পরেশ বড়ুয়াকে তুলে দেবার ব্যাপারে চীন আগ্রহী নয়

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৫ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:০২
ভারত ও চীনের মধ্যে এই প্রথম নিরাপত্তা চুক্তি হযেছে। এই চুক্তিতে নিরাপত্তা ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়টিকেই প্রধান্য দেওয়া হয়েছে। তবে সম্প্রতি নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ এবং চীনের নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ঝাও কেঝির বৈঠকে ভারতের পক্ষ থেকে নিষিদ্ধ উলফা (স্বাধীন) নেতা পরেশ বড়ুয়াকে ভারতের হাতে তুলে দেবার জন্য চীনের কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছিল। রাজনাথ এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যও তুলে দিয়েছিলেন চীনা মন্ত্রীর হাতে। কিন্তু চীনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনও উচ্চবাচ্যই বৈঠকে করা হয়নি বলে জানা গেছে। বরং গত বুধবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র হুয়া চুনিয়াং পরেশ বড়ুয়ার বিষয়টি এক রকম উড়িয়েই দিয়েছেন। পরেশকে আশ্রয় দেয়া এবং ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জঙ্গিদের অস্ত্র সহায়তা করার অভিযোগ প্রসঙ্গে হুয়া বলেছেন, আমি জোর দিয়েই বলতে চাই, অন্যান্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে চীন সরকার কখনও নাক গলায় না। এটা আমাদের নীতি।
এই নীতির কোনও পরিবর্তন হয়নি। পররাষ্ট্র মন্ত্রকের একাংশের মতে, পরেশ যে তাদের আশ্রয়ে রয়েছেন, এ ভাবে কার্যত সেই তথ্যটিকেই অস্বীকার করেছেন চীন নেতৃত্ব। অথচ ভারতের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা জানিয়েছে, উলফার এই শীর্ষ নেতা চীন-মায়ানমার সীমান্তে চীনেরই সম্পূর্ণ সহযোগিতায় লুকিয়ে রয়েছেন। অন্যদিকে  রাষ্ট্রপুঞ্জের নিষিদ্ধ জঙ্গি তালিকায় জইশ প্রধান মাসুদ আজহারের নাম ঢোকানোর যে চেষ্টা ভারত করে চলেছে, তাতে যেন বাধা না আসে সেজন্য চীনকে জঙ্গি হিসেবে মাসুদকে স্বীকৃতি দেবার অনুরোধ জানানো হয়েছিল। সেই অনুরোধও চীন সরকার আমলের আনেনি। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, মাসুদ আজহার সম্পর্কে নিজেদের অবস্থান থেকে একচুলও নড়তে নারাজ তারা। হুয়ার কথায়, সংগৃহীত তথ্য বিশ্লেষণ করে যা পাওয়া যাচ্ছে, তার ভিত্তিতে আজহারকে কোনও ভাবেই নিষিদ্ধ জঙ্গিদের তালিকার অন্তর্ভুক্ত করা চলে না।চীন বরাবরই আন্তর্জাতিক জঙ্গি দমন অভিযানে অংশগ্রহণ করে থাকে। কিন্তু নিজস্ব বিচারের ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নিই আমরা।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সৌম্যই পারলেন

নিজের বাড়ি ফিরতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান ব্যারিস্টার তুরিনের মা

বিশ্বকাপের ২শ ছক্কা

২০ কিলোমিটার পথ পেরুতেই লাগছে ৬ ঘন্টা

টুঙ্গিপাড়ায় ৫টি মামলায় পুরুষশূন্য এলাকা

পরিবাগে বহুতল ভবনে আগুন

সাকিব কেন ২০১৯ বিশ্বকাপের সেরা তার ব্যাখ্যা দিয়েছে ট্রেলিগ্রাফ

এশিয়া-প্যাসিফিকে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ বাংলাদেশ- এডিবি

ঝিনাইদহে ৬৩ শতক জমি নিয়ে বিরোধ তুঙ্গে

ধর্ষণ মামলা করে বিপাকে প্রতিবন্ধী যুবতীর পরিবার

যশোরে বাসচাপায় মেধাবী দুই স্কুলছাত্র নিহত

‘নাগরিকত্ব ও সম্মান নিয়ে মিয়ানমারে ফিরতে চায় রোহিঙ্গারা’

চৌদ্দগ্রামে দুই লাশ উদ্ধার

মারা গেলেন স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ সাজেনূর

লতিফ সিদ্দিকী কারাগারে

অর্থনৈতিক স্বপ্নে পৌঁছতে হলে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে ভাবতে হবে