জয়টা থাই শিশুদের উৎসর্গ করলেন পগবা

ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক | ১২ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৫২
১২ বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে ফ্রান্স। মঙ্গলবার সেমিফাইনালে বেলজিয়ামের বিপক্ষে জয়টা গুহায় আটতে পরা থাইল্যান্ডের শিশু ফুটবলারদের উৎসর্গ করলেন ফরাসি মিডফিল্ডার পল পগবা। এদিন ম্যাচ জয়ের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে পগবা পোস্ট করেন গুহা থেকে উদ্ধার হওয়া ১২ শিশুদের ছবি। সেখানে তিনি লেখেন, এই জয়টা উৎসর্গ করছি তোমাদের। অভিনন্দন ছেলেরা, তোমরা আসলেই অনেক শক্তিধর। গত ২৩ জুন অনুশীলন শেষে থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলের থ্যাম লুয়াং নামক গুহায় ঘুরতে গিয়ে আটকে পড়েন দলটির কোচসহ ১২ জন শিশু ফুটবলার। প্রায় এক সপ্তাহ পর তাদের সন্ধান পায় উদ্ধার কর্মীরা। পরে টানা তিনদিন শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার উদ্ধার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় এই ১৩ জনের।
থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের গল্প গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। তাদের উদ্ধার হওয়ার খবরে স্বস্তি নেমে এসেছে থাইল্যান্ডসহ পুরো বিশ্বে। এর আগে এই ক্ষুদে ফুটবলারদের বিশ্বকাপের ফাইনাল দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থার (ফিফা) সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। পরে ফিফা এক বিবৃতিতে জানায়, বিশ্বকাপের ফাইনাল দেখার জন্য তোমাদের আমন্ত্রণ রইলো। তোমাদের জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা করেছি আমরা। তোমরা ফিফার আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে গ্যালারিতে থাকবে। আর আমরা চাই ফুটবলের এই মহা আয়োজন তোমরা খুব কাছ থেকে দেখ। ফাইনাল দেখতে যেতে পারছে না তারা বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা দেখতে যেতে পারছে না থাইল্যান্ডের গুহা থেকে উদ্ধার হওয়া কিশোর ফুটবলাররা। জীবিত উদ্ধার হলেও তাদের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, রাশিয়া যাওয়ার মতো শারীরিক অবস্থায় নেই তারা। ইতিমধ্যে এই কিশোরদের শুভকামনা জানিয়েছে বিশ্বের ভিন্ন ভিন্ন প্রান্তের ক্লাব ও তারকা ফুটবলাররা। অনেকে তাদের ক্লাবে যেতে আমন্ত্রণও জানায় থাইল্যান্ডের ওয়াইল্ড বিয়ার্স বা মু পা দলটিকে। কিশোররা বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা দেখতে যেতে পারবে? এমন প্রশ্নে থাইল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী সচিব জেসাদা চকেডামরংসুক বলেন, ‘তারা যেতে পারবে না। তাদের আরো কিছুদিন হাসপাতালে থাকতে হবে। তবে, তারা টেলিভিশনের পর্দায় খেলাটি দেখতে পারে।’



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মসজিদ-উল নববীর ইমাম কারাগারে ‘মারা গেছেন’

জনগণের আস্থার মর্যাদা সমুন্নত রাখতে হবে

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র পদে ভোট ২৮শে ফেব্রুয়ারি

এমন মৃত্যু আর কত?

এক কিংবদন্তির প্রস্থান

ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে বিএনপির ১০ কমিটি

স্পাইসগার্ল টি-শার্ট এবং বাংলাদেশের গার্মেন্ট খাত

ইভিএমের কারচুপি জেনে ফেলায় খুন হন বিজেপি নেতা!

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে শাহবাগে ফের অবরোধ

ইজতেমা নিয়ে আদালতে আসা লজ্জাকর

তিনি সজ্জন, ভালো মানুষ

দেশে গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একসঙ্গে এগিয়ে যাবে- প্রধানমন্ত্রী

সংরক্ষিত আসনে এমপি হতে চান ব্যারিস্টার মৌসুমী কবিতা

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আফজালের সব সম্পদ জব্দের নির্দেশ

মির্জাপুরে বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী কারাগারে

মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সুবিধা আরো বাড়লো