১০ বছর পর ধর্ষণ ও ৪ বছর পর হত্যা মামলার রায়

অনলাইন

নাটোর প্রতিনিধি | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার, ৩:৩৫
নাটোরে প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ এবং যুবক আরমান হত্যা মামলায় পৃথক রায়ে তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আজ বুধবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এবং জেলা ও দায়রা জজ আদালত পৃথক এই দুটি মামলার রায় ঘোষণা করেন।

২০০৮ সালের ৯ই সেপ্টেম্বর সদর উপজেলার জংলী মন্ডলপাড়া এলাকায় প্রতিবন্ধী ইতি খাতুন বাড়িতে খেলাধুলা করছিল। এসময় বাড়িতে একা পেয়ে প্রতিবেশী আলাল উদ্দিন ঘরের ভিতর নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ইতি খাতুনের পিতা বাদি হয়ে আলাল উদ্দিনকে আসামী করে সদর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার সাক্ষ্য প্রমাণে অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ মইনুল ইসলাম আলালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৫০হাজার টাকা জরিমানা করেন।

অপরদিকে, ২০১৪ সালের ১৩রা সেপ্টেম্বর সদর উপজেলার রামনগর এলাকায় আরমান আলী নামের এক যুবককে কয়েকজন সহযোগী বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এসময় রাতের কোন এক সময় হত্যা করে একটি বাঁশ বাগানে লাশ ফেলে রেখে যায়।
পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এই ঘটনায় আরমানের বাবা আব্দুস সালাম বাবলু মেম্বার এই ঘটনায় বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে নাটোর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে মামলার স্বাক্ষ্য প্রমান শেষে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রেজাউল করিম রামনগর এলাকার মোতাহার আলীর ছেলে সুমন আলী এবং কালা মিয়ার ছেলে আব্দুল আলিমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মসজিদ-উল নববীর ইমাম কারাগারে ‘মারা গেছেন’

জনগণের আস্থার মর্যাদা সমুন্নত রাখতে হবে

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদে ভোট ২৮শে ফেব্রুয়ারি

এমন মৃত্যু আর কত?

এক কিংবদন্তির প্রস্থান

ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে বিএনপির ১০ কমিটি

স্পাইসগার্ল টি-শার্ট এবং বাংলাদেশের গার্মেন্ট খাত

ইভিএমের কারচুপি জেনে ফেলায় খুন হন বিজেপি নেতা!

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে শাহবাগে ফের অবরোধ

ইজতেমা নিয়ে আদালতে আসা লজ্জাকর

তিনি সজ্জন, ভালো মানুষ

দেশে গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে এগিয়ে যাবে- প্রধানমন্ত্রী

সংরক্ষিত আসনে এমপি হতে চান ব্যারিস্টার মৌসুমী কবিতা

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আফজালের সব সম্পদ জব্দের নির্দেশ

মির্জাপুরে বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী কারাগারে

মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সুবিধা আরো বাড়লো