গায়েবী মামলা দিচ্ছে সরকার, অভিযোগ ফখরুলের

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার, ১১:০২ | সর্বশেষ আপডেট: ১:১৯
বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চুসহ গাজীপুরে ১৪০ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
বুধবার এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, অনেকে দেশের বাইরে এবং হাসপাতালে থাকার পরও তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে। জনগণের মধ্যে ভীতি ও আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়ে চিরদিন রাষ্ট্রক্ষমতায় আসীন থাকার স্বপ্নে বিভোর হয়েই বর্তমান শাসকগোষ্ঠী দেশব্যাপী বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দায়ের ও কারান্তরীণ করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, দেশের বাইরে থাকা এবং হাসপাতালে ভর্তি থাকা সত্ত্বেও তাদের বিরুদ্ধে কাল্পনিক ও গায়েবী মামলা দায়েরের ঘটনায় এটি সুস্পষ্ট যে, সরকার সুপরিকল্পিতভাবে বিএনপি  নেতাকর্মীদের ওপর তীব্র জুলুম নির্যাতন চালিয়ে ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারীর মতো আবারও একটি একতরফা নির্বাচন করতে চায়। কিন্ত জনগণের মিলিত ঐক্যে সেই স্বপ্ন আর কখনোই পূরণ করতে পারবে না সরকার। উল্লিখিত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে গায়েবী, মিথ্যা ও সাজানো মামলা দায়েরের ঘটনায় আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি করছি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ঋণ খেলাপি হওয়ায় চিফ হুইপ ফিরোজ নির্বাচন করতে পারবেন না: আইনজীবী

প্রেমিককে হত্যার পর...

সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্বাচন নয়

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে আরব আমিরাতে বৃটিশ শিক্ষার্থীর জেল

বয়সের পার্থক্য ৪৫ বছর, দাম্পত্যের গোপন রহস্য

প্রতিযোগিতাপূর্ণ অর্থনীতিতে সুশাসন প্রয়োজন

বিএনপি নেতা গিয়াস কাদের চৌধুরী কারাগারে

১৫ ডিসেম্বরের পর মাঠে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী

বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে আমরা অর্থনৈতিক কূটনীতিকে প্রাধান্য দিচ্ছি

‘খাসোগি হত্যায় ক্রাউন প্রিন্সের বিচার চাওয়া সীমা লঙ্ঘন’

ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে যা থাকছে

জনগণের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে, সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে

পৌঁছামাত্র বাংলাদেশীদের ভিসা দেবে চীন

ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ১০ জানুয়ারি

ঢাকায় ডেঙ্গু নিয়ে গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন, এ বছর মারা গেছেন ১৭ জন

তৈরির পোশাক খাতের জন্য অশনি সংকেত