আবারও বড় ঋণ কেলেঙ্কারিতে জনতা ব্যাংক

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৯ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৪:৪৭
জনতা ব্যাংকে আবারও বড় ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটেছে। এবার ভুয়া রপ্তানি নথিপত্র তৈরি করে সরকারের নগদ সহায়তা তহবিল থেকে ১ হাজার ৭৫ কোটি টাকা তুলে নিয়েছে ক্রিসেন্ট গ্রুপ। এই কেলেঙ্কারিতে সহায়তা করার পাশাপাশি ক্রিসেন্ট গ্রুপকে বিপুল পরমাণ অর্থায়নও করেছে জনতা ব্যাংক।

প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ক্রিসেন্টের কাছে জনতা ব্যাংকের পাওনা ২ হাজার ৭৬০ কোটি টাকা। বিদেশে রপ্তানির ১ হাজার ২৯৫ কোটি টাকা আটকা রয়েছে। সব মিলিয়ে গ্রুপটি সরকারি ব্যাংক ও সরকারের তহবিল থেকে মাত্র পাঁচ বছরেই নিয়ে নিয়েছে ৫ হাজার ১৩০ কোটি টাকা। আর এত সব জালিয়াতি হয়েছে জনতা ব্যাংক ইমামগঞ্জ করপোরেট শাখার মাধ্যমে।  জানা যায়, শাখাটির মোট ঋণের ৯৮ শতাংশই এ গ্রুপের কাছে আটকা। যার সবই এখন খেলাপি হয়ে পড়েছে।
রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে ক্রিসেন্ট গ্রুপের পাদুকাসহ চামড়াজাত পণ্যের বিক্রয়কেন্দ্র রয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে এক গ্রাহককেই নিয়ম লঙ্ঘন করে জনতা ব্যাংকের ৫ হাজার ৫০৪ কোটি টাকার ঋণ ও ঋণসুবিধা দেয়ার খবর বের হয়েছিল। আবারও একই ব্যাংকের নতুন এক কেলেঙ্কারির খবর মিলল।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

পাকিস্তানকে ভেঙে ৩ টুকরো করার পরামর্শ রামদেবের, বেলুচিস্তানের বিদ্রোহীদের অস্ত্র দেয়ার আহ্বান

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২২ উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত

মুখোমুখি মোদি-ইমরান

যে কারণে পাকিস্তান থেকে সরাসরি ভারত গেলেন না সালমান

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর কমিটি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়

‘বাংলাদেশ ব্যাংকের ইতিহাস’ বাজার থেকে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের

তুরাগতীরে ফরিয়াদ

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি শুক্রবার

৭ বিলিয়ন ডলার ঋণের অধীনে ‘কানেকটিভিটি’

নতুন বাজারে বাড়ছে পোশাক রপ্তানি

সরগরম ক্যাম্পাস প্রথম দিন মনোনয়নপত্র নেননি আলোচিত কেউ

করবিনের সাদামাটা জীবন

নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হলে গণতন্ত্রও প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যায়

মাদক রুট, তদন্তে ঢাকায় আসছেন শ্রীলঙ্কান গোয়েন্দারা

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর তৎপরতা নেই

আমরা প্রেসের ফ্রিডমকে ইউকে’র পর্যায়ে নিতে চাই