সব সাম্প্রদায়িক শক্তি ধানের শীষে ভিড়েছে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ নভেম্বর ২০১৮, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৩৩
অতি সমপ্রতি করা আসনওয়ারি জরিপের ফলাফলে আওয়ামী লীগই এগিয়ে আছে। ছয় মাস আগেও যেসব আসনে আওয়ামী লীগ কিছুটা পিছিয়ে ছিল, সেগুলোতে এখন ভালো অবস্থানে এসেছে। বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দেয়া দল আওয়ামী লীগেরই বিজয় হবে। গতকাল ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। সকল সাম্প্রদায়িক শক্তি এখন ধানের শীর্ষে ভিড়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, কয়েক দিন আগে করা ওই জরিপে কেবল আওয়ামী লীগের অবস্থানই দেখা হয়নি, যারা বিরোধী পক্ষ, প্রতিদ্বন্দ্বী পক্ষ আছে, তাদের অবস্থানও দেখা হয়েছে। এতে আওয়ামী লীগ তার প্রতিপক্ষ থেকে এগিয়ে আছে। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি বেপরোয়া হয়ে গেছে।

আসলে জনসমর্থনের যে পারদ, তাতে তাদের অবস্থান নিচের দিকে।
বিএনপি হতাশা থেকে বেপরোয়া বক্তব্য দিচ্ছে। তিনি বলেন, যারা এতদিন গণতন্ত্রের বেশে ছিলেন, তারা ছদ্মবেশী। তারা এতদিন মুক্তিযুদ্ধের নানা বুলি ছড়িয়েছিল। তারা নির্বাচনে জেতার জন্য, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে আঁতাত করতে থাকেন। তাদের সবার পরিচয় সাম্প্রদায়িক অপশক্তি। এটার বিরুদ্ধেই আওয়ামী লীগের লড়াই। তফসিল ঘোষণার পর থেকে কয়েকটি মামলায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে- বিএনপির এই অভিযোগের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আগুন দিয়ে পুলিশের গাড়ি পুড়িয়ে ফেলবে, ভাঙচুর করবে, ২০ জন পুলিশকে আহত করে হাসপাতালে পাঠাবে, এই অপকর্ম-সন্ত্রাস-সহিংসতার কাজ কি বিনা শাস্তিতে ঢাকা পড়ে যাবে? আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তফসিল ঘোষণার পর এই দুঃসাহস বিএনপি কীভাবে দেখায়? অপরাধ করলে কি অপরাধীর বিরুদ্ধে মামলা হওয়া অপরাধ? এটা ক্রিমিনাল অফেনস, অ্যাক্ট অব টেরোরিজম। এ ধরনের অপরাধ বিনা শাস্তিতে পার পাওয়া যাবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যেন নির্বাচনটা ভালোভাবে হয়, পুলিশ এ কারণে কোনো হস্তক্ষেপ করছে না। দেশের মানুষ যেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিতে পারে, এ জন্য সরকারি দল হিসেবে আওয়ামী লীগ অনেক কিছু সহ্য করে যাচ্ছে। বিএনপি যেন আওয়ামী লীগের সহনশীলতাকে দুর্বলতা না ভাবে। তিনি বলেন, পল্টনে পুলিশের ওপর হামলা করে বিএনপি প্রমাণ করেছে, তারা তাদের পুরোনো পথ, আগুন সন্ত্রাসের পথ ধরে এগিয়ে যেতে চায়। কারণ বিএনপি জানে, বাংলাদেশের জনগণের সমর্থন তাদের পক্ষে নেই। সে কারণে তারা সহিংসতার পথ, নাশকতার পথ বেছে নিয়েছে। কানাডার আদালত তাদের যে রায় দিয়েছে এই চরিত্র থেকে তারা বেরিয়ে আসতে পারবে না।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

সোহাগ

২০১৮-১১-১৬ ২০:৪৪:০৩

আর বাংলাদেশে বাস করা জনসাধারণ যে আপনাদের বিরুদ্ধে রায় দিচ্ছে তার কি কোনই মূল্য নেই!!!

Mizan

২০১৮-১১-১৬ ১৮:২৮:৩২

কথা গুলো মূলত পতিপক্ষকে ঘায়েল করার জন্য।এরকম আরও শব্দ আছে যেমন রাজাকার,,ইত্যাদি

তুহিন রহমান

২০১৮-১১-১৬ ১২:৪০:২৭

BAL পক্ষে সমর্থন না দিলেই যে কেউ স্বাধীনতা বিরোধী, সাম্প্রদায়িক শক্তি, আগুন সন্ত্রাসী, পাকিস্তানের দালাল ইত্যাদি ইত্যাদি। আর যদি- বি এ ল এর সমর্থক হয় প্রকৃত রাজাকার হলেও বীর মুক্তিযোদ্ধা।

আপনার মতামত দিন

আওয়ামী লীগের আরো ৫ বছর ক্ষমতায় থাকা প্রয়োজন

‘অবরুদ্ধ’ এলাকাছাড়া পাঁচ প্রার্থী

কমনওয়েলথের মাধ্যমে অবাধ নির্বাচনে অংশগ্রহণে বাংলাদেশিদের অধিকার রক্ষার অঙ্গীকার করতে হবে

ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার জাতির সঙ্গে তামাশা- আওয়ামী লীগ

লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড এখন অর্থহীন কথায় পর্যবসিত হয়েছে

আমার লাশ নিয়ে যাবে ভোট দিতে

কোটা আন্দোলনের নেতাদের চোখে ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন দূতের সাক্ষাৎ, শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আশা

জেলে থাকা ১৪ প্রার্থীর মুক্তি দাবি ঐক্যফ্রন্টের

মাঠ ছাড়বো না

আওয়ামী লীগের ইশতেহার ঘোষণা আজ

নির্বাচন কমিশন সক্ষমতা দেখাচ্ছে না: বাম জোট

হামলা-সংঘাত অব্যাহত

উচ্চ আদালতে আটকে গেল বিএনপির পাঁচ জনের প্রার্থিতা

ব্যাংক-পুঁজিবাজারে আস্থাহীনতায় সঞ্চয়পত্রে ঝোঁক

মনিরুল হক চৌধুরীর অবস্থা সংকটাপন্ন