২৫ হাজার টাকায় গোল্ডেন এ-প্লাস!

বাংলারজমিন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি | ২১ এপ্রিল ২০১৮, শনিবার

 ‘মাত্র ২৫ হাজার টাকায় মিলতো গোল্ডেন এ-প্লাস। সাড়ে ১২ হাজার টাকায় সাধারণ গ্রেড।’ অবিশ্বাস্য! এই চক্রের সদস্য চার তরুণ। তাদের মূলহোতা শওকত হোসেন। তথ্য প্রযুক্তি বিষারদ হলেও  স্কুলের  গণ্ডি পেরুতে পারেনি সে। এই কিশোর দল প্রশ্নপত্র ফাঁসই করেনি, প্রশ্নপত্র বিক্রি ও চুক্তিতে পরীক্ষার ফলাফল পরিবর্তনের সঙ্গেও জড়িত থাকার প্রমাণও পেয়েছে র?্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র?্যাব) সদস্যরা। গত মঙ্গলবার র‌্যাব’র হাতে আটক হওয়া শ্রীমঙ্গলের বিরাইমপুর গ্রামের সাংবাদিক এমএ আলী বাড়ির ভাড়াটিয়া মকবুল আলীর ছেলে মো. শওকত হোসেন (১৯), তার সহোদর মো. সৌরভ হোসেন (২১), উপজেলার শ্যামলী আবাসিক এলাকার মুজিবুর রহমানের বাসার ভাড়াটিয়া আবদুল মালেকের ছেলে মো. আবদুল কাদির (১৭) এবং হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার শেরপুর গ্রামের কদ্দুস মিয়ার ছেলে হৃদয় মিয়া ( ১৭)। র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ বলেন, আটক এই চার যুবক গত এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করে এবং চলতি এইচএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা চালিয়েছিল। প্রশ্নপত্র কেনাবেচায় তারা সিলেটকেন্দ্রিক নেটওয়ার্ক গড়ে তোলে।
বিভিন্ন জনকে প্রস্তাব দেয় প্রশ্নপত্র কেনার। তাদের ব্যবহৃত ওয়েবসাইড নিবিড় পর্যবেক্ষণের পর বেরিয়ে আসে এমন তথ্য। এরই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দিনগত রাত ১১টায় র‌্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের একটি বিশেষ দল চক্রের চার সদস্যকে আটক করে। এদের কাছ থেকে ৬৯ টি স্ক্রিনশট পাতা, ৫টি মোবাইল ফোন, ৯ টি সিমকার্ড ও ৪ টি মেমোরি কার্ড উদ্ধার করে। পরদিন শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা রজুর পর কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়। ওই র?্যাব কর্মকর্তা বলেন, বয়স কম হলেও তথ্য-প্রযুক্তির দিক থেকে যথেষ্ট জ্ঞান রয়েছে শওকতের। যদিও সে নিজেই মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরোতে পারেনি। তার বাবা পেশায় দারোয়ানের চাকরি করেন।
সে দিনভর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পড়ে থেকে এসব করতে শিখেছে। এমনকি বাংলাদেশের অফিসিয়াল সাইডও হ্যাক ছাড়াও সহস্রাধিক ফেসবুক আইড হ্যাক করে নিজে জয়েন্ট করেছে। এভাবে প্রশ্ন ফাঁসকারী গ্রুপের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করে সে। একপর্যায়ে তার বড় ভাইকেও এই কাজে জড়িত করে শওকত। আটক অন্যরা তার কাছ থেকে এসএসসি’র প্রশ্নপত্র নিয়ে বিক্রি করে। এইচএসসি’র প্রশ্নপত্রও নেয়, যদিও সেগুলো ভুয়া ছিলো। বিকাশে টাকা নিয়ে তারা প্রশ্ন দিতো। র‌্যাব অধিনায়ক প্রশ্ন ফাঁস চক্রের আরও ভয়াবহ তথ্য উপস্থাপন করে বলেন, আগামী ৬ই মে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার কথা রয়েছে। সেই পরীক্ষার ফলাফল পরিবর্তন করে ভুয়া ফল পরিবর্তনের চেষ্টা চালাচ্ছিলো তারা। এরমধ্যে ফলাফল পরিবর্তনের কয়েকটা ডেমো ভার্সন তাদের কাছে পাওয়া গেছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, গ্রেড পরিবর্তন করে গোল্ডেন এ-প্লাসের জন্য ২৫ হাজার ও সাধারণ গ্রেডের জন্য সাড়ে ১২ হাজার টাকার বিনিময়ে  পরীক্ষার্থীদের ফলাফল পরিবর্তনের প্রস্তাব দেয়। তাদের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডিতে পাওয়া যায় অনেক পরীক্ষার্থীর সার্টিফিকেট ও মার্কশীট কপি। তাদের মোবাইল ফোন সার্চ করে দেখা যায় ইমো, ম্যাসেঞ্জার, ফেসবুক আইডি, ভাইবারের মাধ্যমে ভুয়া প্রশ্ন অর্থের বিনিময়ে বিক্রি করেছে। অভিভাবকদের এ ব্যাপারে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে র?্যাব’র কর্মকর্তা বলেন, আপনার সন্তান একা ও অবসর সময়ে মোবাইল ফোনে কি করছে তা লক্ষ্য রাখুন। নতুবা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য এটা হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

চ্যারিটেবলের রায় আগে লেখা হয়েছে: নজরুল

‘অনু মালিক তাকে চুমু দিতে বলেছিলেন’

মাহবুব তালুকদারের প্রস্তাব সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক: কবিতা খানম

শাহবাগে ‘অবস্থান’ কর্মসূচি ঘোষণা সাধারণ ছাত্র পরিষদের

ক্রিমিয়ায় কলেজে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ১৮

মহাঅষ্টমীতে কুমারী পূজা সম্পন্ন

পুলিশের ‘গায়েবি মামলা’ প্রবণতায় টিআইবি’র উদ্বেগ

সম্পাদক পরিষদের দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন সাংবাদিক নেতাদের

পদত্যাগ করলেন এম জে আকবর

এইচটি ইমাম অসুস্থ, হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়েছে

ম্যান বুকার পেলেন আইরিশ লেখিকা আনা বার্নস

ইঁদুর গিলছে ধান!

গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সংকুচিত হয়েছে

লাহোরে শিশু জয়নাবের ধর্ষক ও হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর

বাহুবলে ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ, যুবক আটক

তিতাসের ৫ কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত