চুরির অভিযোগে পালাক্রমে ধর্ষণ

অনলাইন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, সোমবার, ২:৫০ | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৪৬
১৭ বছর বয়সী এক তরুণী চাকরী করতেন বোরকার দোকানে। তার বান্ধবী যোগ দেয় সেই দোকানে। কিন্তু হায় বান্ধবী যোগদানের প্রথম দিনেই দু’জনের বিরুদ্ধে আনা হয় চুরির অভিযোগ। আর মোবাইল ফোন চুরির বিচারের নামে আটকে রেখে দুই কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ৮ যুবক। রক্তাক্ত অবস্থায় দুই কিশোরীকে উদ্ধারের পর পুলিশ ৬ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। পলাতক রয়েছে আরো দুই যুবক। গতকাল রবিবার দিনগত রাতে চট্টগ্রাম মহানগরীর নিউ মার্কেট মোড়ের জলসা মার্কেটের নবম তলার ছাদে দুই কিশোরীকে ধর্ষণের এই ঘটনা ঘটে বলে জানান কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন।

ধর্ষিতা দুই কিশোরীর নাম গোপন রাখা হলেও ঘটনায় জড়িত যুবকদের নাম বলেছেন ওসি। এরমধ্যে গ্রেপ্তারকৃত ৬ যুবক হচ্ছেন-জাহাঙ্গীর আলম (২৪), ফারুক (২৭), আব্দুল আউয়াল ওরফে ডালিম (৩০), কবির (২৭), বাবলু (২৮) ও সেলিম (৩৫)।
আর পলাতক দুই যুবক হচ্ছেন-রুবেল (২৫) ও এনাম (২৭)।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ১৭ বছরের এক তরুণী আগে থেকে জলসা মার্কেটে চাকরি করতো। ওই মার্কেটের ৫ম তলার জয়ন্তী বোরকা হাউসের মালিক রাশেদ তাকে জানায়, তার দোকানের জন্য একজন মহিলা কর্মচারী লাগবে। সে হিসেবে ওই তরুণী ১৬ বছর বয়সী তার এক বান্ধবীকে নিয়ে রবিবার দুপুর ২টার দিকে রাশেদের দোকানে যায়।

কথা বলে চলে আসার সময় রাশেদের দোকানের এক মেয়ের মোবাইল হারিয়ে গেছে বলে ডালিম ও সেলিম নামের দুইজন তাদেরকে আটকিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রথমে রাশেদের রুমে বসিয়ে মোবাইল চুরি করেছে কিনা জানতে চাওয়া হয়। এরপর সেলিমের দোকানে নিয়ে যাওয়া হয়।
 
এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিচারের কথা বলে দুই কিশোরীকে জলসা মার্কেটের ৯ম তলার ছাদে নিয়ে যায় তারা। সেখানে আটজনই পালাক্রমে দুই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পালাক্রমে ধর্ষণে রক্তাক্ত হওয়ার পর তারা দুই কিশোরীকে মুমুর্ষ অবস্থায় ছাদে রেখে যায়।
 
এদিকে বাড়ি থেকে বের হওয়ার দীর্ঘক্ষণ পরও ঘরে না ফেরায় ১৭ বছরের ওই তরুণীর মা রাত সাড়ে ১০টার দিকে জলসা মার্কেটে যান। সেখানে সমিতির লোকজনদের বলার পর খোঁজাখুঁজি করে মার্কেটের ছাদে গিয়ে তার মেয়ে ও মেয়ের বান্ধবীর খোঁজ পান। এ সময় তারা অসুস্থ অবস্থায় সেখানে পড়ে ছিল।

খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই কিশোরীকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে রাত দুইটার দিকে ৮ ধর্ষকের ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। টের পেয়ে দুই ধর্ষক পালিয়ে যায় বলে জানান কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mustak Ahmed

২০১৮-০৯-২৪ ০৫:০৭:২৯

Strict punishment must be given to stop this henious act from our Soviet.

kazi

২০১৮-০৯-২৪ ০২:১৪:৫২

ধর্ষণের উৎকৃষ্ট সাজা হল খোজা করা। যা দক্ষিণ কোরিয়ায় চালু ছিল। ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্কে চালু হয়েছে। যতদিন এই সাজা চালু করে আইন হবে না ততদিন ধর্ষণ বন্ধ হবে না।

আপনার মতামত দিন

ড. কামালের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি

ওসমানী বিমানবন্দরে ৬ কেজি স্বর্ণ জব্দ উদ্ধার

পশ্চিম জেরুজালেমকে এবার ইসরাইলের রাজধানী স্বীকৃতি দেবে অস্ট্রেলিয়া

‘সংকটময় মুহূর্তে বাংলাদেশ’

বিজয় দিবসে যেসব সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ড. কামালের নেতৃত্বে স্বাক্ষাতের অনুমতি চেয়েছে বিএনপি

ড. কামালের ওপর হামলা: নির্বাচন নেতিবাচক দিকেই যাচ্ছে

নাটোরে বিএনপির সাত নেতাকর্মী আটক

ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি মামুন গ্রেপ্তার

‘ওয়েব সিরিজও টাকা দিয়েই দেখতে হয়’

বিএনপি নেতা কামালকে না পেয়ে ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ

সিরাজগঞ্জে পুলিশের গুলিতে বিএনপি প্রার্থী রুমানা মাহমুদ আহত

বাংলাদেশে বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিতে মার্কিন কংগ্রেসে রেজ্যুলেশন পাস

‘সরকার আর ১৫ দিন ক্ষমতায়, বেআইনি আদেশ মানবেন না’

ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলা

খামোশ বললেই জনগণ খামোশ হবে না