সেনেগালের চমক

কলম্বিয়াকে হারিয়ে জাপানের ইতিহাস

প্রথম পাতা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২০ জুন ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৬
বল পায়ে ইতিহাস গড়লো সূর্যোদয়ের দেশ জাপান, মোহাম্মদ সালাহকে দলে পেয়েও হার দেখলো মিশর, চলতি আসরে প্রথমবার আফ্রিকার মুখে হাসি ফুটালো সেনেগাল, আর টানা দুই জয়ে আসরের প্রথম দল হিসেবে নকআউটপর্বের টিকিট কাটলো স্বাগতিক রাশিয়া। গতকাল কলম্বিয়ার বিপক্ষে জাপান ও পোল্যান্ডের বিপক্ষে সেনেগাল জয় পায় সমান ২-১ গোলের ব্যবধানে। আর মিশরকে ৩-১ গোলে হারায় রাশিয়া। এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবকে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করে রুশরা। ইনজুরি কাটিয়ে গতকাল যথারীতি মিশরের শুরুর একাদশে জায়গা নেন সর্বশেষ মৌসুমে লিভারপুলের জার্সি গায়ে ইউরোপের পেশাদার ফুটবলে দ্বিতীয় সর্বাধিক ৪৪ গোল পাওয়া মোহাম্মদ সালাহ। আর ৭৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল আদায় করেন মিশরের ‘নাম্বার টেন’। বিশ্বকাপে ২৮ বছরে মিশরের এটি প্রথম গোল। ফুটবলের মহাযজ্ঞে মিশর সর্বশেষ গোলের দেখা পায় ইতালিতে ১৯৯০’র বিশ্বকাপে।
গতকাল সেইন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুর ৪৫ মিনিটের খেলা ছিল ম্যাড়ম্যাড়ে। এ সময় দুই দলের খেলোয়াড়দের অনটার্গেটে শট নিতে দেখা যায় একবারই মাত্র। বিরতি থেকে ফিরে প্রথম মিনিটে আত্মঘাতী গোল হজম করে মিশর। বল ক্লিয়ার করতে গিযে নিজেদের জালে জড়ান মিশরের অধিনায়ক আহমেদ ফাতি। ম্যাচের শুরুতে অগোছালো দেখাচ্ছিল ফারাওদের। শুরুর ২০ মিনিটে মাত্র পাঁচবার বল স্পর্শ করেন মিশরের সেরা তারকা মোহাম্মদ সালাহ। তবে ক্রমেই জড়তা কাটিয়ে ওঠেন তিনি। আর গতি বাড়ে মিশরের খেলায়। ৪২তম মিনিটে বল পায় ঝলক দেখান সালাহ। প্রতিপক্ষের ডি বক্সের মাথায় দারুণ ড্রিবলিং শেষে কোনাকুনি শট নেন তিনি। অল্পের জন্য গোলপোস্টের বাইরে যায় শট। আর ৫৬তম মিনিটে ফের সুযোগ পান সালাহ। তবে ডি বক্সের ভেতর থেকে তার শট প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে পোস্টের বাইরে যায়। আর আত্মঘাতী গোল খেয়ে খেই হারানো ফারওদের জালে মাত্র ৩ মিনিটের ব্যবধানে দুইবার বল জড়ায় রুশরা। ৫৯তম মিনিটে গোল পান রুশ ফরোয়ার্ড ডেনিস চেরিশেভ। আর ৬২তম মিনিটে গোল নিয়ে ব্যবধান ৩-০তে নিয়ে যান স্ট্রাইকার আরতেম জিউবা।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে চমক সেনেগালের
এবারের বিশ্বকাপে প্রথম দল হিসেবে আফ্রিকার মুখে হাসি ফুটালো সেনেগাল। গতকাল পোল্যান্ডের বিপক্ষে জয় দেখে সাদিও মানে অ্যান্ড কোং। রাশিয়ায় এবারের বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হার নিয়ে মিশন শুরু করে আফ্রিকার অপর চার দেশ মিশর, মরক্কো, তিউনিশিয়া ও নাইজেরিয়া। সেনেগালের এটি দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। আর দুবারই জয় দিয়ে আসর শুরু করতে দেখা গেল তাদের। এর আগে ২০০২’র বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শিরোপাধারী ফ্রান্সের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় দেখে তারা। চলতি আসরের ‘এইচ’ গ্রুপের দিকে আলাদা নজর ফুটবলপ্রেমীদের। গ্রুপে নেই শিরোপার প্রশ্নে ফেভারিট কোনো দল। তবে দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রশ্নে আসর শুরুর আগে পোল্যান্ড ও কলম্বিয়াকে এগিয়ে রাখেন বোদ্ধারাও। তবে গ্রুপের চেহারাটা এখন ভিন্ন। গতকাল গ্রুপের প্রথম ম্যাচে লাতিন আমেরিকান জায়ান্ট কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারায় এশিয়ার ফুটবলের পাওয়ার হাউস জাপান। আর দ্বিতীয় ম্যাচে পোল্যান্ডের বিপক্ষে একই ব্যবধানে জয় কুড়ায় সেনেগাল। যদিও আফ্রিকার দলগুলোর বিপক্ষে সুখস্মৃতি ছিল পোলিশদের। বিশ্বকাপে এর আগে আফ্রিকার তিন দেশ মরক্কো, ক্যামেরুন ও তিউনিশিয়ার মুখোমুখি হয় পোল্যান্ড। এতে পোলিশদের হারের স্মৃতি ছিল না। গতকাল মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে হজম করা দুই গোলেই ছিল পোলিশদের নার্ভাসনেসের চিহ্ন। ৩৮তম মিনিটে আত্মঘাতী গোলে (থিয়াগো চিওনেক) পিছিয়ে পড়ে দাপুটে ফুটবল খেলে ইউরোপ অঞ্চল থেকে রাশিয়ার টিকিট কাটা পোল্যান্ড। বিশ্বকাপ ইতিহাসে এটি পোল্যান্ডের প্রথম আত্মঘাতী গোল । আর ম্যাচের দ্বিতীয় গোলটি ছিল পোলিশদের ‘হরর শো’। ম্যাচের ৬০তম মিনিটে মাঝমাঠ থেকে গোলরক্ষক ভসিয়েক শিজনিকে ব্যাক পাস করেন গ্রাসেগর্স ক্রিকোবিয়াক। ডি বক্সের অনেকটা বাইরে বেড়িয়ে আসা শিজনি বল নিয়ন্ত্রণে নিতে ব্যর্থ হলে ফাঁকা বারপোস্টে গোল আদায় করেন আগুয়ান সেনেগালিজ স্ট্রাইকার এমবায়ে নিয়াং। যদিও ইনজুরির জন্য মাঠের বাইরে যাওয়া নিয়াং হঠাৎ দৌড়ে খেলায় ফিরেই আদায় করেন গোলটি। এতে পোলিশ খেলোয়াড়রা প্রতিবাদ জানালেও তা নাকচ করেন ম্যাচে বাহরাইনের রেফারি নাওয়াফ শুকরাল্লা। সেনেগালের জার্সি গায়ে ৮ ম্যাচের ক্যারিয়ারে এটি ২৩ বছর বয়সী নিয়াংয়ের প্রথম গোল। আর ৮৬তম মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে দারুণ হেডে সেই ক্রিকোভিয়াকের পাওয়া গোলে ম্যাচে উত্তেজনা বাড়ে মাত্র। ম্যাচে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের অষ্টম শীর্ষ দল পোল্যান্ডের বল-দখল ছিল ৬১%। তবে প্রতিপক্ষ গোলবারে ১১ শট নিলেও অনটার্গেটে ছিল তার ৪টি। অন্যদিকে র‌্যাঙ্কিংয়ে পোল্যান্ডের চেয়ে ১৯ ধাপ পিছিয়ে থাকা সেনেগালের নৈপুণ্যটা ছিল ফলদায়ক। অনটার্গেটে দুই শটের দুটিতেই গোল পায় সেনেগাল। ম্যাচে মলিন নৈপুণ্য দেখান তুখোড় পোলিশ স্ট্রাইকার রবাট লেভানদস্কি ও ১০০তম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামা মিডফিল্ডার ইয়াকুব ব্লাসিকভস্কি। বিশ্বকাপে ৬ ম্যাচে এটি সেনেগালের তৃতীয় জয়। আফ্রিকার দলগুলোর মধ্যে জয়ের সেরা হার (৫০%)। তাদের তিন জয়ই ইউরোপের দলের বিপক্ষে (ফ্রান্স, সুইডেন, পোল্যান্ড)।

কলম্বিয়াকে হারিয়ে জাপানের ইতিহাস
বল পায়ে ইতিহাস গড়লো সূর্যোদয়ের দেশ জাপান। বিশ্বকাপ ইতিহাসে এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে দক্ষিণ আমেরিকার কোনো দেশের বিপক্ষে জয় পেলো তারা। গতকাল রাশিয়ায় ‘এইচ’ গ্রুপের খেলায় কলম্বিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় কুড়ায় জাপান। এতে তারা নিলো মধুর প্রতিশোধও। ব্রাজিলে ২০১৪ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে কলম্বিয়ার কাছে ৪-১ গোলে হার দেখেছিল জাপান। আর যে কোনো ধরনের ফুটবলে কলম্বিয়ার বিপক্ষে জাপানের এটি প্রথম জয়। গতকাল ম্যাচের শুরুতেই দশজনের দলে পরিণত হয় গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট কলম্বিয়া। মরদোভিয়া অ্যারেনায় খেলা শুরুর তিন মিনিটের মাথায় কলম্বিয়ার বিপদ ডেকে আনেন মিডফিল্ডার কার্লোস সানচেজ মোরেনো। গোলমুখে নেয়া জাপানিজ মিডফিল্ডার শিনজি কাগাওয়ার শট হাত দিয়ে ঠেকিয়ে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন তিনি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় দ্রুততম লাল কার্ডের ঘটনা। আর স্পট কিক থেকে বল জালে পাঠাতে কোনো ভুল করেননি কাগাওয়া। ৩৯ মিনিটে দারুণ বুদ্ধিদীপ্ত ফ্রি-কিকে কলম্বিয়াকে ম্যাচে ফেরান মিডফিল্ডার হুয়ান ফার্নান্দো কুইনতেরো। জাপানিজ খেলোয়াড়রা লাফিয়ে উঠলে মাটি কামড়ানো শটে পায়ের নিচ দিয়ে বল জালে পাঠান তিনি। ১-১ সমতায় শেষ হয় প্রথমার্ধ। ৭৩তম মিনিটে জাপানিজদের উল্লাসে মাতান ফরোয়ার্ড ইয়োইয়া ওসাকো। কেইসুকে হোন্ডার ক্রস থেকে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি। এই গোলটিই ফলাফল নির্ধারক হয়ে থাকে। বিশ্বকাপে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার ও সব মিলিয়ে চারটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে কলম্বিয়ার মুখোমুখি হয় জাপান। দুই ম্যাচে জয় পায় কলম্বিয়া। অপর ম্যাচটি ড্র হয়। ২০১৪ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে বিদায় নেয়া জাপান কলম্বিয়াকে হারিয়ে এবারের যাত্রা শুরু করলো। এবারের আসরে জাপানের আগে এশিয়া অঞ্চলের প্রথম দল হিসেবে জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে ইরান। ‘বি’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ইনজুরি সময়ের আত্মঘাতী গোলে মরক্কোকে ১-০ ব্যবধানে হারায় ইরান। ‘এফ’ গ্রুপে সুইডেনের কাছে পেনাল্টি গোলে একই ব্যবধানে হার মানে এশিয়ার অন্যতম পরাশক্তি দক্ষিণ কোরিয়া। উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক রাশিয়ার কাছে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় সৌদি আরব। মোট পাঁচটি দল এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) থেকে ২০১৮ বিশ্বকাপে অংশ নেয়। এশিয়া অঞ্চলের বাছাইপর্বে খেলা অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ম্যাচে ফ্রান্সের কাছে ২-১ গোলে হার মানে। ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচটিতে ফ্রান্সের জয় আসে পেনাল্টি ও আত্মঘাতী গোলের সুবাদে। অস্ট্রেলিয়ার গোলটিও পেনাল্টি থেকে। আগামী ২৪শে জুন জাপানের পরবর্তী ম্যাচ সেনেগালের বিপক্ষে। একই দিন ‘এইচ’ গ্রুপের অপর খেলায় পোল্যান্ডকে মোকাবিলা করবে ফ্যালকাও-হামেস রদ্রিগেজের কলম্বিয়া।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে ‘ঢাকা পরিচ্ছন্নতা অভিযান’

৫৭ ধারায় গ্রেপ্তার চবি শিক্ষক

আড়াই বছরের শিশুকে ধর্ষণ

চুরির অভিযোগে পালাক্রমে ধর্ষণ

নিম্ম আদালতেও আমীর খসরুর জামিন

‘মিয়ানমারে হস্তক্ষেপের কোনোই অধিকার নেই জাতিসংঘের’

বাংলাদেশের ভিতর দিয়ে পানিপথ করিডোর নির্মাণ পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে ভারত

‘জনগণের কাছে ক্ষমা চাইলে আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঐক্য হতে পারে’

আদালতের প্রতি দুই আসামীর অনাস্থা একজনের জামিন বাতিল

২৭শে সেপ্টেম্বর বিএনপির জনসভার ঘোষণা

আপিলেও বৃটিশ যুবতীর জেল বহাল

বাংলাদেশের ইতিহাসে যেখানে মাশরাফিই প্রথম

বিশ্বের সবচেয়ে দামি বাড়ি, আছে ৩টি হেলিপ্যাড, সিনেমা হল, ৬০০ কাজের লোক (ভিডিও)

‘সরকার উৎখাতে দুর্নীতিবাজরা জোট বেঁধেছে’

‘বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য’ টিকবে না

‘গাড়িপ্রস্তুতকারক প্রোটন সফল ছিল’