বিশ্ব গণমাধ্যম সম্মেলনে বক্তারা

শত বাধাঁর মাঝেও গণমাধ্যমকে জনগণের কথাই বলতে হবে

শিক্ষাঙ্গন

অনলাইন ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার
তথ্য-প্রযুক্তির ব্যাপক উৎকর্ষে ঐতিহ্যগত সংবাদ মাধ্যমগুলোর অস্তিত্ব হারানোর ভয়, মালিকানা ও ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন এবং স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীসহ রাষ্ট্রীয় চাপের মধ্যদিয়ে বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যম আজ এক কঠিন সময় পার করছে। শত বাধাঁ-বিপত্তি ও চাপের মুখেও ক্ষুদ্র স্বার্থ ও লাভের উর্ধ্বে গিয়ে জনগণ এবং মানবতার কথা বলাই গণমাধ্যমের কাজ।

শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিষয়ক বিশ্ব সম্মেলনে বক্তারা একথা বলেছেন। জনসাধারণের কথা মিডিয়াতে আরো বেশি বেশি তুলে ধরার উপর জোর দিয়েছেন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির যৌথ সহযোগিতায় ‘দি ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নলেজ ম্যানেজমেন্ট’ গত ৫ই এবং ৬ই জুলাই ২০১৮ দুই দিনব্যপী এ সম্মেলনের আয়োজন করে। সম্মেলনে আস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, হংকং, মালয়েশিয়া, ভারত, শ্রীলংকা, কাতার, তাইওয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়া বিশেষজ্ঞ, শিক্ষাবিদ, গবেষক এবং জৈষ্ঠ সাংবাদিকগণ  অংশগ্রহণ করেন।

খ্যাতিমান মিডিয়া বিশেষজ্ঞ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মিডিয়া ও কমিউনিকেশন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক রবার্ট হাসান সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন। সম্মেলনে তিনটি টেকনিক্যাল সেশনে বেশ কয়েকটি গবেষণা নিবন্ধ উপস্থাপন করা হয়।
বিশিষ্ট মিডিয়া গবেষক ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক শেখ শফিউল ইসলাম  ‘রাজনৈতিক যোগাযোগ ও গণমাধ্যম’ বিষয়ক অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রাক্তন চেয়ারপার্সন অধ্যাপক মফিজুর রহমান, দি ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নলেজ ম্যানেজমেন্ট’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইসাঙ্কা পি. গ্যামেজ; শ্রীলঙ্কার জনপ্রিয় ইংরেজি দৈনিক ডেইলি মিরর’র সম্পাদক কেসারা অ্যাবিওয়ারডেনা ও অধ্যাপক রবার্ট হাসান সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশ থেকে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের শিক্ষক ড. তৌফিক-ই-এলাহী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামান সম্মেলনে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।





এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মামলার প্রস্তুতিতে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা

যেমন ছিল নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক

পেনশনের অপেক্ষায় ১৫০০০ বেসরকারি শিক্ষক

‘ইতিবাচক ধারায়’ ফিরলে ছাত্রদলকে সহাবস্থানের সুযোগ দেবে ছাত্রলীগ

বৈধ অস্ত্রের বাজার ক্রেতা কারা

ডিজিটাল যুগেও ভরসা ঝাড়ফুঁকে

আদালতে খালেদার দেড় ঘণ্টা

বিএনপি নির্বাচনে হেরে হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে

রোহিঙ্গা-ট্রাফিক সমস্যা সমাধানে কাজ করতে আগ্রহী দ. কোরিয়া

এই সরকারের অধীনে ঐক্যফ্রন্ট আর কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না

কুষ্টিয়ায় জামায়াত কর্মীদের জাসদে যোগদানের খবরে তোলপাড়

মানবজমিনের রিপোর্টার রাশিদুলের জামিন

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত

ধর্ষিতার তিন আত্মীয়ের বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন

সিলেট থেকে আসছেন দলে দলে