ভারতের সংসদে রাহুলের চোখ মারা নিয়ে ক্ষোভ

অনলাইন

কলকাতা প্রতিনিধি | ২০ জুলাই ২০১৮, শুক্রবার, ৮:০০
বিরোধীদের করা অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে শুক্রবার ভারতের সংসদে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ঝাঁঝালো ভাষণ দিলেও ভাষন শেষে প্রধানমন্ত্রীর আসনের কাছে গিয়ে তাকে জড়িয়ে ধরা এবং ফিরে এসে নিজের আসনে বসে চোখ মারার ঘটনা নিয়ে প্রবল হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছিল। তবে রাহুল গান্ধীর এই আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন লোকসভার অধ্যক্ষ সুমিত্রা মহাজন। এমন আচরণ সংসদে চলতে পারে না বলে তাঁর অভিমত। তিনি বলেছেন, যেভাবে রাহুল প্রধানমন্ত্রীকে আলিঙ্গন করেছেন, তা ঠিক হয়নি। সভার একটা রীতি বা নিয়ম, ডেকোরাম আছে। প্রধানমন্ত্রী যখন সভায় বসে রয়েছেন, তখন তিনি ব্যক্তি নরেন্দ্র মোদী নন, দেশের প্রধানমন্ত্রী।
একথা ভুলে গেলে চলবে না। তাছাড়া রাহুল যখন নিজের আসনে ফিরে গিয়ে চোখ মারেন, সেটাও সভার মর্যাদার সঙ্গে মানানসই নয়  বলে অভিমত জানিয়েছেন স্পিকার। সংসদে রাহুল গান্ধীকে এদিন দেখা যায় চোখ মারতে। টিভি ক্যামেরায় এই দৃশ্য ধরা পরতেই সোস্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। তবে তিনি কাকে লক্ষ্য করে চোখ মেরেছেন তা এখনো স্পষ্ট হয় নি। অনেকের মতে, যেদিকে তাকিয়ে রাহুল চোখ মেরেছেন সেদিকে বসেছিলেন তার মা সাবেক কংগ্রেস সভানেত্রী সোনীয়া গান্ধী। এদিন মোদী সরকারের প্রবল সমালোচনা করে ভাষণ দেওয়ার পরই রাহুল চলে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আসনের দিকে, আলিঙ্গন করেন মোদীকে। এপর রাহুল নিজের আসনের দিকে যাবার সময় মোদী ডাকেন রাহুলকে। কয়েক সেকেন্ড দুজনের মধ্যে কথা হয়। এরপরেই রাহুল নিজের আসনে বসে বাদিকে মুখ ঘুরিয়ে চোখ মারেন। এদিকে ভাষণের পরে মোদীকে গিয়ে জড়িয়ে ধরে প্রচারের আলো কেড়ে নেওয়া কে রাহুলের শিশুসুলভ আচরণ বলে অভিহিত করেছে বিজেপি । বিজেপি নেতা অনন্দ কুমার বলেছেন, ওঁর ব্যবহার শিশুসুলভ। বড় হলেও দুর্ভাগ্যবশত মানসিকভাবে সবল হননি। দুঃখের বিষয় কংগ্রেসের সভাপতি এখনও অপরিণত ও অজ্ঞ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বাজপেয়ী প্রয়াত

কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুমা রিমান্ডে

তাদের উদ্দেশ্য কি?

ওয়ান ইলেভেনের ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি

সাইবার হামলার আশঙ্কায় সব ব্যাংকে সতর্কতা জারি

ঢাকার নিন্দা বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকে তলব

বাংলাদেশে বাকস্বাধীনতা ও প্রতিবাদের অধিকারের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন

আমীর খসরুকে দুদকে তলব

রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন ও রাশিয়ার অবস্থান পাল্টায়নি এখনো

মহাসড়কে যানজট ঈদযাত্রার আগেই ভোগান্তি

যুবলীগ নেতার গ্রেপ্তার দাবিতে সড়কে এমপি

স্ত্রী-সন্তানের সঙ্গে ঈদ করা হলো না প্রবাসী নাছিরের

অতিরিক্ত গচ্চা ১১১ কোটি টাকা

পেট্রোবাংলার ৭ কর্মকর্তাকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন আজ

লুমা রিমান্ডে, ১২ ছাত্রের জামিন নামঞ্জুর