব বেছে বেছে। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য শো করেছি। তবে এখনও যখন স্টেজে উঠি তখন মনে হয় প্রথমবার উঠছি! অনেক বেশি ভালোলাগা কাজ করে স্টেজকে ঘিরে। নতুন গান কি করছেন? মৌটুসী বলেন, নতুন একটি গান অনেক দিন ধরেই তৈরি হয়ে আছে। কিন্তু তাতে কন্ঠ দেয়া হয়নি। গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছে আরফিন রুমি। রুমির গান আমি ব্যাক্তিগতভাবে খুব পছন্দ করি। খুব শিগগিরই হয়তো গানটিতে কন্ঠ দেয়া হবে। এর বাইরে আরো কয়েকটি নতুন গান করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ সময়ে আপনার আর অন্য ব্যস্ততা কি নিয়ে? মৌটুসি উত্তরে বলেন, অন্য কোনো ব্যস্ততা নেই। আমি সবসময ব্যস্ত গান নিয়েই। বেশ কয়েকটি টিভি চ্যানেলের রেকর্ডিংয়ে অংশ নিলাম গত কয়েকদিনে। পাশাপাশি টেলিভিশনের লাইভ শোও করছি। চলতি সময়ে গানের অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? মৌটুসী বলেন, আসলে যুগ বদলেছে। মাধ্যম বদলেছে। অনেক কিছুর পরিবর্তন হয়েছে। তবে ফলাফল কিন্তু একই রকম মনে হচ্ছে। আমাদের বাজার ছোট। সীমাবদ্ধতা হচ্ছে বাংলা ভাষা। কারণ বাংলা ভাষার শ্রোতা ইংরেজী কিংবা হিন্দির চেয়ে কম। এই সময়ে অবস্থা আরও খারাপ বলে মনে হয় আমার কাছে। কারণ আমি নিজেই দেখছি মানুষ এখন বাংলাদেশের কিংবা কলকাতার বাংলা গানও শুনছে না। শুনছে বেশি হিন্দি গান। হাবিব যখন গান শুরু করলো তখন একটা জোয়ার শুরু হয়েছিলো বাংলা গানের। কারণ সে নতুন একটা ট্রেন্ড শুরু করেছিল। যার কারণে হিন্দি গানের প্রভাবটা কমে গিয়েছিলো। কিন্তু এখন আবার হিন্দি গান প্রভাব বিস্তার করছে। এটা খুব ভালো বিষয় নয়। মৌটুসি আরো বলেন, আসলে একই ধরনের গান শুনতে শুনতে মানুষ বিরক্ত। হাবিব একটা নতুন ট্রেন্ড নিয়ে এসেছিলো। এটা তার কৃতিত্ব। তারপর দেখা গেল যারাই গান করছে সবাই হাবিবকেই অনুুসরণ করছে। ভাঙা-গড়ার কোনো বিষয় নেই। নতুন কিছু করার চেষ্টাও দেখিনা তেমন। এই একঘেয়েমি থেকে বের হতে হবে। আপনার কোনো পরামর্শ রয়েছে? মৌটুসী বলেন, আমি পরামর্শ দেয়ার মতো কেউ নই। এখনও শিখছি আমি। তারপরও বলব ভালোবাসার সঙ্গে চেষ্টা, পরিশ্রম, ধৈর্য্য থাকলে অনেক কিছু করা সম্ভব। এ বিষয়গুলো গানের ক্ষেত্রে আরো বেশি দরকার। আর শেখার মানসিকতাও থাকতে হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিনম্র শ্রদ্ধায় বীর শহীদদের স্মরণ

বিপর্যয়ের মুখে তেরেসা মে

অনেক বাস হাওয়া, দুর্ভোগে রাজধানীবাসী

জাপায় কেন এই অস্থিরতা?

অনলাইনে ডলার বিক্রির নামে প্রতারণা

হঠাৎ বেড়েছে গুলির ঘটনা

ওবায়দুল কাদেরকে কেবিনে নেয়া হয়েছে

ডাক বিভাগের ‘নগদ’-এর কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

সিনেটরকে ডিম মারা প্রসঙ্গে যা বললেন ‘ডিম বালক’

মুক্তি কিসে স্বৈরশাসনে নাকি গণতন্ত্রের পুনঃউদ্ভাবনে?

বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ বিশ্বদরবারে প্রতিষ্ঠিত হতো না

৪৮ বছর পরও আমরা এমনটি আশা করিনি

বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত মাহবুব তালুকদার

বিএনপি নেতিবাচক রাজনীতি না করলে দেশের আরো উন্নতি হতো

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করাই বিএনপির অঙ্গীকার

বিনম্র শ্রদ্ধায় সারা দেশে স্বাধীনতা দিবস পালিত