কয়লা কেলেঙ্কারি

পেট্রোবাংলার ৭ কর্মকর্তাকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৪৬
বড়পুকুরিয়ার কয়লা কেলেঙ্কারির ঘটনায় পেট্রোবাংলার ৭ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল দুদকের প্রধান কার্যালয়ে  উপপরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সামছুল আলম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। সকাল পৌনে ১০টায় জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। বড়পুকুরিয়ায় ১ লাখ ৪৫ হাজার টন কয়লা খোলাবাজারে বিক্রি করে প্রায় ২৩০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়। এ সংক্রান্ত মামলার তদন্তে বাংলাদেশ তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশনের (পেট্রোবাংলা) সাত কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদকৃতরা হলেন- পেট্রোবাংলার উপমহাব্যবস্থাপক (মেনটেন্যান্স অ্যান্ড কন্টাক্ট ম্যানেজমেন্ট) মো. নাজমুল হক, ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্ট) মো. শোয়েবুর রহমান এবং ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) মো. সাইদ মাসুদ, উপব্যবস্থাপক (মেনটেন্যান্স অ্যান্ড অপারেশন) মো. মাহাবুব হোসেন; সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) মো. মনিরুজ্জামান; সহকারী ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্ট) মো. মাহাবুব রশিদ এবং ব্যবস্থাপক (স্টোর) মো. দিদারুল কবির। এর আগে গত ১৩ই আগস্ট ওই কর্মকর্তাসহ পেট্রোবাংলার ৩২ জনকে তলব করে চিঠি দেয় দুদক। যাদেরকে আগামী ২৮, ২৯ ও ৩০শে আগস্ট জিজ্ঞাসাবাদ করার কথা রয়েছে। গত ১লা আগস্ট বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) প্রাক্তন ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম নুরুল আওরঙ্গজেব ও মহাব্যবস্থাপক (সারফেস অপারেশন) সাইফুল ইসলাম সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।
এক লাখ ৪৪ হাজার ৬৪৪ টন কয়লা ঘাটতির অভিযোগে বিসিএমসিএলের মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোহাম্মদ আনিসুর রহমান বাদী হয়ে কোম্পানির সদ্য প্রাক্তন এমডি হাবিব উদ্দিন আহমেদসহ ১৯ জনকে আসামি করে গত ২৪শে জুলাই দিনাজপুরের পার্বতীপুর থানায় একটি মামলা করেন। তফসিলভুক্ত হওয়ায় অভিযোগ তদন্ত করছে দুদক।

মামলায় ১৯ আসামিসহ পেট্রোবাংলার ২১ জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার জন্য চিঠি দেয় দুদক। এদিকে বিকালে কার্যালয় ত্যাগ করার সময় দুদক চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের জানান, মামলার গুরুত্ব বিবেচনা করে আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে এই মামলার শেষ পরিণতি দেখাতে পারবো বলে আশা করছি। ৩২ জনকে তলব করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের তদন্তকারী টিম যাদের ডেকেছে, তারা আসবেন সেটাই আমরা প্রত্যাশা করি। যদি না আসেন আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। যাদের ডাকা প্রয়োজন তাদের ডাকছি। যিনি আসবেন না, সেটাতো তারই প্রবলেম। তিনি ডিফেন্স করবেন। আমরা সুযোগ দিচ্ছি, যে অভিযোগ করা হচ্ছে সেটার ব্যাপারে আপনি আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Sujan

২০১৮-০৮-১৬ ২০:২৩:১৫

Nothing is happen all thing is eye wash

আপনার মতামত দিন

গ্রেপ্তারের আগে নিপুন রায় টকশোতে কি বলেছিলেন

বিএনপির বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ ক্ষমতাসীনদের

আগামীকাল খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে ট্রাম্প প্রশাসন

এইডস ঝুঁকিতে ২৩ জেলা

বেগম খালেদা জিয়া: হার লাইফ, হার স্টোরি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

শাহজাহানপুর থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক গ্রেপ্তার

আমার দলের সাক্ষাৎকার কিভাবে নেব এটা আমার সিদ্ধান্ত: ফখরুল

ইভিএম ব্যবহারের ঝুঁকি কোথায়?

নির্বাচনে পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করার আহ্বান সেনা প্রধানের

আমজাদ হোসেন লাইফ সাপোর্টে

‘বাবার আদর্শ থেকে দূরে আওয়ামী লীগ, তাই ঐক্যফ্রন্টে যুক্ত হয়েছি’

খালাস চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন খালেদার

‘ভিডিও কনফারেন্সে কিছু করতে পারবে কি না আইন স্পষ্ট নয়’

সেই সম্পর্ক নিয়ে ২০ বছর পর মুখ খুললেন মনিকা লিউনস্কি

আগাম জামিন পেলেন মির্জা আব্বাস দম্পতি

প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া গ্রেপ্তার-মামলার তালিকা সিইসিকেও দিল বিএনপি