জেলখানায় অনিরাপদ নারী- দ্বিতীয় পর্ব

নারী দেখলেই আপত্তিকর আচরণ বন্দিদের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৪০
বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে যৌন নির্যাতন বিরোধী আন্দোলন মি-টু। তবে এর অনেক আগেই যুক্তরাষ্ট্রে জেলখানায় যৌন নির্যাতনের বিষয়টি আলোর মুখ দেখতে পায়। ২০১০ সালে ইকুয়াল এমপ্লয়মেন্ট অপর্চুনিটি কমিশন (ইইওসি) একটি রিপোর্টকে অবজ্ঞা করে বলে যে, ব্যুরো অব প্রিজনস পর্যায়ক্রমিকভাবে যৌন হয়রানির অভিযোগগুলো ভুলভাবে ‘হ্যান্ডেল’ করছে। ব্যুরো অব প্রিজন্সে বর্তমানে ১০ হাজারের বেশি নারী কর্মী আছেন। তবে তারা বলছেন, যেসব নারী যৌন নির্যাতিত হয়ে মুখ খোলার সাহস দেখান তাদের বিষয়ে কোন পরিবর্তন হয় নি বললেই চলে। মিয়ামিতে একজন সংশোধনাগারের কর্মকর্তা কুইনটিনা পন্ডার। তিনি বলেন, একবার যদি কোন নারী এ নিয়ে মুখ খোলেন তাহলে তাকে ব্লাকমেইল করবে সরকারই। কুইনটিনা পন্ডার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছিলেন।
সেই ঘটনাটি স্থগিত করা হয় ২০১৫ সালে।
২০১৭ সালের মে। হাউস অপারসাইট কমিটি ওই এজেন্সির বিষয়ে একটি তদন্ত শুরু করে। তাবেম বলা হয়, যৌন অসদাচরণের অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও কর্মকর্তাদের বা শীর্ষ প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের পুরস্কৃত করা হয়েছে। এসব নিয়ে কথা বলতে রাজি হন নি জেলে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তারা।
এসব নিয়ে সাক্ষ্য দিয়েছেন ১৩৫ জনেরও বেশি নারী। তাদের একজন বলেছেন, জেলখানার বন্দিরা নারী প্রহরীদের সামনে আপত্তিকর আচরণ করে। তারা মাস্টারবেট করে। এমন ঘটনা ঘটে চলার পথে, গোসল করার সময়। এমন কি একটিভিটি রুমে। ওই নারী বলেছেন, এক শিফটে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সম্ভবত এ কাজ করতে দেখেছি আমি ২৫ থেকে ৩০ জন বন্দিকে। আরেকটি সাক্ষ্যে বলা হয়েছে ৭০ জন বন্দিকে দেখাশোনার জন্য রাখা হয়েছিল দু’জন নারী প্রহরী বা কর্মকর্তাকে। কিন্তু ওইসব বন্দি এই নারী অফিসারদের সামনে তাদের স্পর্শকাতর অঙ্গ বের করে দেখাতে থাকে। এ সময় ওই নারী অফিসার সহায়তা চান কর্তৃপক্ষের কাছে। কিন্তু কোনো সহায়তা আসে নি। একজন অফিসার বলেছেন, আমার জীবনে এত ভয়াবহ অবমাননাকর ও বিব্রতকর অবস্থায় পড়ি নি কখনো। আমি ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম।
ক্যালিফোর্নিয়ার ভিক্টরভিলে কেন্দ্রীয় একটি কারাগারে সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন সান্দ্রা কার্পেন্টার। সেখানে তার প্রথম বছরে সেখানে তিনিও একই দৃশ্য দেখেছেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘এখনো অভিনয়ের ক্ষুধা মরে যায়নি’

জনবান্ধব-আওয়ামী লীগ

প্রত্যাখ্যান-গণফোরাম

সহায়ক -এফবিসিসিআই

মুশফিককে নিয়ে শঙ্কা

হঠাৎ ডেঙ্গু, ১৫ দিনে আক্রান্ত দুই শতাধিক

সীমান্ত হত্যা অনাকাঙ্ক্ষিত

জাতিসংঘের মর্যাদাপূর্ণ ইকোসকের সদস্য নির্বাচিত হলো বাংলাদেশ

হয়রানিতে সতর্ক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে বিএনপি স্থায়ী কমিটির জরুরি বৈঠক

ঝুঁকিপূর্ণ ওয়াহেদ ম্যানশনে রাতের আঁধারে চলছে নির্মাণ কাজ

বগুড়ায় ব্যবসায়ীকে থানায় নির্যাতন চার পুলিশ বরখাস্ত

নিম্নমানের কাগজে ছাপা হচ্ছে পাঠ্যবই

বাসায় আটকে দেহব্যবসা, কান্না শুনে দুই নারীকে উদ্ধার

জগন্নাথপুরে অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীকে নিয়ে ‘তোলপাড়’

তিস্তা, সীমান্ত হত্যা ও রোহিঙ্গায় জোর ঢাকার, ফের আশ্বাস দিল্লির