মাহমুদুল্লাহ পেয়েছেন লড়াইয়ের ‘মন্ত্র’

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
আর ২ দিন পরই শুরু হবে এশিয়ার ক্রিকেটে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। এরই মধ্যে দুবাইয়ে একত্রিত হয়েছে বাংলাদেশের ১৬ সদস্যের দল। শুরুতে রোববার মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বে সংযুক্ত আরব আমিরাতে গিয়েছিল ১৩ জন। সেখানে তার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসে যোগ দেন সাকিব আল হাসান। ভিসা জটিলতা কাটিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রুবেল হোসেন ও মধ্যরাতে বিমানে চেপেছিলেন তামিম ইকবাল। গতকাল দুবাইয়ে আইসিসির ক্রিকেট একাডেমিতে অনুশীলন করেছে টাইগাররা। আগের তিন এশিয়া কাপে নিজ দেশের মাটিতে দুটিতেই ফাইনাল খেলেছিল টাইগাররা। কিন্তু শিরোপা থেকেছে অধরা।
এবার অবশ্য চ্যালেঞ্জ আরো কঠিন। বিদেশের মাটিতে লড়াই। উদ্ধোধনী দিনেই তাদের লড়াই এশিয়ার অন্যতম শক্তি শ্রীলঙ্কার সঙ্গে। যাদের বিপক্ষে দেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের ফাইনালে আছে হারের লজ্জা। সেই সঙ্গে সাবেক কোচ হাথুরু সিংহেও থাকবে টাইগারদের অদৃশ্য প্রতিপক্ষ হিসেবে। তাই এশিয়া কাপের শুরুর লড়াইও সহজ নয়। কিন্তু দারুণ বিশ্বাস আর অনুপ্রেরণা খুঁজে পেয়েছেন দলের সিনিয়র ক্রিকেটার অলরাউন্ডার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সব শেষ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাদের মাটিতে দুইবার জয় তুলে নিয়ে নিদাহস ট্রফির ফাইনাল খেলেছিল বাংলাদেশ। মূলত এই সুখ স্মৃতিই মাহমুদুল্লাহর অনুপ্রেরণার ‘মন্ত্র’। গতকাল অনুশীলনের ফাঁকে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘কয়েক মাস আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভালো কিছু স্মৃতি আছে আমাদের। তবে শ্রীলঙ্কা খুব ভালো দল। বেশ ভালো ক্রিকেট খেলছে ওরা। ওদেরকে হারাতে আমাদের খেলতে হবে নিজেদের সেরাটা। দেশে আমাদের প্রস্তুতি খুব ভালো হয়েছে। আশা করি আমরা পারবো।’
তবে নিদাহাস ট্রফি ছিল টি-টোয়েন্টি ফরমেটে। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ইনজুরিতে থাকায় দলের নেতৃত্বে ছিলেন মাহমুদুল্লাহ। ইসুরু উদানার বলে মাহমুদুল্লাহর দুর্দান্ত এক শটে ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল দলের। অন্যদিকে মার্চে নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ দুটি ম্যাচ জিতলেও জানুয়ারিতে বাংলাদেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজে অভিজ্ঞতা ছিল ভিন্ন। সেবার প্রথম দেখায় বাংলাদেশ জিতলেও পরের দুই ম্যাচ হেরে শিরোপা হাত ছাড়া করে মাশরাফির দল। তাই ওয়ানডে ফরমেটে টাইগারদের সাবেক গুরু হাথরু সিংহের লঙ্কাকে হারানো সহজ হবে না তা ভালো করেই জানেন মাহমুদুল্লাহ। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারাতে পারলে দ্বিতীয়টিতে প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। এই দুই ম্যাচ জিতলে নিশ্চিত হবে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা।
দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারলে অপেক্ষা করবে ভারত, পাকিস্তানের সঙ্গে বড় চ্যালেঞ্জ উতরে ফাইনাল খেলা। তবে আরো একটি প্রতিপক্ষ আছে টাইগারদের। সেটি দুবাইয়ের প্রচণ্ড তাপ- অসহনীয় গরম। এই প্রতিপক্ষের সঙ্গেও প্রতিনিয়ত লড়াই করে এগিয়ে যেতে হবে এশিয়া কাপের মঞ্চে। তবে সব রকম পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে বেশ আত্মবিশ্বাসী রিয়াদ। গরম নিয়ে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘এই মুহূর্তে এখানে বেশ গরম। তবে পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে আমাদের। পরিস্থিতি যেমনই হোক, সেটিকে আলিঙ্গন করে নিতে হবে ইতিবাচক ভাবে।’
সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রায় ২৩ বছর পর খেলতে যাচ্ছে জাতীয় দল। বর্তমান দলের সদস্যদের মধ্যে মাত্র গুটিকয়েরই আছে সেখানে খেলার অভিজ্ঞতা। তবে এই দেশ পাকিস্তানের জন্য ফেভারিট। এটিকে পাকিস্তানের হোম ভেন্যুও বলা হয়। ভারতেরও এখানে সমর্থক কম নয়। অবশ্য মাহমুদুল্লাহ আশা করেন এখানে দর্শক কমতি হবে না। কারণ সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবাসী বাংলাদেশি অনেক। মাঠে তাই দর্শক সমর্থন কমতির কারণ নেই। মাহমুদুল্লাহ জানালেন, দলও তাকিয়ে সেদিকে। তিনি বলেন, ‘আশা করি এখানে বেশ ভালো দর্শক সমর্থন পাবো আমরা, কারণ অনেক বাংলাদেশি থাকেন এখানে। আশা করি তারা মাঠে আসবেন এবং আমাদের সমর্থন জানাবেন। আমরাও চাইব তাদের জন্য ভালো কিছু করতে।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে রাখার মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নে এগোচ্ছে সরকার: ফখরুল

ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ তিতাসের ৮ কর্মকর্তাকে দুদকে তলব

দুই পার্সেলে ২০৮ কেজি ’খাট’

দুটি আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

সাবেক তিন খেলোয়াড়কে ফ্ল্যাট দিলেন প্রধানমন্ত্রী

জনগণের বিরুদ্ধে নয়, কল্যাণে আইন করতে হবে

পুলিশের লাঠিচার্জে জোনায়েদ সাকি সহ আহত অর্ধশত (ভিডিওসহ)

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে স্বাক্ষর না করতে প্রেসিডেন্টের প্রতি অনুরোধ

খালেদার অনুপস্থিতিতেই চলবে বিচার কাজ

গণমাধ্যমের হাত-পা বেঁধে ফেলতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন : রিজভী

চাপ, হুমকির মুখে দেশ ত্যাগ করেছি (ভিডিওসহ)

বন্দরে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

এসকে সিনহা মনগড়া কথা বলছেন

সরকারি কর্মকর্তাদের বিমানের ফ্লাইটে যাতায়াত বাধ্যতামূলক

‘প্রকাশের আগে ভাবিনি এত সাড়া মিলবে’

মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় ঐক্যের সমাবেশে যোগ দেবে বিএনপি