সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে ভারতীয় সেনারা লেপার্ডের মুত্র নিয়ে গিয়েছিল

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
দু’বছর আগে ২০১৬ সালের ২৮-২৯ সেপ্টেম্বরের রাতে ভারতীয় সেনাবাহিনী পাকিস্তানের অভ্যন্তরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে অংশ নিয়েছিল। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকটা ৫ ঘন্টা ধরে চলেছিল। অনেক ভেবে চিন্তে এই অপারেশন করা হয়েছিল। সেনাবাহিনীর ধ্রুব হেলিকপ্টার বিশেষ কমান্ডো বাহিনীকে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভূখন্ডে নামিয়ে দিয়েছিল। তারপরও যেতে হয়েছিল আরও তিন কিলোমিটার। কিন্তু সেই অপারেশনে ভারতীয় কমান্ডোরা সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিলেন লেপার্ডের মুত্র।

এতদিনে এই তথ্য জানা গিয়েছে। আর জানিয়েছেন সাবেক নাগরোটা কর্পস কমান্ডার তথা লেফটন্যান্ট জেনারেল আর আর নিমভরকার।
তিনি বুধবার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের কথা বলতে গিয়ে জানান, সেনাবাহিনীর সেই দল লেপার্ডের মূত্র সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু কেন? এর উত্তরও দিয়েছেন তিনি। লেফটন্যান্ট জেনারেল আর আর নিমভরকার জানিয়েছেন, সেনাবাহিনীর সেই দল লেপার্ডের মূত্র নিয়ে গিয়েছিল সেখানকার পথের কুকুরদের সামলাতে। তিনি বলেন, সেখানে সম্ভাবনা দেখা গিয়েছিল গ্রামের কুকুররা চিৎকার করতে পারে।

যে পথ দিয়ে সেনাবাহিনী পাক অধিকৃত কাশ্মীরে গিয়েছিল সেখানকার গ্রামগুলিতে প্রচুর রাস্তার কুকুর ছিল। তাদের চিৎকারে পাকিস্তানের মাটিতে থাকা জঙ্গি এবং সেনারা সতর্ক হয়ে যেত। ফলে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করা যেত না। কিন্তু লেপার্ডের গন্ধ পেলে কুকুররা আমাদের কাছেও ঘেঁষবে না। সেটা জানা ছিল। তাই আমরা লেপার্ডের মূত্র সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলাম। উল্লেখ্য, এই সার্জিক্যাল অপারেশনটি দিল্লিতে বসে মনিটর করেছিলেন তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং সেনাবাহিনীর চিফ জেনারেল দলবীর সিং।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

সৈয়দ মহম্মদ মুসা

২০১৮-০৯-১২ ০৭:০১:৫১

ভারতের ওই তথাকথিত সার্জিক‍্যাল স্ট্রাইক সত‍্যি কি হয়েছিল ? ওই সময় ভারতেরই তারড় তাবড় রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞরা পর্যন্ত ওই অভিযান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিল। ভারত বলেছিল যথা সময়ে সার্জিক‍্যাল স্ট্রাইকের ভিডিও প্রকাশ করা হবে। এখনও 'যথা সময়' এল না ? এ থেকে কি প্রমাণ হয় ?

আপনার মতামত দিন

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন ফরম নিলেন যারা

বিএনপিতে ফিরলেন সাবেক এমপি আব্দুর রশিদ

জোটবদ্ধ নির্বাচন হলেও সম্মানজনক আসন পাবো

নেতা-কর্মীরাই সামলাচ্ছেন সড়কের জট

চীন বা রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে হেরে যেতে পারে যুক্তরাষ্ট্র!

গ্যাটকো মামলায় খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ১০ জানুয়ারি

‘ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়’

পল্টনে হামলা বিএনপির পূর্ব পরিকল্পিত

ফেনীতে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার রায় যুবকের যাবজ্জীবন

বিকেল ২টায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন শুরু

সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে সকল অন্তরায় সরাতে হবে

খালেদাকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে পাঠানোর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা রিটের আদেশ রোববার

ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচন পেছানোর দাবি অযৌক্তিক

শহিদুল আলমকে অরুন্ধতী রায়ের খোলাচিঠি

প্রতীক বরাদ্দের সময় বাড়ানোর আবেদন

নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হলে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মুখ দেখানো যাবে না