কর্ণাটকে সরকার গঠন অনিশ্চয়তায়

দেশ বিদেশ

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ মে ২০১৮, বৃহস্পতিবার
ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিরোধীদলীয় নেতাদের ১০০ কোটি রুপি নগদ অর্থ ঘুষ ও মন্ত্রিপরিষদে নিশ্চিত পদ প্রদানের প্রস্তাব দেয়ার অভিযোগ ওঠেছে ক্ষমতাসীন ভারতীয়  জনতা পার্টির (বিজেপি) বিরুদ্ধে। বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ আনেন জনতা দল সেক্যুলারের (জেএসডি) প্রধান এইচডি কুমারস্বামী। এদিকে, ভারতের কর্ণাটকে সরকার গঠনে গভর্নর যদি বিজেপিকে নিমন্ত্রণ জানান তাহলে সুপ্রিম কোর্টে দ্বারস্থ হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কংগ্রেস। বুধবার কর্ণাটকের গভর্নর বাজুভাই বালার সঙ্গে বিজেপি নেতা ও কর্ণাটকের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদ্দুরাপ্পা সাক্ষাৎ করার পরই এমন ঘোষণা দেয় কংগ্রেস। গভর্নর জানিয়েছেন যে, সবকিছু বিবেচনা করেই সরকার গঠনের সিদ্ধান্ত দেয়া হবে। গতকাল বিকালে গভর্নরের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল কংগ্রেস ও জেএসডি জোটের।
তবে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে।
কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনে ২২৪ আসনের মধ্যে ২২২টিতে ভোটগ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে একক দল হিসেবে সবচেয়ে বেশি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। মোট ১০৪টি আসনে তারা জয়লাভ করেছে। তবে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন অন্তত ১১২টি আসনে জয় লাভ। ফলে সেখানে সরকার গঠন নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে।

এদিকে, জেডিএস প্রধান কুমারস্বামী অভিযোগ এনেছেন যে, তার দলীয় লোকজনকে ঘুষ দিয়ে দল পরিবর্তনের চেষ্টা চালিয়েছে বিজেপি। তিনি বলেন, তারা আমার দলের লোকজনকে ১০০ কোটি রুপি নগদ অর্থ ও মন্ত্রিপরিষদে নিশ্চিত পদ দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। বিজেপি এই এমএলএ’দের ক্ষমতা অর্জনের জন্য প্রচুর অর্থ দিয়েছে। আমি চাই কর্ণাটকের জনগণ বুঝুক আসলে কি ঘটছে। দিল্লিতে তাদের কাছে প্রচুর অর্থ আছে। তবে বিজেপি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
কংগ্রেস জানিয়েছে, তাদের এক আইনপ্রণেতা, আনন্দ সিং নিখোঁজ হয়েছেন। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। জেডিএস জানিয়েছে, তাদের ৩২ জন আইনপ্রণেতাকে ঘুষের প্রস্তাব দিয়েছে বিজেপি। কংগ্রেসের এক নেতাও একই দাবি করেছেন। এই দুই দল তাদের আইনপ্রণেতাদের একটি রিসোর্টে সরিয়ে ফেলার চিন্তা করছে।
বিজেপির দাবি তারা সরকার গঠনের জন্য পর্যাপ্ত আসন পেয়ে যাবে। কীভাবে এতগুলো আসন নিজেদের দখলে নিয়ে আসবেন- এমন প্রশ্নের জবাবে দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা পরকাশ জাভাদেকর বলেন, এটা স্বাভাবিক নিয়মেই হবে। অনেক আইনপ্রণেতাই কংগ্রেস ও জেডিএস’র জোট নিয়ে অখুশি। এর মধ্যে খবর মিলেছে, স্বাধীন একজন আইনপ্রণেতা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। সে হিসেবে বিজেপির দখলে এখন আসন রয়েছে ১০৫টি। অন্যদিকে কংগ্রেস জয়ী হয়েছে ৭৮ আসনে এবং জেডিএস ও বিএসপি জয়ী হয়েছে ৩৮ আসনে। সবমিলিয়ে দুটি স্বতন্ত্র দলের সঙ্গে মিলিয়ে কংগ্রেসের দখলে আছে ১১৬টি আসন। সরকার গঠনের জন্য এই সংখ্যা পর্যাপ্ত। কংগ্রেস- জেডিএস-বিএসপি জোট কুমারস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী করে সরকার গঠনে সম্মত হয়েছে।
বিজেপির দাবি, একক দল হিসেবে এগিয়ে থাকায় তাদের সরকার গঠন করতে দেয়া উচিত। তবে কংগ্রেস এর বিরোধিতা করে জানিয়েছে, গত বছর গোয়া ও মনিপুর রাজ্যে একক দল হিসেবে জয় লাভ করলেও রাজ্য দু’টিতে কংগ্রেসকে সরকার গঠন করতে দেয়া হয়নি। বরঞ্চ বিজেপি অন্যান্য দলের সঙ্গে জোট গঠন করে সরকার গঠন করেছে। এখন সর্বশেষ সিদ্ধান্ত নেবেন গভর্নর বালা। এজন্য তিনি চাইলে আইনি পরামর্শক বা বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন।            


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ফিলিস্তিনের পক্ষে কেন সোচ্চার শিখ তরুণরা?

সৌদিতে যৌন নির্যাতন: পালিয়ে বাঁচা বাংলাদেশি নারীদের মুখে নিপীড়নের বর্ণনা

ট্রাম্প প্রশাসনের রাডারে ঢাকার মার্কিন নীতি

খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি শুরু

‘বন্দুকযুদ্ধ’ চলছেই

খুলনা ‘শান্তিপূর্ণ কারচুপির’ নির্বাচনের নতুন মডেল

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অসঙ্গতি দূর করার আশ্বাস

কাজ শুরুর আগেই ব্যয় বাড়লো পদ্মা রেল সংযোগ প্রকল্পের

নাজিব রাজাককে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ

রাতারাতি সব কাজ করা সম্ভব নয়

প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে কাছে পেয়ে আপ্লুত রোহিঙ্গা কিশোরীরা

বিএনপিতে নানা চিন্তা

বিলবোর্ড সরানোর প্রতিবাদে বুলবুলের অবস্থান কর্মসূচি

‘ইলিয়াস আলীর বাসায় গভীর রাতে পুলিশ’

খুলনা ‘শান্তিপূর্ন কারচুপির’ নির্বাচনের নতুন মডেল, ইসি ব্যর্থ

ভারতের উদ্দেশে ‘তাজউদ্দীন’র যাত্রা শুরু