যশোরে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু কুইন্স হসপিটালে ভাঙচুর

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর থেকে | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার
ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে যশোরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় যশোর কোতোয়ালি থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। এদিকে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর শিকার গৃহবধূ পিংকী নাথের শেষকৃত্য গতকাল শুক্রবার বিকালে যশোর নীলগঞ্জ মহাশ্মশানে সম্পন্ন হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে যশোরের কুইন্স হসপিটালে ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে থাকা সদ্যোজাত শিশুসহ প্রসূতি পিংকি নাথ (৩০) মারা যান। তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহিতকুমার নাথের পুত্রবধূ।
ভেজাল ইনজেকশন পুশ করায় এই প্রসূতি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন বলে ডাক্তার জাকির হোসেন দাবি করেছেন। গৃহবধূ পিংকি অনেক চিকিৎসার পর আট বছরের মাথায় এসে সন্তান ধারণ করেছিলেন। গত বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে কুইন্স হসপিটালে ডাক্তার জাকির হোসেন পিংকি নাথের সিজারিয়ান অপারেশন করেন। অপারেশনের পর রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মা ও শিশু উভয়ই সুস্থ ছিলেন।
রুটিন ডিউটিতে এসে ডাক্তার জাকির হোসেন প্রসূতির জন্য প্রেসক্রিপশন করেন। ওই প্রেসক্রিপশনের আলোকে হাসপাতালের একজন স্টাফ নার্স রাত ১০টার দিকে প্রসূতিকে একটি ইনজেকশন পুশ করেন। এ সময় পিংকি নাথ যন্ত্রণায় ছটফট শুরু করে ইনজেকশন পুশ করতে নিষেধ করেন। কিন্তু নার্স একগুঁয়েমিপনা করে অনেকটা জোর পূর্বক পিংকি নাথের স্বজনদের উপস্থিতিতেই ওই ইনজেকশন পুশ করেন। নিহতের স্বজনদের দাবি ওই ইনজেকশন পুশ করার পর পরই পিংকি নাথ নিস্তেজ হয়ে পড়েন। পর মুহূর্তে ডাক্তার জাকির হোসেনসহ অন্যরা উপস্থিত হয়ে বেশ কিছু প্রতিষেধকমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করেন। কিন্তু ততক্ষণে পিংকি নাথ ৮ ঘণ্টা আগে জন্ম নেয়া কোলের সন্তানকে রেখে পরপারে পাড়ি জমান। এদিকে, মোহিতনাথের পুত্রবধূর অপমৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বহু লোক চড়াও হয় কুইন্স হসপিটালে। তারা হাসপাতালটির সপ্তম তলায় ওঠে আসবাবপত্র তছনছ করে। ভেঙে ফেলে জানালার গ্লাসগুলো। এই সময় আতঙ্কময় পরিবেশের সৃষ্টি হয় গোটা হাসপাতালে। খবর পেয়ে কোতোয়ালি থানা থেকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ হাজির হয় কুইন্স হসপিটালে। তারা উত্তেজিত লোকজনকে হাসপাতাল থেকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।
থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) আবুল বাশার হাসপাতালটিতে ভাঙচুরের তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
কুইন্স হসপিটালের ব্যবস্থাপক মিঠু সাহা দাবি করেন, লোকজন উত্তেজিত হয়ে সামান্য ভাঙচুর করেছে। এতে তেমন ক্ষতি হয়নি। তিনি দাবি করেন, ভুক্তভোগীদের কেউ ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িত না। ‘তৃতীয় পক্ষ’ এই ঘটনা ঘটিয়েছে।
হাসপাতালটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন কবীর কবু জানান এই ধরনের ঘটনা অবশ্যই অনাকাঙ্ক্ষিত। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে নিহতের পরিবারসহ স্বজন ও উচ্চপর্যায়ের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছি। চিকিৎসকদের দাবি হচ্ছে, এই ধরনের ঘটনা লাখে একটা ঘটতে পারে। তারপরও বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রকৃত সত্য উদঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে। তিনি এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘হামলা চালিয়ে পুলিশ নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে’

স্পিকারের ঘোষণা: পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছেন রাজাপাকসে

বিনা উস্কানিতে পুলিশের ওপর হামলা:ডিসি মতিঝিল

একপক্ষ নির্বাচন করবে, আর আমরা আদালতে আসবো তা হতে পারে না

ছররা গুলির স্প্লিন্টারে আহত মানবজমিন প্রতিবেদক রুদ্র মিজান

‘নয়া পল্টনে সরকারের পরিকল্পিত হামলা’

ফের হেলমেট বাহিনী!

গণভবন ঘিরে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ঢল

রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা ক্ষমার অযোগ্য

তৃতীয় দিনেও বিএনপির মনোনয়নপত্র কিনতে উপচে পড়া ভিড়

পশ্চিমবঙ্গের নাম বাংলা করা নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের আপত্তি

সরকারী টাকায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচার বন্ধের দাবি বিএনপির

২৮ বছর বয়সেই ফোর্বস ম্যাগাজিনে নাম!

ট্রেন চলাচল বন্ধ

কক্সবাজারে উজ্জ্বীবিত বিএনপি

ডিসেম্বরে শুনানি শেষে চূড়ান্ত রায় শ্রীলঙ্কা সুপ্রিম কোর্টের