চট্টগ্রামে সাগরে গোসল করতে নেমে কলেজছাত্র নিখোঁজ

বাংলারজমিন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমেছিল দুই কলেজছাত্র। এরমধ্যে একজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হলেও আরেকজন নিখোঁজ রয়েছেন এখনো।
মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন পতেঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া।

ওসি জানান, দুই কলেজছাত্র হলো নাফিস খান এবং এসএম আসিফ শাহরিয়ার রুবেল। এদের বয়স ১৭ বছরের মধ্যে। দুজনই চট্টগ্রাম নৌবাহিনী স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি ভার্সনের উচ্চমাধ্যমিক শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী।

নাফিস খান চট্টগ্রাম মহানগরীর চান্দগাঁও থানার পাঠাইন্যাগোদা এলাকার আছর খানের ছেলে। আর আসিফ শাহরিয়ার কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার দুলাহাজরা গ্রামের মো. বারেকুল হকের ছেলে বলে জানান ওসি।
ওসি বলেন, দুই বন্ধু ক্লাস ফাঁকি দিয়ে মঙ্গলবার সকালে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে গিয়েছিল। তীরে ব্যাগ রেখে দুজনই সাগরের পানিতে গোসল করতে নামে।
এসময় প্রবল জোয়ারের ঢেউয়ে দুজনকে টেনে নিয়ে যায়। টের পেয়ে সেখানে থাকা কয়েকজন পর্যটক নাফিসকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি করে। কিন্তু এসএম আসিফ শাহরিয়ার এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।

চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক পূর্ণচন্দ্র মুৎসদ্দী জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খবর পাওয়ার পর ফায়ার সার্ভিস ও নৌবাহিনীর ডুবুরি দল যৌথভাবে আসিফ শাহরিয়ারকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। কিন্তু এখনো পর্যন্ত তাকে খোঁজে পাওয়া যায়নি। তার বেঁচে থাকার আশাও ক্ষীণ বলে জানান তিনি।





এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভোট হয়েছে রাতেই, নেতাদের প্রতিও ক্ষোভ

নাটেশ্বরের ঘরে ঘরে কান্না

গাড়িতে গাড়িতে ‘গ্যাস বোমা’

রাসায়নিকের গোডাউন ওয়াহেদ ম্যানশন

সরকারকে দায়ী করে বিএনপির মন্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন: তথ্যমন্ত্রী

চ্যালেঞ্জ ছুড়ে সিলেটে মাঠে ৫ বিদ্রোহী আওয়ামী লীগে দ্বিধাবিভক্তি

সড়কে মৃত্যুর মিছিল যেন স্বাভাবিক

বাংলাদেশের জনগণ ভালো থাকলে কিছু মানুষ অসুস্থ হয়ে যায়

গা ঢাকা দিয়েছেন গোডাউন মালিকরা

চার জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৫

কোথায় হারালো দুই বোন

আজিমপুরে শোকের মাতম

কান্নায় ভারি হয়ে উঠেছে বাতাস

কন্যার স্মৃতিতে পিতা

বাংলাদেশের জনগণ ভালো থাকলে কিছু মানুষ অসুস্থ হয়ে যায়

দরিদ্র্যতা নয় লোভের বলি