অক্টোবরে নির্বাচনকালীন সরকার: ওবায়দুল কাদের

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২০ জুন ২০১৮, বুধবার, ২:৫৬ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৫৫
নির্বাচনকালীন সরকার আগামী অক্টোবরে গঠিত হতে পারে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ  সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। নির্বাচনকালীন সরকারের আকার ছোট হবে।  এবং বিষয়টি পুরোপুরি প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার বলে জানিয়েছেন তিনি। আজ বুধবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও  সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নির্বাচনের শিডিউল  ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচনকালীন সরকার দায়িত্ব গ্রহণ করবে। নির্বাচনকালীন সরকার বলতে নতুন কোনো  সরকার গঠিত হবে না। বর্তমান সরকারই নির্বাচনকালীন সরকারের দায়িত্ব নেবে।
তবে, নির্বাচনকালীন সরকারের  আকার এতো ঢাউস হবে না। মন্ত্রিপরিষদের আকার ছোট হবে। তবে, এ বিষয়টি পুরোপুরি প্রধানমন্ত্রীর  এখতিয়ার। তিনিই চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, কোনো একতরফা নির্বাচন হবে না। অনেক বেশি দল নির্বাচনে আসবে। বিএনপি না আসলে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে কেন? নির্বাচন কমিশন নির্বাচন   পরিচালনা করবে। সেখানে যদি সংবিধান লঙ্ঘন হয় তখনই নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে। বিএনপির উদ্দেশে তিনি  বলেন, জাতীয় নির্বাচনকে তারা ভয় পাচ্ছে কেন? সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে তো ভয় পাচ্ছে না। বিএনপির  আন্দোলনের ঘোষণার বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণ সাড়া দেবে না। দেশে কোনো আন্দোলন হবে না। তাদেরও দলীয় কোনো প্রস্তুতি নেই।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০৬-২০ ১০:১৬:৫২

কাজে মনোযোগ দিলে দেশ ও দলের উপকার বেশী হবে। সংসদে দলীয় সাংসদই প্রশ্ন তুলেছেন - জনগণ তার কাছে প্রশ্ন রেখেছে দেদার টাকা রাস্তায় ঢেলে ও কেন বছর ঘুরতে না ঘুরতেই রাস্তা খানা খন্দে পরিণত হয়। মন্ত্রীর দায়িত্ব চোখ বুঝে শুদু রাস্তায় টাকা ঢালা নয়। টাকার বিনিময়ে কাজ বুঝে নেওয়াই মন্ত্রীর দায়িত্ব। বড় বড় বক্তব্য দেওয়াও মন্ত্রীর কর্তব্যের আওতায় পড়ে না। তাই মন্ত্রীত্ব দলীয় কর্মকাণ্ড এক ব্যক্তির ঘাড়ে দেওয়া ঠিক নয়।

kazi

২০১৮-০৬-২০ ০৭:২০:১৯

কাজে মনোযোগ দিলে দেশ ও দলের উপকার বেশী হবে। সংসদে দলীয় সাংসদই প্রশ্ন তুলেছেন - জনগণ তার কাছে প্রশ্ন রেখেছে দেদার টাকা রাস্তায় ঢেলে ও কেন বছর ঘুরতে না ঘুরতেই রাস্তা খানা খন্দে পরিণত হয়। মন্ত্রীর দায়িত্ব চোখ বুঝে শুদু রাস্তায় টাকা ঢালা নয়। টাকার বিনিময়ে কাজ বুঝে নেওয়াই মন্ত্রীর দায়িত্ব। বড় বড় বক্তব্য দেওয়াও মন্ত্রীর কর্তব্যের আওতায় পড়ে না। তাই মন্ত্রীত্ব দলীয় কর্মকাণ্ড এক ব্যক্তির ঘাড়ে দেওয়া ঠিক নয়।

kazi

২০১৮-০৬-২০ ০২:৩৬:১৭

কাজে মনোযোগ দিলে দেশ ও দলের উপকার বেশী হবে। সংসদে দলীয় সাংসদই প্রশ্ন তুলেছেন - জনগণ তার কাছে প্রশ্ন রেখেছে দেদার টাকা রাস্তায় ঢেলে ও কেন বছর ঘুরতে না ঘুরতেই রাস্তা খানা খন্দে পরিণত হয়। মন্ত্রীর দায়িত্ব চোখ বুঝে শুদু রাস্তায় টাকা ঢালা নয়। টাকার বিনিময়ে কাজ বুঝে নেওয়াই মন্ত্রীর দায়িত্ব। বড় বড় বক্তব্য দেওয়াও মন্ত্রীর কর্তব্যের আওতায় পড়ে না। তাই মন্ত্রীত্ব দলীয় কর্মকাণ্ড এক ব্যক্তির ঘাড়ে দেওয়া ঠিক নয়।

আপনার মতামত দিন

কানাডায় অস্ত্রধারীর গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধ ১৪

এক জঙ্গির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

৩০ জুলাই আপডেট এনআরসি প্রকাশ, রাজনাথ সিং যা বললেন

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ

মাশরাফির ধারালো আক্রমণ, ৪৮ রানের ব্যবধানে কুপোকাত ওয়েস্ট ইন্ডিজ

‘নিজেকে আমি বন্দী রাখতে চাই না’

সিলেটের ভোটে ৫ ইস্যু

রাজশাহীতে ক্রমশ ঘোলাটে হচ্ছে পরিবেশ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গ্রন্থাগারে হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নার

কুষ্টিয়ায় মাহমুদুর রহমানের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

আইএসআই আমাকে প্রধান বিচারপতি বানাতে চেয়েছিল

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সরোয়ারের শঙ্কা

ঢাবিতে সমাবেশ ছাত্রলীগের মারধর

আইটিইউ নির্বাচনে জয় চায় বাংলাদেশ

শিল্পনগরীর বেহালদশা, রপ্তানিতে পিছিয়ে পড়ছে চামড়া শিল্প

যুক্তরাষ্ট্রে বেক্সিমকো ফার্মার চতুর্থ ওষুধ রপ্তানি শুরু