নি র্বা চ নী হা ল চা ল(রাজশাহী ৪)

চ্যালেঞ্জে এনামুল আবু হেনা

শেষের পাতা

আসলাম-উদ-দৌলা, রাজশাহী থেকে | ১৬ নভেম্বর ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪৩
রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। দলীয় প্রার্থী কে হচ্ছেন অনেকটা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। সে সঙ্গে বাড়ছে ক্ষোভ। সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের বিরুদ্ধে একাট্টা আওয়ামী লীগের তৃণমূল। এমপি বিরোধী এই শিবিরের 
নেতৃত্ব দিচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম সান্টু ও তাহেরপুর পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়ররা মনোনয়ন পাবেন না বলে ঘোষণা দেয় আওয়ামী লীগ। এরপরও দুই প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

বিএনপিতে আলোচনায় আছেন সংস্কারপন্থিদের কাতারে পড়ে বহিষ্কৃত হওয়া সাবেক সচিব ও সচিব এসোসিয়েশনের সাবেক মহাসচিব আবু হেনা। ২৫শে অক্টোবর সংস্কারপন্থি ১১ জন সংসদ সদস্যকে সক্রিয় করতে গুলশান দলীয় চেয়ারপারসনের বৈঠক করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
এরপর থেকেই বিএনপি প্রার্থী হিসেবে আবু হেনার ফিরে আসাটা বেশ পক্ত হয়ে এসেছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক মনোনয়ন অনেকটাই নিশ্চিত। তবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই প্রার্থীর জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে অভ্যন্তরীণ বিরোধ।
মাঠে আছেন মহানগর জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ড. আবু ইউসুফ সেলিম। তিনি বর্তমানে জাতীয় পার্টির বাইরে থেকেই এলাকায় নিজস্ব পরিচিত কাজে লাগিয়ে জনসংযোগ চালাচ্ছেন।

সূত্র মতে, ২০০৮ সালের নির্বাচনে রাজশাহী-৪ আসনটি আওয়ামী লীগের দখলে আসে। এর আগে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের নির্বাচনে বাগমারা-মোহনপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসন থেকে বিএনপির আবু হেনা সংসদ সদস্য হন। ২০০৪ সালে বাগমারায় জেএমবির উত্থান নিয়ে বক্তব্য এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় সংস্কারপন্থি হিসেবে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। ২০০৮ সালের নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পান দলের তৎকালীন বাগমারা উপজেলা শাখার সভাপতি আব্দুল গফুর। তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী এনামুল হকের কাছে প্রায় ২৫ হাজার ভোটে পরাজিত হন। ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিনা ভোটে আবার সংসদ সদস্য হন ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। শিল্পপতি এই সংসদ সদস্যের পাশে নেই দলীয় হেভিওয়েট জনপ্রিয় নেতারা। নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে তৃণমূলের নেতারা নিজেরাই ভোটের মাঠে সক্রিয়।

তাহেরপুর পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের নিজের এলাকায় রয়েছে একচ্ছত্র আধিপত্য। পরপর দুবার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের কাছে মেয়র কালাম জনপ্রিয় ব্যক্তি। তেমনি উপজেলা চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সান্টু এক উপজেলার রাজশাহী-৪ আসনের প্রভাবশালী নেতা। সান্টু ও কালাম এনামুলের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা বেশ লম্বা। এই আসনটিতে অন্য আসনের মতো স্থায়ী কোনো প্রার্থী দেখা যায় না। আবু হেনা ছাড়াও মনোনয়ন দৌড়ে নাম শোনা যাচ্ছে- সাবেক সংসদ সদস্য রাজশাহী জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল গফুর, জেলা বিএনপি সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু, সহ-সভাপতি অধ্যাপক মকলেছুর রহমান মণ্ডল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ ওয়ালিউজ্জামান পরাগ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপি সভাপতি ডিএম জিয়াউর রহমান, ভবানীগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুর রাজ্জাক প্রামাণিক এবং জিয়া পরিষদের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক জাহিদ দেওয়ান শামীম।

সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল গফুর বলেন, ‘আমার বাড়ি জন্ম সবই বাগমারায়। বাগমারাবাসীর জন্য কাজ করে যাচ্ছি, কাজ করতে চাই। আশা করি আমিই মনোনয়ন পাব। নির্বাচিত হলে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবো। এখানে বহিরাগতরা এসে সুবিধা করতে পারবেন না।’

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউজ্জামান পরাগ মানবজমিনকে বলেন, ‘সারা দেশে রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া তরুণদের প্রতি আস্থাশীল। গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনে ছাত্রদল-যুবদল অনেক রক্তে দিয়েছে। আগামী নির্বাচনে তরুণদের নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। বাগমারা উপজেলায় তরুণ নিবেদিতপ্রাণ নেতাকর্মীরা দলকে ধরে রেখেছে। ছাত্রদলের জেলা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ২০১০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত তাদের পাশে ছিলাম। ১৬টি ইউনিয়নে যাদের ছাত্রদলের নেতৃত্বে আনা হয়েছিল তারাই আজকে বিএনপি-যুবদলের দায়িত্ব নিয়ে দলকে আরো শক্তিশালী করেছে। ‘ভিশন-২০৩০’ নিয়ে জনগণের দোড়গোড়ায় গিয়েছি। তৃণমূলের কর্মীরা আমাকে ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চান।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ক্ষমতায় আসতে না পারলে পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ হয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী

শেষ মরণ কামড় দিচ্ছে সরকার: রিজভী

টাঙ্গাইল ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব গ্রেপ্তার

সংঘাত গণতন্ত্রের সংজ্ঞা হতে পারে না: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

মৌলভীবাজারে বিএনপি নেতা কর্মীদের ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়া হচ্ছে

ঝালকাঠিতে বিএনপি প্রর্থীর গাড়ী ভাংচুর, মারধর

দৌলতপুরে বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ আটক ১৪

বাংলাদেশে নির্বাচনী প্রচারণা প্রাণঘাতী হয়ে উঠেছে

আমার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্যই এ বানোয়াট ফোনালাপ

পাবনায় অধ্যাপক সাঈদের গাড়িতে হামলা

এবারের নির্বাচন যাতে গতবারের মতো না হয়

চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক মঞ্চে প্রার্থীরা, নিলেন শপথ

গো বলয়ের রঙ বদলে বিরোধীরা আত্মবিশ্বাসী

নিতাই রায় চৌধুরীর নির্বাচনী অফিসে হামলা-ভাংচুর

সিলেটে প্রচারণায় গিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ অসুস্থ

খন্দকার মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ থানায়