জেল কোডের কোথাও নেই সরকারি হাসপাতালেই চিকিৎসা করাতে হবে: ফখরুল

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৬
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন- জেল কোডের কোথাও বলা নেই যে, সরকারি হাসপাতালেই চিকিৎসা করাতে হবে। গতকাল বুধবার রাজধানীর বিজয় নগরে একটি হোটেলে বাংলাদেশ লেবার পার্টির আয়োজনে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুস্থতা কামনায় ইফতার মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, আমরা সুনির্দিষ্টভাবে বলেছি, জেল কোডের কোথাও বলা নেই সরকারি হাসপাতালেই কোনো বন্দির চিকিৎসা করাতে হবে। প্রত্যেক রোগীরই চিকিৎসক পছন্দ করার স্বাধীনতা রয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়েছে চিকিৎসা ব্যয় বহন করা হবে। এক্ষেত্রে বিলম্ব করা মানে ধরে নেয়া হবে সরকারের গভীর ষড়যন্ত্র আছে।
এ সময় অবিলম্বে খালেদা জিয়ার পছন্দ অনুযায়ী ইউনাইটেট হাসপাতালে চিকিৎসার দাবি জানান তিনি। মির্জা আলমগীর বলেন, আজ জনগণের ওপর চেপে বসা এই ভয়ংকর দানব সরকারকে সরাতে হবে। তার জন্য জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করে আমাদের গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আমাদের বিজয়ী হতে হবে ইনশাআল্লাহ। দেশনেত্রীর মুক্তি ছাড়া এই দেশে কোনো কিছুই সম্ভব নয়। তাকে মুক্ত করতে হবে। একই সঙ্গে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে সোনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে তিনি বলেন, সমস্ত আইনগত বিষয়ে হাইকোর্ট থেকে জামিন পাওয়ার পরও খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়া হয়নি। কি করে খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে দেয়া যায়, জনগণের কাছ থেকে দূরে সরিয়ে দেয়া যায় সেই চেষ্টা করছে সরকার। খালেদা জিয়া জনগণের নেত্রী। হাজারো চোষ্টা করেও তাকে জনগণ থেকে দূরে রাখা যাবে না। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তাকে মুক্ত করে আনা হবে। তিনি বলেন, খুন, গুম, অত্যাচার ও নির্যাতনের মধ্য দিয়ে একটি ভয়ংকর রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেছে এই সরকার। আমরা জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করি। জনগণের শক্তি নিয়েই অতীতে নির্বাচনে জিতেছি। কারো দয়ায় আমরা নির্বাচনে জিততে চাই না, জিতি না। আমরা স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বে বিশ্বাস করি। আগামীতেও জনগণের শক্তি নিয়েই বিজয় ছিনিয়ে আনতে চাই।
লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি এমাজ উদ্দিন আহমদ, ভাইস-চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, এনাম আহমেদ চৌধুরী, আলতাব হোসেন চৌধুরী, শামসুজ্জামান দুদু, বরকত উল্লাহ বুলু্‌, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার হায়দার আলী, সুকোমল বড়ুয়া, দৈনিক নয়া দিগন্তের সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দীন প্রমুখ। এ ছাড়া ২০ দলীয় জোট নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জামায়াতে ইসলামীর নির্বাহী পরিষদ সদস্য মাওলানা আব্দুল হালীম, জাতীয় পার্টি (জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবীব লিঙ্কন, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মাদ ইব্রাহিম বীর প্রতীক, এনপিপির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, মুসলিম লীগের মহাসচিব জুলফিকার বুলবুল, লেবার পার্টির মহাসচিব ফরিদ উদ্দীন আহমেদ প্রমুখ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাজীপুরের শ্রীপুরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান

আবহাওয়া সুবিধার বলে মনে হচ্ছে না: হাসান সরকার

রাম মন্দির নির্মাণ, গরু রক্ষা বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠন নিয়ে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ৩ দিনের বৈঠক

প্রকাশ্যে সৌদি আরবে গাড়ি চালালেন নারীরা

সানগ্লাসের জন্য কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোকে জরিমানা

চট্টগ্রামে জামায়াত নেতা ভেবে ভুল ব্যক্তিকে আটক

কর্ণফুলী কলেজের ডরমেটরিতেও অসামাজিক কার্যকলাপ!

ফিফার বিরুদ্ধে ডাকাতির অভিযোগ সার্বিয়ার

মেক্সিকোতে ফূটবল দর্শকদের ওপর গুলিতে নিহত ১৪

বৃটেনের রাজপথে লাখো মানুষের বিক্ষোভ

শাহজালালে স্বর্ণের বারসহ বিদেশী নাগরিক আটক

বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া ছাড়া চীনেও পোশাক শ্রমিকদের ওপর যৌন হয়রানি

সিরাজগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুমিল্লার এক মামলায় খালেদার জামিন বিষয়ে আদেশ ২রা জুলাই

বিকালে সংবাদ সম্মেলন করবে বিএনপি

যশোরে দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার